ঢাকা, বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮, ২৯ রমজান ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ঢাবিতে খাটিয়া মিছিল

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে ‘বৃদ্ধাঙ্গুলি’ প্রদর্শন

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১২:০১ এএম

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কারাবন্দি অবস্থায় লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর প্রতিবাদে বাম ছাত্রসংগঠনগুলোর শুক্রবারের মশাল মিছিলে পুলিশের ‘হামলার’ প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন। গতকাল শনিবার বেলা সোয়া ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) সামনে থেকে শুরু হয়। মিছিলটি শাহবাগে জাতীয় গ্রন্থাগারের সামনে গেলে বিক্ষোভকারীদের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়ায় পুলিশ। কর্মসূচি থেকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ঘোষণা করে আইনটির প্রতি ‘বৃদ্ধাঙ্গুলি’ প্রদর্শন করা হয়। অন্যদিকে লেখক মুশতাকসহ সকল গুম-খুন-হত্যার প্রতিবাদে বিকেল ৩টায় রাজু ভাষ্কর্যে খাটিয়া মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিকী খাটিয়া নিয়ে মিছিলে অংশগ্রহণকারীরা ‘আশহাদু আল্লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ’ স্লোগান দেন।

গত শুক্রবার সন্ধ্যায় মশাল মিছিল করতে গেলে শাহবাগে পুলিশের সঙ্গে বামপন্থী ছাত্রসংগঠনগুলোর নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এতে ৩০-৪০ জন নেতাকর্মী আহত হন। এই ঘটনার প্রতিবাদে শনিবার সকালে এই প্রতিবাদ কর্মসূচি দেয় ছাত্র ফেডারেশন। ছাত্র ফেডারেশনের মিছিলটি শাহবাগ ঘুরে টিএসসিতে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে হয় সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন। সমাবেশের শেষ দিকে ‘জনগণের পক্ষ থেকে’ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ঘোষণা করে সংগঠনটি। আইনটিকে কণ্ঠরোধকারী ও নিবর্তনমূলক বলে আখ্যা দিয়ে বিক্ষোভকারীরা আইনটির প্রতি ‘বৃদ্ধাঙ্গুলি’ প্রদর্শন করেন ।

সমাবেশে ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মোস্তফা বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করতে আগামী এক মাস সারা দেশে সব প্রগতিশীল সংগঠনকে সঙ্গে নিয়ে আমরা বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করব। ঢাকায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অভিমুখে আমরা বিক্ষোভ করব। এই আইন বাতিল না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। সব প্রগতিশীল ছাত্রসংগঠনের উদ্যোগে ১ মার্চ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অভিমুখে ও সারা দেশে বিক্ষোভ হবে। ৩ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে বিক্ষোভ। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ সুজন বলেন, গত শুক্রবার পুলিশের হামলায় বিভিন্ন সংগঠনের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। সাতজনের নামে নয়টি অভিযোগ করেছে পুলিশ। এটি কণ্ঠরোধের চেষ্টা ও সংবিধান লঙ্ঘন। আজ সন্ধ্যার মধ্যে আটকদের না ছাড়া হলে যেকোনো ধরনের পরিস্থিতির জন্য শাহবাগ থানার পুলিশ দায়ী থাকবে। হুঁশিয়ার করতে চাই, জনগণের কাতারে না এলে তারা প্রত্যাখ্যাত হবেন। সমাবেশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ছাত্র ফেডারেশনের ঢাকা মহানগর শাখার আহবায়ক সৈকত আরিফ, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান।

ঢাবিতে খাঠিয়া মিছিল: লেখক মুশতাকসহ সকল গুম-খুন-হত্যার প্রতিবাদে রাজধানীতে খাটিয়া মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বেলা ৩টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) রাজু ভাস্কর্যের সামনে ‘বাংলাদেশের জনগণ’ ব্যানারে এসব কর্মসূচি পালন করা হয়। খাটিয়া মিছিলটি রাজু ভাস্কর্যের সামনে থেকে শুরু হয়ে শাহবাগ এলাকা প্রদক্ষিণ করে। এ সময় মিছিলে অংশগ্রহণকারীরা ‘আশহাদু আল্লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ’ বলতে থাকেন। সমাবেশে বক্তারা বলেন, আজ কোনোভাবে কথা বলা যাচ্ছে না। আজকে তো শুধু মুশতাক আহমেদ মরেননি, আমরা-আপনারা সবাই এখন খাটিয়ায় আছি। মুশতাক আহমেদকে জামিন দেয়া হয়নি তাহলে জনগণের স্বাধীনতা কোথায়? তারা আরও বলেন, এ ধরনের পরিস্থিতিতে আমাদের আর ঘরে বসে থাকার সুযোগ নেই। মারধর করে গ্রেফতার করে বাঙালি জনগণকে দমিয়ে রাখা যাবে না। আমরা মনে করি, আজ সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার সময় এসেছে। আজ একত্রিত হয়ে লড়াই করতে হবে। সংক্ষিপ্ত সমাবেশে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ফরিদ আহমেদ, কবি আবু মোস্তফা ও নয়ন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন