ঢাকা শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭, ২০ রজব ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

অস্ট্রেলিয়া ইস্যুতে নতি স্বীকার ফেসবুকের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৪:০৭ পিএম | আপডেট : ৪:৩৮ পিএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

অস্ট্রেলিয়া সরকারের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে দেশটিতে খবর প্রচার বন্ধ করে দিয়েছিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। যদিও সরকারের কাছে নতি স্বীকার করে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে বিশ্বের সর্বোচ্চ ব্যবহৃত সামাজিক মাধ্যম কর্তৃপক্ষ।

অস্ট্রেলিয়ায় প্রস্তাবিত একটি নতুন আইনকে কেন্দ্র করে সরকারের সঙ্গে বিরোধের জেরে গত বৃহস্পতিবার দেশটিতে নিউজ কনটেন্ট ব্লক করে দেয় ফেসবুক। তবে সমঝোতায় আশ্বস্ত হয়ে ফেসবুকও অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকদের জন্য নিউজ কনটেন্ট দেখার বাধা তুলে নিচ্ছে।

প্রস্তাবিত আইনটিতে নিউজ কনটেন্ট প্রকাশের জন্য অস্ট্রেলিয়ার সংশ্লিষ্ট সংবাদমাধ্যম প্রতিষ্ঠানকে অর্থ দিতে ফেসবুকের মতো প্রতিষ্ঠানের বাধ্যবাধকতার বিধান রয়েছে। আইনটির বিরোধিতা করছে ফেসবুক। অস্ট্রেলিয়ার বাজার প্রতিযোগিতা নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠানের ভাষ্য, প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো ও প্রকাশকদের মুনাফায় লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড প্রতিষ্ঠা করাই এই আইনের লক্ষ্য। অস্ট্রেলিয়া সরকারের পক্ষ থেকেও একই কথা বলা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার অর্থমন্ত্রী জোস ফ্রাইডেনবার্গ এক বিবৃতিতে বলেন, প্রস্তাবিত আইনটিতে সংশোধনী আনা হবে। তিনি বলেন, আগামী কয়েক দিনের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ায় ফেসবুকে নিউজ কনটেন্টের ওপর থাকা ব্লক উঠে যাবে। ব্লক তুলে নিলে অস্ট্রেলিয়ার ব্যবহারকারীরা ফেসবুকে সংবাদ আধেয় দেখতে পাবেন। শেয়ার করতে পারবেন। এ ছাড়া অস্ট্রেলিয়ার স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো তাদের ফেসবুক পেজে খবর শেয়ার বা লিংক পোস্ট করতে পারবে।

ফেসবুকের পক্ষ থেকেও বলা হয়েছে, তারা অস্ট্রেলিয়ায় নিউজ কনটেন্ট দেখাবে। তাদের ভাষ্য, তারা একটি সমঝোতায় উপনীত হয়েছে। এই সমঝোতার আলোকে তারা তাদের পছন্দের ভিত্তিতে সংবাদ প্রকাশকদের সহায়তা দিতে পারবে। এই সংবাদ প্রকাশকদের মধ্যে ছোট ও স্থানীয় প্রকাশকেরা থাকবেন।

যদিও ফেসবুকের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার ঠিক কেমন সমঝোতা হয়েছে তার বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি। এর আগে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি সরকারের সঙ্গে টানাপোড়েনের জেরে অস্ট্রেলিয়ায় সংবাদ দেখা বা শেয়ার করার সুযোগ বন্ধ করে দেয় ফেসবুক। মুনাফার ভাগ গণমাধ্যমকে দেওয়ার আইন নিয়ে ফেসবুকের সঙ্গে এ জটিলতার সৃষ্টি হয়। সূত্র: বিবিসি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন