ঢাকা বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬ মাঘ ১৪২৭, ০৬ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী প্রশ্নোত্তর

নামাজের মধ্যে এক ব্যক্তি চুলকাচ্ছিল। তখন বাহিরের এক ব্যক্তি চুলকাতে নিষেধ করে। এই নিষেধাজ্ঞা শুনে নামাজী চুলকানো ছেড়ে দিল। জানতে চাই, এতে নামাজের কোন সমস্যা হবে কি না?

উবায়দুল্লাহ রবি
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ৮ জানুয়ারি, ২০২১, ৭:০৭ পিএম

উত্তর : অহেতুক দীর্ঘ সময় চুলকালে, দুইবারের অধিক চুলকালে এমনিতেই নামাজ ভেঙ্গে যায়। খুবই অসহনীয় চুলকানীর ক্ষেত্রে মাত্র একবার ভালো করে চুলকে ফেললে নামাজ হয়ে যায়। কিন্তু বারবার চুলকালে (অধিক কাজ) বিবেচনায় নামাজ ভেঙ্গে যায়। বাইরের লোকের দেওয়া লোকমাগ্রহণ নিষেধ। অর্থাৎ, কেরাতে ভুল হলে বাইরের লোক শুদ্ধ করে দিলে সেটি গ্রহণ করা মুসল্লি বা ইমামের জন্য নামাজ ভঙ্গের কারণ। এখানেও অনেকটা সেরকম দেখা যায়, মানে নামাজ শুদ্ধ হওয়ার মাসআলা বাইরের লোক থেকে নেওয়া হচ্ছে, এটিও নামাজের জন্য ক্ষতির কারণ। তবে নামাজ ভাঙ্গবে না। যেমন, কেবলা ভুল হলে বাইরের লোক বলে দিলে সে অনুযায়ী নামাজে থেকেও কেবলা ঠিক করা যায়।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
inqilabqna@gmail.com

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন