সোমবার, ০২ আগস্ট ২০২১, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮, ২২ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

বদলি মেসিও ভয়ঙ্কর

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

লিওনেল মেসিসহ দলের বেশ কিছু নিয়মিত খেলোয়াড় ছাড়া পয়েন্ট টেবিলের সাত নম্বরে থাকা রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে দল সাজিয়েছিলেন বার্সেলোনা কোচ রোনাল্ড কোমান। কিন্তু তাতে লাভ হয়নি। প্রথমার্ধেই পিছিয়ে পড়ে দলটি। পরে বাধ্য হয়েই অধিনায়ককে মাঠে নামায় তারা। আর নেমেই ম্যাচের চিত্র বদলে দেন হালের অন্যতম সেরা এ খেলোয়াড়।
গতপরশু রাতে স্তাদিও বেনিতো ভিয়ামেরিনে রোমাঞ্চে ভরা ম্যাচে ৩-২ গোলের জয় পেয়েছে বার্সেলোনা। বার্সেলোনার হয় একটি করে গোল দিয়েছেন মেসি ও ফ্রান্সিস্কো ত্রিনকাও। অপর গোলটি আসে আত্মঘাতী থেকে। বেতিসের হয়ে গোল দুটি করেছেন বোরজা ইগলিসিয়াস ও ভিক্তর রুইজ।
এ নিয়ে টানা ১১টি ম্যাচে অপরাজিত রয়েছে কাতালানরা। জয় টানা ছয়টি। ২১ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ফিরল বার্সেলোনা। যদিও সমান ম্যাচে তৃতীয় স্থানে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্টও সমান। দুই ম্যাচ কম খেলে ৫০ পয়েন্ট নিয়ে আছে শীর্ষে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।
প্রতিপক্ষের মাঠে এদিন ম্যাচের সপ্তম মিনিটেই বেশ বড় ধাক্কা খেয়েছিল বার্সা। ইনজুরিতে পড়ে মাঠ ছাড়েন রোনালদ আরাহো। কিন্তু তার জায়গায় কোনো সেন্টার ব্যাক না নামিয়ে ফ্র্যাঙ্কি ডি ইয়ংকে নামান কোমান। অন্যদিকে তরুণ সেন্টার ব্যাক অস্কার মিঙ্গুয়েজাকে খেলান রাইট ব্যাক পজিশনে। কিন্তু কোমানের এ ফটকা কাজে লাগেনি। ডান প্রান্ত দিয়ে পাল্টা আক্রমণে বেশ কয়েকবারই তাদের ভুগিয়েছে স্বাগতিকরা। ম্যাচের ৩৮তম মিনিটে এগিয়েই যায় বেতিস। দারুণ এক পাল্টা আক্রমণ থেকে ডান প্রান্ত থেকে বাড়ানো এমেরসনের ক্রসে আলতো টোকায় গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড ইগলেসিয়াস।
গোল খেয়েও আক্রমণে ধার বাড়াতে পারেনি বার্সেলোনা। বাধ্য হয়ে ৫৭তম মিনিটে রিকি পুইচের বদলি হিসেবে অধিনায়ক মেসিকে মাঠে নামান কোমান। ম্যাচের চিত্র যেন মুহ‚র্তেই বদলে যায়। দুই মিনিট পরই অসাধারণ এক গোল করে দলকে সমতায় ফেরান অধিনায়ক। উসমান দেম্বেলের সঙ্গে দেওয়া নেওয়া করে ডান প্রান্ত থেকে ডি-বক্সে ঢুকে অসাধারণ এক কোণাকোণি শটে কাছে পোস্ট ঘেঁষে লক্ষ্যভেদ করেন এ আর্জেন্টাইন তারকা।
এগিয়ে যেতেও খুব বেশি সময় নেয়নি দলটি। ৬৮তম মিনিটে মাঝ মাঠ থেকে বাঁ প্রান্তে থাকা জর্দি আলবাকে নিখুঁত এক পাস দেন মেসি। বল ধরে ছোট ডি-বক্সে ফাঁকায় থাকা আতোঁয়ান গ্রিজমানকে ক্রস দেন আলবা। কিন্তু বলে লাগালতে ব্যর্থ হন এ ফরাসি। কিন্তু তার পায়ের পেছনের দিকে লেগে রুইজের পায়ে লেগে বল জালে জড়িয়ে যায়।
অবশ্য এই রুইজই সাত মিনিট পর দলকে সমতায় ফেরান। ডান প্রান্ত দিয়ে ডি-বক্সে ঢোকার মুখে অযথায় নাবিল ফেকিরকে ফাউল করেছিলেন সের্জিও বুস্কেতস। ফলে বিপজ্জনক জায়গা থেকে ফ্রিকিক পায় বেতিস। ফেকিরের দারুণ এক ক্রসে লাফিয়ে উঠে দুর্দান্ত এক হেডে বল জালে জড়ান রুইজ। তবে রুইজ এরপর আরও একটি ভুল করে ফেলেন। ৮৭তম মিনিটে ত্রিনকাওর উদ্দেশ্যে মেসির বাড়ানো বল প্রতিপক্ষ এক খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে রুইজের পায়ে এসেছিল। কিন্তু বল পরিস্কার না করে নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে ছোঁ মেরে নিয়ে যান ত্রিনকাও। অসাধারণ এক কোণাকোণি কোণাকোণি শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করলে ফের এগিয়ে যায় দলটি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন