ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৪ আষাঢ় ১৪২৮, ০৬ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী প্রশ্নোত্তর

আমি একটা মসজীদে থাকি। সেখানে মক্তবের ছেলেমেয়েদেরকে পড়ানোর জন্য আমি একটা ব্ল্যাকবোর্ড কিনতে চেয়েছিলাম। সেজন্য ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে সামান্য কিছু টাকা চাঁদা তুলি এবং বাকি টাকা আমার থেকে দেওয়ার চিন্তাভাবনা করি। কিন্তু পরবর্তীতে আমি ওই টাকাটা খরচ করে ফেলি। এবং এখন আর ব্ল্যাকবোর্ড কিনার প্রয়োজনও নাই। এটা আরো ৪-৫ বছর আগের কথা। আমি যাদের কাছ থেকে টাকাগুলো তুলেছিলাম তারা এখন আর মসজীদে পড়ে না। এবং আমার সঠিকভাবে মনেও নাই কার কার কাছ থেকে টাকাগুলো তুলেছিলাম। এখন আমি সেই টাকাটা কী করবো?

মো. রফিকুল ইসলাম
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ১০ জানুয়ারি, ২০২১, ৭:৪১ পিএম

উত্তর : আপনার এটি একটি সমস্যা। কারণ যে জন্য টাকা তুলেছিলেন, সেটি না হওয়ার পর সঙ্গে সঙ্গে টাকা ফেরত দেওয়া উচিত ছিল। এখন যদি আপনি টাকা ফেরত দিতে চান, তাহলে তাদেরকে সঠিকভাবে টাকার পরিমাণসহ দেওয়ার জন্য ওই শিশুগুলোকে আর পাবেন না। কিন্তু তারা যদি বড় হতো, সাবালক হতো, তাহলে তাদের তরফ থেকে দান করে দিলেও চলতো। কিন্তু যেহেতু তারা শিশু ও নাবালক তাদের টাকা আরও বেশী সমস্যা। এখন আপনি ইচ্ছা করলে এই টাকা তাদের পিতা-মাতা বা অভিভাবক যারা টাকাটা দিয়েছিলেন, তাদের নামে আল্লাহর ওয়াস্তে দান বা সদকা করে দিতে পারেন। তারপরও আপনার দায়মুক্তির ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালার কাছে তওবা এবং দোয়া করে যেতে হবে।

উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
inqilabqna@gmail.com

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
মোঃ আলতাব হোসেন ১১ জানুয়ারি, ২০২১, ৪:০৩ পিএম says : 0
আমি একটি বেসরকারী সুদী প্রতিষ্ঠানের আইসিটি বিভাগে চাকুরী করি । সরাসরি আমি সুদের সাথে কাজ করি না কিন্তু যে সফটওয়্যার ব্যবহার হয় তা দেখাশুনা করি এবং সফটওয়্যারে কিভাবে কাজ করতে হয় তা নিদেশনা দিয়ে থাকি । এক্ষেত্রে আমার উপাজন কি হারাম হবে ?
Total Reply(1)
Mamun ১৩ জানুয়ারি, ২০২১, ৩:১৮ পিএম says : 1
Ho, golai dori dao ekhon. Faltu

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন