ঢাকা, রোববার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ০১ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

৮ গোলের রোমাঞ্চ জিতে সেমিতে বার্সা

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০৬ এএম

খেলার নির্ধারিত সময়ের বাকি তখন তিন মিনিট। ম্যাচজুড়ে আধিপত্য দেখালেও সুযোগ হাতছাড়া করা ও রক্ষণভাগের ভুলের খেসারত দিয়ে বার্সেলোনা তখন পিছিয়ে দুই গোলের ব্যবধানে। কিন্তু হাল না ছাড়ার অদম্য মানসিকতার ছাপ রেখে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় কাতালান ক্লাবটি। সবমিলিয়ে ২৫ মিনিটের মধ্যে তারা গ্রানাদার জাল কাঁপায় পাঁচবার। আট গোলের নাটকীয় ম্যাচে জিতে রোনাল্ড কোমানের দল কাটে কোপা দেল রের সেমিফাইনালের টিকিট।
গতপরশু রাতে অতিরিক্ত সময়ে গড়ানো রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে গ্রানাদাকে তাদের মাঠেই ৫-৩ গোলে হারায় বার্সা। প্রতিযোগিতার কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচটি নির্ধারিত সময়ে শেষ হয়েছিল ২-২ সমতায়। বার্সেলোনার হয়ে জোড়া গোল করেন আঁতোয়ান গ্রিজমান ও জর্দি আলবা। অন্য গোলটি আসে ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংয়ের পা থেকে। স্বাগতিকদের তিন গোলদাতা কেনেদি, রবার্তো সলদাদো ও ফেদে ভিকো।
ম্যাচের ধারার বিপরীতে দুই গোল করে বার্সাকে হতভম্ব করে দিয়েছিল গ্রানাদা। কোনোটিতেই দায় এড়ানোর উপায় নেই বার্সার রক্ষণভাগের। ৩৩তম মিনিটে স্যামুয়লে উমতিতি বিপদমুক্ত না করে উল্টো বল হারান আলবার্তো সরোর কাছে। তার মাপা ক্রসে আলতো টোকায় লক্ষ্যভেদ করেন কেনেদি।
এরপর দ্বিতীয়ার্ধের একেবারে শুরুতে আরেক গোল হজম করে সফরকারীরা। নিজেদের অর্ধ থেকে উঁচু করে বল বাড়ান আনহেল মনতোরো। মাঝবৃত্তের সামনে তা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে উমতিতিকে অনায়াসে পেছনে ফেলেন সলদাদো। তাকে আটকানোর জন্য ছিল না বার্সার আর কোনো ডিফেন্ডার। সবাই তখন গ্রানাদার অর্ধে। একাই বল টেনে নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে গোলরক্ষক মার্ক-আন্দ্রে টের স্টেগেনকে পরাস্ত করেন সলদাদো।
অথচ এর আগে একগাদা সুযোগ তৈরি করেছিল বার্সেলোনা। ম্যাচের প্রথম সাত মিনিটের মধ্যে গ্রানাদা গোলরক্ষক অ্যারন এস্কান্দেইকে কয়েক দফা পরীক্ষায় ফেলেন রোনালদ আরাউহো, লিওনেল মেসি ও ত্রিনকাও। ২৩তম মিনিটে গোল প্রায় পেয়েই গিয়েছিল বার্সা। কিন্তু আর্জেন্টাইন তারকা মেসির বাঁকানো ফ্রি-কিক ঝাঁপিয়ে রুখে দেন এস্কান্দেই। পিছিয়ে পড়ার পরও আক্রমণের ধার বজায় রাখে বার্সা। ৬১তম মিনিটে মেসির প্রচেষ্টা ফাঁকি দিতে পারেনি গোলরক্ষককে। পরের মিনিটে ত্রিনকাওয়ের জোরালো শট দুর্ভাগ্যজনকভাবে বাধা পায় ক্রসবারে। ৮২তম মিনিটে খুব কাছ থেকে গ্রিজমানের নেওয়া ওভারহেড কিক কর্নারের বিনিময়ে ফিরিয়ে দেন এস্কান্দেই।
গ্রানাদা যখন স্মরণীয় জয়ের স্বপ্নে বিভোর, তখনই মরিয়া হয়ে বার্সেলোনা পায় আশার আলো। ৮৮তম মিনিটে মেসির ক্রসে ফরাসি তারকা গ্রিজমানের শট পোস্টে লেগে গোলরক্ষকের পা ছুঁয়ে জালে জড়ায়। দুই মিনিট পর মেসির শট আটকে যায় পোস্টে। তবে হতাশায় পুড়তে হয়নি কোমানের শিষ্যদের। মেসির ক্রসে গ্রিজমান হেড করার পর ফিরতি হেডে লক্ষ্যভেদ করে দলকে উল্লাসে মাতান আলবা। যোগ করা সময়ের শেষ মিনিটে জয় নিশ্চিত করার সুবর্ণ সুযোগ পেয়েছিল গ্রানাদা। ডানপ্রান্ত দিয়ে বল নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন বদলি লুইস সুয়ারেজ। কিন্তু টের স্টেগেনকে একা পেয়েও শট লক্ষ্যে রাখতে ব্যর্থ হন তিনি।
অতিরিক্ত সময়ে নাটকীয়তাও কম ছিল না। ১০০তম মিনিটে মেসির ক্রসে হেড করে বার্সাকে ম্যাচে প্রথমবারের মতো এগিয়ে নেন গ্রিজমান। তিন মিনিট পর ফেদে ভিকোর স্পট-কিকে সমতায় ফেরে গ্রানাদা। সের্জিনো দেস্ত ডি-বক্সে কার্লোস নেভাকে ফাউল করায় পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। তবে এরপর আর কোনো ভুল করেনি বার্সা। ১০৮তম মিনিটে ফ্রেঙ্কি বার্সাকে ফের এগিয়ে দেন। মেসির নিচু শট গোলরক্ষক ফিরিয়ে দেওয়ার পর ফিরতি শটে নিশানা ভেদ করেন তিনি। পাঁচ মিনিট পর দলের জয় নিশ্চিত করেন আলবা। ডি-বক্সের ভেতরে গ্রিজমানের পাসে বাঁ পায়ের বুলেট গতির ভলিতে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন