ঢাকা রোববার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৫ বৈশাখ ১৪২৮, ০৫ রমজান ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ‘মরণফাঁদ’

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:০০ এএম

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল ও সারা দেশে এ আইনে গ্রেফতার সবার মুক্তির দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন একই আইনে আগে গ্রেফতার হওয়া ৭ নাগরিক। গতকাল বিবৃতিতে তারা বলেন, বিগত কয়েক বছরে নিবর্তনমূলক তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইন-২০০৬ এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর নিপীড়নমূলক মামলার শিকার হয়ে আমরা যারা কারাবন্দি ছিলাম; সম্প্রতি কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছি। এই আইনে কারাবন্দি সবার জন্য শঙ্কিত বোধ করছি।

বিবৃতিতে বলা হয়, ঠিক একই সময়ে আমরা প্রচারমাধ্যমে জানতে পেরেছি পুরস্কারপ্রাপ্ত কার্টুনিস্ট কিশোর অভিযোগ করেছেন ২০২০ সালের ২ মে রাতে আটকের পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হেফাজতে তাকে নির্যাতন করা হয়েছে। এমনকি লেখক মুশতাক আহমেদকেও বৈদ্যুতিক শর্ক দেওয়া হয়েছে। নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইন ২০১৩ অনুযায়ী এটি অবশ্যই গুরুতর অপরাধ ও উচ্চ আদালতের নির্দেশনার বরখেলাপ। প্রত্যেক বন্দির মানবাধিকার সুরক্ষার দায়িত্ব রাষ্ট্রের; কিন্তু রাষ্ট্রীয় বাহিনীর হেফাজতে নাগরিকরা মারা যাচ্ছেন এবং নির্মম শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন-নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন।

বিবৃতিদাতারা আরো বলেন, একটি রাষ্ট্রের আইন তৈরি করা হয় নাগরিকদেরকে মানবাধিকার সমুন্নত ও সুরক্ষা প্রদান করার জন্য। কিন্তু ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সুরক্ষা দেওয়ার পরিবর্তে জনগণের জন্য একটি মরণফাঁদ কিংবা নির্যাতনকারীদের অস্ত্র হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। মানুষ হত্যাকারী-জনগণের অর্থ লোপাটকারীরা আইনগত প্রক্রিয়ায় জামিন পেলেও, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় আইনগত প্রক্রিয়ায় জামিন না পাওয়ার সংস্কৃতি শুরু হয়েছে। যখন এমন হয় সেটি আর ন্যায্য আইন বলে পরিগণিত হয় না, হয়ে উঠে গণমানুষের বিরোধী আইন। বর্তমান বাংলাদেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সে রকমই একটি নিবর্তনম‚লক আইন যা গণমানুষের জন্মগত স্বাধীনতা ও অধিকারগুলোকে রহিত করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী-শিক্ষক থেকে শুরু করে শিল্পী-আলোকচিত্রী, সাংবাদিক এমনকি ১৪ বছরের স্কুলপড়ুয়া শিশুও এই আইনের শিকার হয়েছেন এবং হচ্ছেন।

বিবৃতিদাতাদের দাবি : অবিলম্বে মানবাধিকার কেন্দ্রিক নীতি-নৈতিকতা সমুন্নত রেখে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইন-২০০৬ সংস্কার করতে হবে এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করতে হবে। জেলা শহরসহ সারা দেশে এই আইনে গ্রেফতার সবাইকে অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে। বিচার প্রক্রিয়ায় কার্টুনিস্ট কিশোর ও লেখক মুশতাক আহমেদকে নির্যাতনের অভিযোগে অভিযুক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের তদন্ত ও বিচার করতে হবে। লেখক মুশতাক আহমেদকে কারা হেফাজতে নির্যাতন ও মৃত্যুর কারণ যথাযথ, প্রয়োজনীয়, গ্রহণযোগ্য ও স্বাধীন বিচার বিভাগীয় তদন্ত করতে হবে এবং সেই তদন্ত প্রতিবেদন আনুষ্ঠানিকভাবে জনসম্মুখে প্রকাশ করতে হবে।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন আলোকচিত্রী শহিদুল আলম, রাষ্ট্রচিন্তার সদস্য দিদারুল ভুঁইয়া, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজতত্ত¡ বিভাগের শিক্ষক মাইদুল ইসলাম, নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের সংগঠক ও চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্র ফেডারেশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মারুফ হোসেন, নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের সংগঠক ও চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্র ফেডারেশনের রাজনৈতিক শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক আজিউর রহমান আশাফ, আর্কিটেক্ট গোলাম মাহফুজ জোয়ারদার, সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (10)
MA Manik ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:৩৩ এএম says : 0
আমরা আওয়ামী ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই কালো আইন বাতিলে বাধ্য করতে আহ্বান জানাচ্ছি !!!
Total Reply(0)
Jesmin Akhter ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:৩৩ এএম says : 0
নিজেদের ব্যক্তিগত উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য বর্তমান সরকার এ ধরনের ভয়ংকর আইন কার্যকর করে নীরবে বসে আছে। একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবে আমি এ আইন বন্ধের প্রতিবাদ জানাই।অবশ্যই সকলের মত প্রকাশের স্বাধীনতা থাকা উচিত। বর্তমান সরকারের কিসের এত ভয়????
Total Reply(0)
মোঃ সাজেদ আলী ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:৩২ এএম says : 0
একক আইন, মুখ বন্ধ করার আইন, পাকিস্তানের মত স্বভাব দেখানোর আইন, মানা জাবে না, মানি না
Total Reply(0)
Muhammad Masum ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:৩২ এএম says : 0
দেশের প্রশ্নে সবাইকে এক কাতারে ঐক্যবদ্ধভাবে নামতে হবে। তাহলেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হবে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল চাই।
Total Reply(0)
Sheikh Fazlur Rahman ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:৩৪ এএম says : 0
ডিজিটাল নিরাপত্তা নামক আইনের #অর্থ হচ্ছে আওয়ামীলীগের #ধর্মান্ধ বিশ্বাসী গুরুদের বিরুদ্ধে #অবমাননা করলে সর্বোচ্চ #শাস্তি ভোগ করতে হবে !
Total Reply(0)
তৌকির আহমেদ জনি ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:৩৪ এএম says : 0
তাদের নিজের সুবিধা করার জন্যই তো এই আইন করেছে
Total Reply(0)
Md Jasim Uddin ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:৩৪ এএম says : 0
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের নামে কারোর উপর জুলুম করার অধিকার কারোরই নেই। এ আইনের নামে কারাগারে কাউকে হত্যা করার অধিকার কাউকে দেওয়া হয়নি।
Total Reply(0)
Md Zamal ৬ মার্চ, ২০২১, ১২:৩৫ এএম says : 0
এই ডিজিটাল আইন বাংলাদেশের জনগন চাই না, চাই না
Total Reply(0)
মোঃ সমশের আলী ৬ মার্চ, ২০২১, ২:০৭ এএম says : 0
ভিজিটর নিরাপত্তা আইন বাতিল করা জন্য অনুরোধ এতে মানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতা নাই বললেও চলে একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবে বাংলাদেশের যে কোনো বিষয় মত প্রকাশ করবে কারন এদেশ আমাদের সবার। আমাদের পূর্বপুরুষদের মা বোনদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন দেশ।
Total Reply(0)
Mohammed Shah Alam Khan ৬ মার্চ, ২০২১, ১১:০২ এএম says : 0
এখানে যা লিখছি এটা অবশ্যই আমার ব্যাক্তিগত অভিমত। আমার মনেহয় বাংলাদেশে শিক্ষিত মানুষ (পড়া লিখা করে ডিগ্রীধারি মানে শিক্ষিত নয়) নাই বললেই চলে। তাই এদেশে বাক স্বাধীনতার মূল্য সাধারন মানুষের নেই। তাছাড়া বর্তমানে বাকস্বাধীনতাকে যেভাবে ব্যাবহার করা হচ্ছে সেদিকে বিবেচনা করলে বর্তমান আইনের প্রয়োজন আছে। তবে এটাও সত্য যে, ভবিষতে এই আইন আপনা আপনি বাতীল হয়ে যাবে। আল্লাহ্‌ আমাদেরকে জানার ও বুঝার ক্ষমতা দান করুন। আমিন
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন