ঢাকা শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭, ২০ রজব ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

রাশিয়াকে পাকিস্তানের সমর্থন

আফগান শান্তি উদ্যোগ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

স্থগিত আফগান শান্তি প্রক্রিয়া আবার শুরু করার লক্ষ্যে এ মাসের শেষে মস্কোয় রাশিয়া আহূত এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে অংশ নেবে পাকিস্তান। গত রোববার কর্মকর্তারা এবং কূটনৈতিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। রাশিয়া আফগান শান্তি প্রচেষ্টার জন্য একটি ‘সম্মিলিত প্রক্রিয়া’ বিকাশের লক্ষ্যে পাকিস্তান, আমেরিকা, চীন এবং ইরানের একটি বৈঠকের ব্যবস্থা করার জন্য ক‚টনৈতিক উদ্যোগ শুরু করেছে।

মস্কো স্থগিত হওয়া আন্তঃ-আফগান সংলাপের হোস্টিংয়ের জন্যও চাপ দিচ্ছে। সেপ্টেম্বরে দোহায় যে আলোচনা শুরু হয়েছিল তা দু’পক্ষের মধ্যে মতবিরোধের কারণে ধীরগতিতে এগিয়েছে। নতুন মার্কিন প্রশাসন ২০২০ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারির চুক্তিটি পর্যালোচনার সিদ্ধান্ত নেয়ার পর পরিস্থিতি আরও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল।

এর পটভূমিতে, রাশিয়া আন্তঃ-আফগান আলোচনা পুনরায় শুরু করার এবং বৃহত্তর আঞ্চলিক ঐকমত্যের চেষ্টা করছে। এ উদ্দেশ্যে আফগানিস্তানের জন্য রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের বিশেষ প্রতিনিধি, রাষ্ট্রদূত জামির কাবুলভ স¤প্রতি ইসলামাবাদ সফরে এসে মস্কোর এ উদ্যোগের জন্য পাকিস্তানের সমর্থন চেয়েছিলেন।

যদিও আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিতকরণ পাওয়া যায়নি, কূটনৈতিক সূত্রগুলি দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনকে জানিয়েছে যে, পাকিস্তান এ উদ্যোগকে সমর্থন করেছে এবং বৈঠকে অংশ নেবে। এ প্রক্রিয়ার সাথে সংশ্লিষ্ট এক সূত্র বলেছে, ‘আফগানিস্তানের শান্তিতে অবদান রাখার যে কোনও প্রচেষ্টা পাকিস্তান সমর্থন করে’।

মস্কো ২০১৮ সালে অনুরূপ বৈঠকের আয়োজন করেছিল যেখানে আফগান তালেবানরা প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক মঞ্চে এসেছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পর্যবেক্ষক হিসাবে বৈঠকে অংশ নিয়েছিল। আমেরিকা মস্কোর উদ্যোগে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দেবে কিনা তা এখনও পরিষ্কার নয়, তবে ইরান ও চীন বৈঠকে অংশ নেবে বলে নিশ্চিত। অগ্রগতি এমন সময়ে আসে যখন যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো ইঙ্গিত দিয়েছিল যে, মার্কিন-তালেবান চুক্তিতে সম্মত হওয়ার পরে তারা মে মাসের মধ্যে তাদের সেনা প্রত্যাহার করতে পারবে না।

মার্কিন ও আফগান সরকার তালেবানদের দোহার চুক্তি পুরোপুরি বাস্তবায়ন না করার অভিযোগ করেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ন্যাটো জোর দিয়েছিল যে, সেনা প্রত্যাহার শর্ত ভিত্তিক। তালেবানরা অবশ্য দোহা চুক্তি বাস্তবায়ন করছে না বলে অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে।

এক বিবৃতিতে তালিবান চুক্তিটি বাস্তবায়নের জন্য বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ তালিকাভুক্ত করেছে। বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে যে, এক বছর আগে এ চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার পর থেকে একজনও আমেরিকান সৈন্য মারা যায়নি।

রাষ্ট্রদূত কাবুলভ বলেছেন, রাশিয়া তালেবানদের এ দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়েছে যে, বিদ্রোহী গোষ্ঠী ‘নির্বিঘ্নে’ এ চুক্তি বাস্তবায়ন করেছে। পরিবর্তে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এ চুক্তি মানছে না বলে অভিযোগ করেছিলেন। মস্কো কেবল আন্তঃ-আফগান আলোচনা পুনরায় শুরু করতে চাইছে না, তালেবানসহ সমস্ত দলকে অন্তর্ভুক্ত করে একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠনের প্রস্তাব দিচ্ছে। আশরাফ গনি প্রশাসন রাশিয়ার প্রস্তাবের সাথে তীব্রভাবে সম্পর্কযুক্ত এবং জোর দেয় যে, বর্তমান প্রশাসনকে পাঁচ বছরের ম্যান্ডেট দেয়া হয়েছে।

এসব ভিন্নতার সাথে মস্কোর বৈঠকে আফগান সরকার এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র উভয়ই অনেক সন্দেহের সাথে দেখা হবে। তবে পাকিস্তান মনে করে যে, রাশিয়া একটি গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় এবং তাই আফগান শান্তি প্রক্রিয়ায় তার ভূমিকা রয়েছে।

পাকিস্তান, চীন, রাশিয়া ও ইরানসহ মূল অঞ্চলসমূহের আফগান শান্তি প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিস্তৃত ঐকমত্য রয়েছে। তারা আফগান যুদ্ধের রাজনৈতিক নিষ্পত্তি চায় এবং তালেবানকে একটি রাজনৈতিক সত্তা হিসাবে স্বীকৃতি দেয়। তালেবান প্রতিনিধিরা সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ঘন ঘন এসব দেশ ভ্রমণ করেছেন।

এ মূল আঞ্চলিক খেলোয়াড়দের মধ্যে একত্রিতকরণের লক্ষ্য আফগানিস্তানকে গৃহযুদ্ধের পেছনে পড়া রোধ করা, যা এসব দেশের জন্য হুমকির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। সূত্র : দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
নয়ন ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৫:১১ এএম says : 0
আফগানে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য সম্মিলিত উদ্যোগের প্রয়োজন
Total Reply(0)
Shafi Sadi ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:২৬ পিএম says : 0
সবাই শুধু ধৈর্য ধরুন দেখবেন একদিন আফগানিস্তানের মাটিতে ইসলামি হুকুমত কায়েম হবে ইনশাআল্লাহ ইনশাআল্লাহ ইনশাআল্লাহ ইনশাআল্লাহ ইনশাআল্লাহ
Total Reply(0)
তানবীর ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:২৯ পিএম says : 0
এই শান্তি আলোচনায় তাদের সাথে তুরস্ককেও রাখা উচিত
Total Reply(0)
আশিক ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:২৯ পিএম says : 0
পাকিস্তান রাশিয়াকে সমার্থন করবে এটাই তো স্বাভাবিক
Total Reply(0)
রোমান ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:৩০ পিএম says : 0
যেখানে চীন থাকবে সেখানে পাকিস্তানও থাকবে
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন