বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দেশের সবকিছু সচল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ কেন : মানববন্ধনে ভিপি নুর

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০০ এএম

দেশের সবকিছু যখন সচল রয়েছে তখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন বন্ধ রাখা হয়েছে সরকারের কাছে সেই প্রশ্ন রেখেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর। তিনি বলেন, সরকারি দলের প্রত্যেকটি সমাবেশে হাজার হাজার মানুষের সমাগম হয়। এমন প্রতিকূল অবস্থার মধ্যেও সারাদেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে, সেখানে কি করোনা সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা নেই। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে একাডেমিক পরীক্ষা চলছিল, কিন্তুশিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণায় সব বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। দেশের সব কিছু যেখানে সচল রয়েছে, সেখানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন বন্ধ রয়েছে সেটি আমার বোধগম্য নয়। দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি জানান তিনি।

গতকাল মঙ্গলবার দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ছাত্র অধিকার পরিষদ আয়োজিত সচিবালয় ঘেরাও কর্মসূচি শেষে ভিপি নুর এসব কথা বলেন। সচিবালয়ের সামনে কর্মসূচি পালন করার কারণ সম্পর্কে সমাবেশে নুরুল হক নুর বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে সচিবালয়ে এসেছি আপনাদের কাছে ছাত্র সমাজের দাবি পৌঁছে দিতে। কারণ আমরা জানি আপনারা এসি রুমের মধ্যে থেকে ছাত্র সমাজের বাস্তবতা উপলব্ধি করতে পারেন না। সেজন্য আপনাদের দরজায় এসে কানের দ্বারপ্রান্তে আমাদের দাবিগুলো শুনিয়ে দিয়ে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, ছাত্ররা যখন নিজেরাই হলে প্রবেশ করছে, তখন শিক্ষামন্ত্রী তড়িগড়ি করে সংবাদ সম্মেলন করে সব পরীক্ষা বন্ধ করে দিয়েছেন। শিক্ষার্থীরা শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করছে। দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে। নুর বলেন, কাদের মির্জা ও আওয়ামী লীগের সার্কাসের রাজনীতির শিকার হয়ে একজন সাংবাদিক নিহত হয়েছেন। আমরা এ ঘটনার প্রতিবাদে কর্মসূচি পালন করেছি।

পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন বলেন, সরকার মনে করছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন তাদের জন্য হুমকির কারণ হতে পারে। যে কারণে চক্রান্তের নীলনকশা অনুযায়ী ক্যাম্পাস বন্ধ রাখা হচ্ছে। তিনি বলেন, এই সরকার কোনো কিছুকেই ভয় পায় না, তারা শুধু ছাত্র আন্দোলনকে ভয় পায়। ছাত্র আন্দোলন দমিয়ে রাখার জন্যই ক্যাম্পাস খুলে দেয়া হচ্ছে না। বক্তারা আরও বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক রাজনীতি ধবংসের পর সরকার শিক্ষা ব্যবস্থা ধবংস করতে চায়। সমস্ত কিছু চলছে, শুধু বিশ্ববিদ্যালয়গুলো চলছে না।
পূর্বঘোষণা অনুযায়ী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে শাহবাগে কর্মসূচি থাকলেও জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে সংগঠনটি। মানববন্ধনের শেষ পর্যায়ে সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক এবং ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর ডাক দেন শিক্ষা মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ের। পরে সেদিকে মিছিল নিয়ে যান তিনি এবং সচিবালয়ের ২ নম্বর গেটের পাশে ১৫ মিনিট সমাবেশ করেন। সমাবেশে ডাকসুর সাবেক সমাজসেবা বিষয়ক সম্পদক আকতার, ছাত্র অধিকার পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খান, যুগ্ম আহ্বায়ক আবু হানিফসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
মোঃ দুলাল মিয়া ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৪:৩৬ এএম says : 0
ছাত্র ছাত্রীরা আজ অধঃপতন কেন সবাই ভালো করে জানেন,মা বাবার কথা মানেনা তাহারা রাজনীতি করে। ভাল কথা রাজনীতির ও দরকার আছে কিন্তু লেখা পড়া না করে কিসের রাজনীতি,এরা বর্তমানে নিজের ভবিষ্যত্ চিন্তা করে না পাটি করে কয়েক ভাগে বিভক্ত এরা ভবিষ্যত্ চিন্তা করে না। এরা বুজে না এদেরকে কারা বিভক্ত করে রাখে।যদি তাদের মাথায় আসে তাঁরা অবশ্যিই ঐক্যবদ্ধ হবে।যে পযন্ত সবাই ঐক্য না হবে। যতদিন যাচ্ছে তাঁরা ধ্বংস হতে চলেছে। তাই এখনে সময় আছে তোমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে যাও দেখে তোমাদের কথায় রাষ্ট্র চলতে হবে।আমার দৃষ্টিতে ছাত্র ছাত্রীরা সরকারের কথা শুনে বোকার সরগে বাস করতেছে। সোনার বাংলার ছাত্র ছাত্রী এক হও ভবিষ্যত গড়ে নেও।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন