ঢাকা সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ২৩ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৩ রজব ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ওয়াশিংটনে কমলা হ্যারিসের নতুন ঠিকানা ‘ব্লেয়ার হাউস’

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১, ৭:৫৩ পিএম

প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ এবং নারী হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট হয়েছেন কমলা হ্যারিস। ওয়াশিংটন ডিসির ম্যানসনে প্রথম সাপ্তাহিক ছুটির দিনটি তিনি সপরিবারে অতিবাহিত করেছেন। হোয়াইট হাউজের ঠিক উল্টো পাশে অবস্থিত বিলাসবহুল ওই ‘প্রেসিডেন্টস গেস্ট হাউজ’ নামেই বেশি পরিচিত।

বাড়িটির ঠিকানা ১৬৫১ পেনসিলভেনিয়া এভিনিউ। এ বাড়িটির আরো একটি নাম আছে। তা হলো ব্লেয়ার হাউজ। বর্তমানে সেখানেই অবস্থান করছেন কমালা হ্যারিস ও তার স্বামী ডগ এমহোফ। অন্যদিকে সামান্য দূরেই হোয়াইট হাউজে উঠেছেন নতুন অতিথি- প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও তার স্ত্রী জিল বাইডেন। ৫৬ বছর বয়সী কমলা হ্যারিস এতদিন বসবাস করছিলেন লস অ্যানজেলেসে। কিন্তু বুধবার শপথের আগে তাকে ছুটে যেতে হয়েছে ওয়াশিংটন। সেখানে ব্লেয়ার হাউজে অবস্থান করছেন তিনি।

১৯৪২ সালে ওই বাড়িটি কিনে নেয় মার্কিন সরকার। তারপর থেকে এ বাড়িটি প্রেসিডেন্টের অতিথিদের ব্যবহারের জন্য নির্ধারিত। এ ছাড়া প্রয়াত একজন প্রেসিডেন্টের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার আগে তার পরিবারের সদস্যরা এখানে অবস্থান করেছিলেন। কমপক্ষে ৬০ হাজার বর্গফুটে বিস্তৃত চারটি টাউনহাউজ মিলিয়ে এই বাড়ি। সেখানে পরিপূর্ণভাবে সাজানো ১৪টি বেডরুম আছে। আরো আছে সব মনোহরী কক্ষ।

৬০ হাজার ৬০০ বর্গফুটের এই বাড়িতে মোট আছে ১১৯টি রুম। তার মধ্যে ১৪টি বেডরুম। ৩৫টি বাথরুম। এখানে এটা বলে রাখা ভাল যে, এই বাড়িটি হোয়াইট হাউজের চেয়ে বড়। আছে ১৪টি গেস্ট স্যুট। প্রতিটিতে আছে পূর্ণাঙ্গ বাথরুম। আছে তিনটি আনুষ্ঠানিক ডাইনিং রুম। দুটি বিশাল কনফারেন্স রুম। বিশাল এই সম্পত্তি দেখাশোনা করতে কমপক্ষে ১৮ জন ফুলটাইম স্টাফ প্রয়োজন।

সাধারণত যুক্তরাষ্ট্রের আমন্ত্রণে প্রেসিডেন্টের বিদেশি যেসব অতিথি ওয়াশিংটনে যান, তাদের জন্য এই বাড়িটি ব্যবহার করা হয়। ওয়াশিংটন সফরের সময় এই বাড়িতে অবস্থান করেছেন বিখ্যাত কিছু অতিথি। তার মধ্যে রয়েছেন বৃটেনের রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ, সাবেক বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী মার্গারেট থ্যাচার, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। বুধবার ন্যাশনাল মলে শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার আগে এ বাড়িতেই অবস্থান করেছিলেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। সূত্র: ডেইলি মেইল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন