শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

তানোরে আমনক্ষেতে পাতাপোড়া রোগের প্রাদুর্ভাব

প্রকাশের সময় : ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

তানোর উপজেলা সংবাদদাতা : রাজশাহীর তানোরের ৭টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভার বিস্তীর্ণ এলাকার রোপা-আমনক্ষেতে পাতা পোড়া রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। এতে ফসলহানীর আশঙ্কায় কৃষকরা দিশেহারা হয়ে পড়লেও কৃষি বিভাগ এখানো নির্বিকার রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে, বিভিন্ন কোম্পানীর কীটনাশক ওষুধ প্রয়োগ করেও এই রোগের প্রাদুর্ভাব ঠেকানো যাচ্ছে না। এক টানা বৃষ্টির পর গত কয়েকদিন থেকে প্রচন্ড রোদ হবার সঙ্গে সঙ্গে ধানক্ষেতে পাতা পোড়া রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। আবার অনেক এলাকায় এই রোগের সঙ্গে নতুন করে দেখা দিয়েছে পচন রোগ। দ্রুত প্রতিরোধের ব্যবস্থা গ্রহণ করা না গেলে অল্প কিছু দিনের মধ্যে এই রোগ মহামারি হয়ে দেখা দিতে পারে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তানোর পৌর সদরের কাশিম বাজার, আকচা, ভদ্রখন্ড, উপজেলার তালন্দ ইউপির কালনা, নারায়নপুর, আড়াদীঘি, পাচন্দর ইউপির কচুয়া, মোহাম্মদপুর, কলমা ইউপির দিব্যস্থলী এলাকার আমনক্ষেতে পাতা পোড়া রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা গেছে। এসব এলাকার ফসলের মাঠ ঘুরে কৃষকের সঙ্গে কথা বললে কৃষকগণ জানান, পাতা পোড়া রোগে আক্রান্ত আমনক্ষেতের ধান গাছের পাতা শুকিয়ে মরে যাচ্ছে ও মাঝে মাঝে ধানগাছ দেবে বসে যাচ্ছে। আর খোলপচা রোগের  আক্রমণে ধানের গোড়া থেকে ওপর পর্যন্ত চারার বিভিন্ন অংশে পচন দেখা দিচ্ছে এতে ধান গাছ প্রায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এ সময় তালন্দ ইউপি এলাকার কৃষক মফিজ উদ্দীন, তরিকুল ইসলাম, শামসুদ্দিন মন্ডল ও আজগর আলীসহ অনেক কৃষক অভিযোগ করে বলেন, তারা কৃষি বিভাগের উপ-সহকারী কর্মকর্তা বা কৃষি কর্মকর্তার কাছে থেকে তেমন কোনো পরামর্শ পাচ্ছেন না উপজেলা কৃষিকর্তা নিজ স্টেশনে না থাকায় সময়মত তার কাছে থেকে কৃষকরা তেমন কোনো পরামর্শ পাচ্ছেন না এমনকি অধিকাংশ সময় তাকে অফিস সময়েও অফিসে গিয়ে তার সাক্ষাত পাচ্ছেন না। এছাড়াও মাঠ পর্যায়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা ফসলের মাঠ পরিদর্শন তো দূরের কথা সময়মত তাদের সাক্ষাত পাচ্ছেন না বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এদিকে অধিকাংশ ক্ষেত্রে কৃষি বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ না পেয়ে কৃষকরা অনুমান নির্ভর বিভিন্ন কোম্পানীর কীটনাশক ওষুধ ধানক্ষেতে প্রয়োগের পর খোলপচার আক্রমণ কিছুটা কমলেও পাতা পোড়া রোগের প্রাদুর্ভাব কমছে না। তারা বিভিন্ন কিটনাশক ব্যবহার করেও ধানক্ষেতে পাতা পোড়া রোগের আক্রমণ ঠেকাতে ব্যর্থ হওয়ায় রোপা-আমনের ফলন নিয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়েছে।
তানোরের সরনজাই ইউপি এলাকার কৃষক আব্দুর রাজ্জাক আলী (৩৫) জানান, হঠাৎ করেই রোপা-আমনক্ষেতে পাতাপোড়া রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। গত কয়েক দিন থেকে কোথাও কোথাও এর সঙ্গে আবার পচন রোগ দেখা দিয়েছে। যে কারণে রোপা-আমনের ফলন নিয়ে এলাকার কৃষকদের মাঝে দেখা দিয়েছে চরম হতাশা। স্থানীয় কৃষকেরা অভিযোগ করে বলেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার নিজ কর্মস্থল থেকে অফিস করার নিয়ম থাকলেও এখানে তা মানা হয়না, কৃষি কর্মকর্তা অফিস করেন রাজশাহী শহর থেকে ফলে বেশিরভাগ সময় তিনি অফিস সময়ে অফিসে আসতে পারেন না ফলে কৃষকরা তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করার সুযোগ পাচ্ছে না।  
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, তানোরে চলতি মৌসুমে রোপা-আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে প্রায় সাড়ে ২১ হাজার হেক্টর। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম  কৃষকদের উত্থাপিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা নিয়মিত আমনক্ষেত পরিদর্শন করে কৃষকদের পরামর্শ দিচ্ছেন। তিনি বলেন, এখানো তার কাছে পাতাপোড়া বা পচন রোগের অভিযোগ নিয়ে কেউ আসেনি, তাতে বোঝা যায় তানোরে এবার এখানো আমনক্ষেতে এসব রোগের পাদুর্ভাব দেখা দেয়নি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন