ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ২ বৈশাখ ১৪২৮, ০২ রমজান ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী জীবন

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

| প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০৭ এএম

প্রশ্ন : আমি একটি ছাগল সাদকা দিব। সাদকা দেওয়ার নিয়ম জানতে চাই। কিভাবে বণ্টন করতে হয়, কাকে কাকে দেওয়া যাবে এবং যাবেনা, জানতে চাই।
উত্তর : একটি প্রাণী সাদকা দেওয়া মানে এটি আল্লাহর রাস্তায় উৎসর্গ করা। যারা যাকাত ফিতরা নিতে পারে তারাই কেবল সাদকা নিতে পারে। এমন কাউকে দিয়ে দেন, জবাই করলে গোশত বা তরকারী শুধু এমন মানুষকেই দিতে হবে। নিজে বা ধনী কোনো মানুষ সাদকার মাল খেতে পারে না বিধায় এ ছাগল থেকে তারা কিছুই খেতে বা গ্রহণ করতে পারবে না। এজন্য গরীব বা এতীমদের জন্য এটি দিয়ে দেওয়াই উত্তম।
প্রশ্ন : চন্দ্রগ্রহণ ও সূর্যগ্রহণের রাত্রে গর্ভবতী মহিলারা কিছুই করতে পারবে না, ঘুমাতেও পারবে না। যদি কোনো কাজ করে বা ঘুমায় তাহলে খারাপ কোনো কিছু ঘটবে যেমন- সন্তান প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মাবে। কোনো কিছু কাটলে হাত বা ঠোঁট কাটা সন্তান জন্ম নিবে। এ বিষয়ে জানতে চাই।
উত্তর : প্রশ্নে বর্ণিত কথাগুলোর কোনো ভিত্তি নেই। এমন হয় না। চন্দ্রগ্রহণ বা সূর্যগ্রহণের সময় সুন্নত নামায শুধু গর্ভবতীদের জন্য নয় বরং সব মুসলমানের জন্য বিধিবদ্ধ রয়েছে। আমাদের দেশে রেওয়াজ নেই তবে মক্কা মদীনাসহ বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় এ সুন্নত নামায পড়া হয়। গর্ভবতী মহিলারা এ সময় স্বাভাবিক সব কাজকর্ম করতে পারবেন। ঘুমুতে পারবেন, কাটাকাটি করতে পারবেন, এতে কিছুই হবে না। যা বলা হয় সবই কুসংস্কার।
প্রশ্ন : মহিলাদের জন্য কোন রঙয়ের এবং কোন মডেলের বোরকা পরা জায়েজ তা জানতে চাই।
উত্তর : পর্দার উদ্দেশ্য নারীর প্রতিটি অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বাইরে প্রকাশিত হওয়া থেকে বিরত থাকা। এটি ভদ্র পোশাক, সঙ্গে (জিলবাব) বা বড় চাদর এবং (খিমার) বড় উড়না এসব দিয়ে নিজেকে ঢেকে রাখা উদ্দেশ্য। এমনকি সব ঢাকার পরও প্রকাশিত সৌন্দর্য পরপরুষের সামনে প্রদর্শন নিষেধ। এতে বোঝা গেল, বোরকার রঙ বা মডেল যেন দৃষ্টিকাড়া না হয়। পর্দাও যেন আকর্ষণীয় না হয়। বোরকা যদি পর্দার চেয়ে বরং আকর্ষণীয় সাজসজ্জায় পরিণত হয়, তখন এটি আর বোরকা থাকে না। অন্য প্রদর্শনীর পোশাকে পরিণত হয়। এসব বোঝেই বোরকা পরতে হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন