ঢাকা শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮, ০৩ রমজান ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ইমো প্রতারণা করে প্রবাসীদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিতো তারা

লালপুর (নাটোর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৮:৩৫ পিএম | আপডেট : ৮:৩৬ পিএম, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

দীর্ঘদিন থেকে অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনে ইমো প্রতারণা মাধ্যমে প্রবাসে বসবাসকারী বাংলাদেশীদের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিতো নাটোরের লালপুর উপজেলার বিলমাড়িয়া গ্রামের ইমো প্রতারক চক্র। দীর্ঘদিন ধরে এই অপরাধ চলতে থাকলেও তেমন কোন কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় দিনদিন বেড়েই চলেছে এই প্রতারক চক্রের দৌরাত্য। এই প্রতারক চক্রকে প্রতিহত করতে এবার নাটোর জেলা পুলিশ সুপার লিটন কুমার সহার নির্দেশনায় লালপুর থানা পুলিশ অভিযান শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ ইমো প্রতারক চক্রের দুই সদস্য আরিফ (১৯) ও চঞ্চল (১৮) কে আটক করেছে লালপুর থানা পুলিশ।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ভোরে লালপুর থানার এসআই কৃষ্ণ মোহন সরকার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে উপজেলার বিলমাড়িয়া ইউপির নওপাড়া বাজার হতে তাদের আটক করে। আটককৃত আরিফ বিলমাড়িয়া ইউপির সুলতানপুর গ্রামের আসাদের ছেলে অপরজন চঞ্চল একই এলাকার ফিরোজ আলীর ছেলে।

লালপুর থানার এসআই কৃষ্ণ মোহন সরকার জানান,‘লালপুরের বিলমাড়িয়া ইউনিয়ন বর্তমানে ইমো প্রতারক চক্র খ্যাত এলাকা হিসেবে পরিচিত হয়েছে। এই চক্রটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনে ইমো ব্যবহার করে তাতে পর্ণো ছবি ও ভিডিও সংরক্ষণ করে তা দিয়ে দীর্ঘদিন যাবত প্রবাসে বসবাসকারী বাংলাদেশীদের সঙ্গে প্রতারণা করে তাদের থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিতো।

এ বিষয়ে নাটোর জেলা পুলিশ সুপার লিটন কুমার সহার নির্দেশনায় ও লালপুর থানা ওসি সেলিম রেজার সার্বিক সহযোগিতায় আজ ভোর রাতে অভিযান চালিয়ে এই চক্রের দুই সক্রিয় সদস্য কে আটক করা হয়েছে। এসময় তাদের ব্যবহৃত মোবাইল জব্দ করা হয়েছে।’ তিনি আরো জানান,‘এই অপরাধ কে তিনি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন।’

লালপুর থানার ওসি সেলিম রেজা আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,‘আটককৃতদের বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফী নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দিয়ে বিকেলে নাটোর জেলা কারাগারে প্রেরণের মাধ্যমে অপরাধ নির্মূলের শুভ সূচনা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন