ঢাকা রোববার, ০৭ মার্চ ২০২১, ২২ ফাল্গুন ১৪২৭, ২২ রজব ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

বিস্ফোরণে নিহত ৩০ তালেবান

আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা সরিয়ে নিতে ফের আহবান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:৪২ এএম

মসজিদে বসে বোমা বানানোর সময় বিস্ফোরণে নিহত হয়েছে কমপক্ষে ৩০ তালেবান সদস্য। সেখানে তারা বোমা বানানোর প্রশিক্ষণ দিচ্ছিলো বলে জানা গেছে। নিহতদের মধ্যে ৬ বিদেশি সন্ত্রাসীও রয়েছে বলে জানিয়েছে আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় এক মসজিদে বোমা তৈরির প্রশিক্ষণ দেয়ার সময় বিস্ফোরণে ৩০ তালেবান সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। এরমধ্যে ৬ বিদেশি তালেবানও ছিল যারা মাইন তৈরিতে দক্ষ। মাইন বানানো শিখতে সেখানে অনেক তালেবান সদস্যকে জড়ো করা হয়েছিল। দেশটির রাজধানী কাবুল থেকে ৪৫০ কিলোমিটার উত্তরের বাল্খ প্রদেশে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে উজবেকিস্তানের সীমান্ত একদমই কাছাকাছি। হামলার ফলে ঘটনাস্থলে থাকা কোনো তালেবান সদস্যই বাঁচতে পারেনি। এটিকে জঙ্গি গোষ্ঠিটির সাম্প্রতিক সময়ের সবথেকে বড় ক্ষতি বলে আখ্যায়িত করেছে আফগান সরকার। আরব নিউজকে এক আফগান কর্মকর্তা জানান, প্রায়ই তালেবান সদস্যরা বোমা বানানোর প্রশিক্ষণ দিতে গিয়ে ৬ জন বা ১০ জন করে মারা পরে। তবে এবারই প্রথম ৩০ তালেবানের মৃত্যু হলো। আফগানিস্তান থেকে সেনা সরিয়ে নিতে ফের যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহবান জানিয়েছে তালেবান। মঙ্গলবার মার্কিন নাগরিকদের উদ্দেশে লেখা এক চিঠিতে এ আহবান জানিয়েছেন তালেবানের প্রধান আলোচক মোল্লা আবদুল গণি বারাদার। চিঠিতে বলা হয়, ২০২০ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি কাতারের রাজধানী দোহায় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তালেবানের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। ওই চুক্তির শর্তগুলো বাস্তবায়নের জন্য মার্কিন জনগণ যেন তাদের সরকারকে জবাবদিহিতার সম্মুখীন করে। এই চুক্তির কারণে চলমান আফগান শান্তি প্রক্রিয়ার কার্যকারিতা ও সাফল্য নিয়েও কথা বলেন বারাদার। তিনি বলেন, বাইডেন প্রশাসনের প্রতি তালেবানের আহবান, তারা যেন ২০২০ সালে স্বাক্ষরিত সেনা প্রত্যাহার সংক্রান্ত শান্তি চুক্তি থেকে সরে না যায়। কেননা এটি আফগানিস্তানে যুদ্ধ বন্ধের সবচেয়ে কার্যকর উপায়। কেননা, এর ফলে এরইমধ্যে যুদ্ধক্ষেত্রের পরিধি হ্রাস পেয়েছে। আফগানিস্তানের বিভিন্ন পক্ষের মধ্যে শান্তি আলোচনার স‚চনা হয়েছে। কাতারের রাজধানীতে তালেবানের রাজনৈতিক দফতরের প্রধান বারাদার লিখেছেন, ‘দোহা চুক্তি স্বাক্ষরের এক বছর পেরিয়ে আমরা এখন আমেরিকান পক্ষকে বলবো তারা যেন এই চুক্তির পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের বিষয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকে। বারাদার সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতিনিধিদের সঙ্গে যে চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলেন তাতে বলা হয়েছে যে যুক্তরাষ্ট্র, ন্যাটো এবং অন্যান্য যেসব বিদেশি শক্তি এই যুদ্ধের সঙ্গে সম্পৃক্ত তারা যেন ২০২১ সালের মে মাস নাগাদ আফগানস্তান ত্যাগ করে। আরব নিউজ, ভয়েস অব আমেরিকা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (7)
হাসান মুনাব্বেহ সাআদ ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৮:৩১ এএম says : 1
খুবই দু:খজনক ঘটনা।
Total Reply(0)
জাহিদ খান ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৮:৩২ এএম says : 1
আমেরিকা সৈন্য ফিরিয়ে না নিলে আরও খেসারত দিতে হবে।
Total Reply(0)
তাসফিয়া আসিফা ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৮:৩২ এএম says : 1
ইনশায়াল্লাহ. তালেবানদের বিজয় হবেই হবে।
Total Reply(0)
জোবায়ের আহমেদ ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৮:৩২ এএম says : 1
আমেরিকার সেনা সরানো ছাড়া কোনো উপায় নেই।
Total Reply(0)
Jack+Ali ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৫:০১ পিএম says : 0
Those who tell Taliban terrorist they cannot be regarded as muslim. When we fought Pakistan barbarian no-body called us terrorist only Pakistan.
Total Reply(0)
Jack+Ali ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৯:০৬ পিএম says : 0
Those who gave dislike they are not human nay worse than dirtiest animal on earth, dirtiest animal is pig, pig also worship 100% Allah.
Total Reply(0)
Monjur Rashed ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১১:৫৩ এএম says : 0
Once upon a time, Talebans was created with American & Saudi patronizing & assistance. Now, Talebans are fighting against the USA whereas the Saudis are remaining silent. What a mystery !!!!
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন