ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭, ১৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

সাতক্ষীরা ও সাভারে নদী থেকে দুই লাশ উদ্ধার

প্রকাশের সময় : ২৮ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

অভ্যন্তরীণ ডেস্ক

দেশের দুই স্থানে নদী থেকে ২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত আমাদের সংবাদদাতাদের পাঠানো প্রতিবেদন-
সাতক্ষীরা জেলা সংবাদদাতা জানান, সাতক্ষীরার বেতনা নদী থেকে এক স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত স্কুলছাত্র সদর উপজেলার ধুলিহর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের আব্দুর রহমান ঢালীর ছেলে জাহিদ হোসেন (১৪)। গত শুক্রবার বেলা আড়াইটার দিকে বেতনা নদীর নেহালপুর সøুইচ গেটের কাছ থেকে তার লাশ উদ্ধার হয়। স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, জাহিদ হোসেন গত বৃহস্পতিবার বিকালে বন্ধুদের সাথে ফুটবল খেলতে বেতনা নদী পার হয়ে মাটিয়াডাঙ্গা গ্রামে যায়। এরপর থেকে সে নিখোঁজ ছিলো। জাহিদের পরিবারের সদস্যসহ অন্যরা খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে শুক্রবার দুপুরে নেহালপুর সøুইচ গেটের কাছে তার লাশ ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। জাহিদ ধুলিহর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৭ম শ্রেণিতে পড়াশুনা করতো। কিছুদিন বন্ধ থাকার পর বর্তমানে সে স্থানীয় একটি বেসরকারি এনজিও পরিচালিত স্কুলে পড়াশুনা করে। সদরের ব্রহ্মরাজপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আব্দুল কাদের লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ময়না তদন্তের জন্য লাশ সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা হবে।
স্টাফ রিপোর্টার, সাভার থেকে জানান, বংশী নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ শিশু শিমু আক্তারের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল। গতকাল শনিবার বংশী নদীর কুল্লা ইউনিয়নের কাইজারকুন্ড এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত শিমু আক্তার (১০) সাভারের লালটেক এলাকার বাসিন্দা সবজি ব্যবসায়ী আব্দুল কুদ্দুসের একমাত্র মেয়ে। সে লালটেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ছিল। সাভার ফায়ার সার্ভিসের ওয়ার হাউজ ইনস্পেক্টর শেখ সাহাজুর রহমান জানান, গত শুক্রবার দুপুরে ধামরাইর কাইজারকুন্ড এলাকায় খালার বাসায় বেড়াতে যায় শিমু। বিকালে সে বংশী নদীতে গোসল করতে নামলে পানিতে তলিয়ে যায়। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন ও পরে সাভার ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরীদল এসে কয়েক ঘণ্টা পানিতে তল্লাশি চালিয়ে কোন খোঁজ না পেয়ে ফিরে যায়। গতকাল শনিবার সকালে পুনরায় ওইস্থানে তল্লাশি করার সময় লাশটি ভেসে উঠে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন