ঢাকা বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৮ রজব ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

সাগরিকায় রানের রাজা তামিম

রুমু, চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

ম্যাজিক্যাল ‘৬৪’
সিরিজের শেষ ওয়ানডে ম্যাচে টাইগার দল খেলেছে পুরো ৫০ ওভার। রান পেয়েছে ২৯৭। তার মধ্যে ম্যাজিক স্কোর হচ্ছে ৬৪ রান। ওপেনার তামিম, মুশফিক ব্যক্তিগত ৬৪ রান করে আউট হলেও মাহমুদ উল্লাহ ছিলেন অপরাজিত। তার ব্যাট থেকেও আসে ৬৪ রান। তখন প্রেস বক্সে এক সাংবাদিক বলে উঠেন এ যেন ম্যাজিক স্কোর। তখন অপর এক সাংবাদিক বলেন, মাহমুদ উল্লাহ সবচেয়ে কম বল খেলেছে। আর সর্বোচ্চ বল খেলেছে তামিম ইকবাল। খেলেছে ৮০ বল।

দেশসেরা ওপেনার চট্টগ্রামের ছেলে তামিম ইকবালের চিরচেনা মাঠ জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়াম। এই মাঠে তিনি অনেক ব্যাটিং তান্ডব চালিয়েছিলেন। দর্শকরা তার এই ব্যাটিং দেখে হয়েছিলেন মুগ্ধ। গতকালও সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে এই মাঠে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ৫০০ রানের মাইলফলক স্পর্শ করলেন টাইগার অধিনায়ক।
এই হোম ভেন্যুতে নিজের ১৫ তম ম্যাচে এই কীর্তি গড়লেন তিনি। যেখানে মাইলফলক স্পর্শ করতে তার রান দরকার ছিল ৩, সেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের তৃতীয় ওভারে আলজারি হোসেফের বলে খোঁচা দিয়ে সেরে ফেললেন কাজটি।
এই মাঠে এখনো পর্যন্ত ওয়ানডেতে তামিমের সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৮৩ রান। করেছিলেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, ২০১৫ সালে। সাগরিকায় সব মিলিয়ে অর্ধশতক আছে পাঁচটি। ক্যারিয়ারে এখনো পর্যন্ত ৪৯ টি হাফসেঞ্চুরির মালিক হলেন তামিম। তার চেয়ে বেশি হাফসেঞ্চুরি বাংলাদেশে আর কারও নেই। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই সিরিজের তিনটি ম্যাচের রান পেয়েছেন টাইগার অধিনায়ক। প্রথম ম্যাচে ৪৪, পারের ম্যাচে ৫০ এর পর এদিন শেষ ম্যাচে করলেন ৮০ বলে ৬৪ রান।
ক্রিকেট পরিবারের সন্তান তামিম ইকবালের পিতা ইকবাল খান ছিলেন একাধারে ফুটবলার ও ক্রিকেটার। দুই ভাইয়ের মধ্যে নাফিস ইকবালও ছিলেন জাতীয় দলের ওপেনার। চাচা আকরাম খান বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ছিলেন। বর্তমানে তিনি বিসিবি’র ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান। গর্বিত পিতার হাত ধরে তামিমের হাতেখড়ি হয় ক্রিকেটে। ছেলেকে বড় ক্রিকেটার বানানোর স্বপ্ন পূরণ হলেও তা দেখে যেতে পারেননি ইকবাল খান। ২০০২ সালে মারা যান তিনি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন