ঢাকা সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭, ২৮ শাবান ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সরকার সব জেলা সদর হাসপাতালে আইসিইউ স্থাপন করবে

হাইকোর্টে প্রতিবেদন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০১ এএম

সরকার জেলা হাসপাতালে ১০ শয্যার আইসিইউ (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) স্থাপনের পরিকল্পনা করেছে। পর্যায়ক্রমে দেশের সকল জেলায় আইসিইউ স্থাপন করবে। পর্যাপ্ত দক্ষ জনবলের সঙ্কট থাকায় পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সময়ের প্রয়োজন। এ বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। হাইকোর্টে উপস্থাপিত এক প্রতিবেদনে এ কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদফতর। বিচারপতি জেবিএম হাসান এবং বিচারপতি মো.খায়রুল আলমের ডিভিশন বেঞ্চে সোমবার এ প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। অধিদফতরের পক্ষে পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমুহ) প্রতিবেদন দাখিল করেন মো. ফরিদ হোসেন মিঞা। প্রতিবেদনে বলা হয়, এরই মধ্যে দেশের যেসব জেলা সদরে সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, সেগুলোতে ১০ শয্যার বেশি আইসিইউ কার্যকর আছে।

প্রতিবেদন সম্পর্কে ওই বেঞ্চের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায় বলেন,২০২০ সালের ১৩ ডিসেম্বর হাইকোর্ট পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফি (ইউজার ফি) নির্ধারণ করে প্রতিবেদন দিতে বলেছিলেন। ওই দিন আইসিইউ শয্যা স্থাপন বিষয়েও অগ্রগতি জানাতে বলা হয়েছিল। এ অনুসারে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করা হয়। আদালতের ইতিপূর্বে দেয়া নির্দেশনা বাস্তবায়ন বিষয়ে দুই মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়,মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পরিপ্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে অক্সিজেন ব্যবহারের মূল্য ও কোভিড-১৯ সম্পর্কিত কিছু প্রয়োজনীয় পরীক্ষার মূল্য নির্ধারণ করে গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। অক্সিজেন ব্যবহারের মূল্যসহ কোভিড-১৯ সম্পর্কিত ১০টি জরুরি পরীক্ষার মূল্যতালিকা বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে মালিকদের অবিলম্বে কার্যকর করাসহ তালিকা প্রতিষ্ঠানের দৃশ্যমান স্থানে টানাতে বলা হয়েছে।

‘দ্য মেডিকেল প্র্যাকটিস অ্যান্ড প্রাইভেট ক্লিনিকস অ্যান্ড ল্যাবরেটরিস ( রেগুলেশন) অধ্যাদেশ-১৯৮২’ যথাযথভাবে অনুসরণের নির্দেশনা চেয়ে হিউম্যান রাইটস ল’ইয়ার্স অ্যান্ড সিকিউরিং এনভায়রনমেন্ট সোসাইটি অব বাংলাদেশের পক্ষে সংগঠনের কোষাধ্যক্ষ মো. শাহ আলম ২০১৮ সালের জুনে হাইকোর্টে রিট করেন। রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে ওই বছরের ২৪ জুলাই হাইকোর্ট রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেন। এরপর হাইকোর্ট বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফি (ইউজার ফি) নির্ধারণ এবং ওই অধ্যাদেশের বিধান যুগোপযোগী করে নতুন আইন প্রণয়নের অগ্রগতি জানাতে বলেন। এর ধারাবাহিকতায় ওই প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। সেটি আদালতে উপস্থাপন করা হয়। রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট বশির আহমেদ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন