সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ১০ মাঘ ১৪২৮, ২০ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

প্রত্যাগত প্রবাসী কর্মীদের জন্য ভালো কিছু করবে সরকার প্রেস ব্রিফিংয়ে- প্রবাসী মন্ত্রী ইমরান আহমদ

মালয়েশিয়ায় কোনো সিন্ডিকেট হবে না

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ ডিসেম্বর, ২০২০, ৭:০৬ পিএম

লেবাননসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আটকে পড়া প্রবাসী কর্মীদের সম্পূর্ণ সরকারি খরচে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।এ ব্যাপারে সরকার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রত্যাগত প্রবাসী কর্মীদের জন্য এই সরকারই ভালো কিছু করবে। করোনার সময়ে চাকরি হারিয়ে বিদেশ থেকে যারা ফেরত আসছে তাদের জন্য সরকার কী করছে এমন প্রশ্নের জবাবে আজ শুক্রবার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রবাসী মন্ত্রী বলেন, সরকার কী করেছে প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকে গেলে হিসেব পাওয়া যাবে। ইতোমধ্যে বরাদ্দকৃত প্রায় ২০০ কোটি টাকা থেকে পুরুষ কর্মীদের ৯ শতাংশ সুদে ও নারী কর্মীদের জন্য ৭ শতাংশ সুদে ঋণ বিতরণ শুরু হয়েছে। তিনি আরো বলেন, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকে ৫০০ কোটি টাকা দেয়া আছে। এই টাকা ঋণ দেয়ার পর যদি আরও ৫০০ কোটি টাকা লাগে তা’ দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন।

প্রবাসী মন্ত্রী বলেন, ঋণের টাকা নিয়ে কেউ বাজার করে খেয়ে ফেলুক তা আমরা হতে দেবো না। ঋণের আওতায় ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৪১১ জন বিদেশ ফেরত ঋণগ্রহীতাকে ইতোমধ্যে ৮ কোটি টাকা ঋণ প্রদান করা হয়েছে। প্রেস ব্রিফিংয়ে আরও উপস্থিত ছিলেন, মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন, অতিরিক্ত সচিব শহিদুল আলম, অতিরিক্ত সচিব খাদিজা বেগম, বিএমইটি মহাপরিচালক শামছুল আলম, ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক হামিদুর রহমান।

মন্ত্রী বলেন, অভিবাসী দিবসে এবারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে, মুজিববর্ষের আহŸান, দক্ষ হয়ে বিদেশ যান। এবারের মূল ও জাতীয় অনুষ্ঠান আগামী ৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি উপস্থিত থাকার সম্মতি দিয়েছেন।
লিখিত বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, প্রতি বছর প্রায় সাত থেকে আট লাখ লকো বৈদেশিক কর্মসংস্থানের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন দেশে গমন করে। বিএমইটি’র পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০১৯ সালে সাত লাখ ১৫৯ জন কর্মী বিদেশ গেছেন। কিন্তু বর্তমানে মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রায় বন্ধ রয়েছে। গত দু’মাসে ছুটিতে আটকে পড়া প্রায় ১২ হাজার কর্মী সউদী আরবে গিয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতেও আটকে পড়া কর্মী যাচ্ছে। তবে দেশটিতে কেউ কেউ ভিজিট ভিসায় গিয়ে অবৈধ হয়ে যাচ্ছে। এতে দেশের ভাব-মর্যাদা ক্ষুন্ন হচ্ছে।

ইমরান আহমেদ বলেন, দক্ষ কর্মী তৈরির লক্ষ্যে সারাদেশে ৬৪টি টিটিসি ও ৬টি আইএমটি চালু আছে। মুজিববর্ষের বিশেষ উদ্যোগে মহান মুক্তিযুদ্ধের বছরের স্মারক হিসেবে উপজেলা পর্যায়ে আরাও ১০০টি টিটিসি নির্মাণের প্রকল্প রয়েছে। পর্যায়ক্রমে প্রত্যেক উপজেলায় টিটিসি প্রতিষ্ঠা করা হবে। মন্ত্রী বলেন, গত ১ এপ্রিল থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত ৩ লাখ ২৬ হাজার ৭৫৮ জন প্রবাসী কর্মী দেশে ফিরে এসেছেন। তাদের অনেকে কাজের মেয়াদ শেষে বা কাজ না থাকায় দেশে ফেরত এসেছেন।
তিনি বলেন, বোয়েসেলের মাধ্যমে শিগগিরই জর্ডানের বৃহৎ গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে শূণ্য অভিবাসন ব্যয়ে ১২ হাজার কর্মী যাবে। মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণ প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী মন্ত্রী বলেন, আগে যে সিন্ডিকেট প্রক্রিয়ায় দেশটিতে কর্মী গেছে সে প্রক্রিয়ায় কর্মী প্রেরণে আমি রাজি হবো না। তিনি বলেন, মালয়েশিয়ার সরকারের সিদ্ধান্তের কারণেই দেশটিতে জনশক্তি রফতানি বন্ধ হয়েছে।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন