শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৭ কার্তিক ১৪২৮, ১৫ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মোদিবিরোধীদের দমনে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ, তোলপাড় সামাজিক মাধ্যমে

সোশাল মিডিয়া ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ মার্চ, ২০২১, ৮:৪০ পিএম

মোদিবিরোধী বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে পুলিশ ও সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে সাধারণ মুসল্লিদের ত্রিমুখী সংঘর্ষ এবং চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে চার মুসল্লি নিহতের ঘটনায় তোলপাড় চলছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এই ঘটনায় ব্যাপক ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে নেট দুনিয়ায়। সংঘর্ষের ভিডিও, ছবি ও খবরগুলো মুহুর্তে ভাইরাল হয়ে পড়ে। নিন্দার ঝড় ওঠে জনে জনে।

আজ শুক্রবার জুমার নামাজের পরেই মোদিবিরোধী বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে বায়তুল মোকাররম এলাকায় সাধারণ মুসল্লি ও ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ চলে দীর্ঘ সময় ধরে। জুমার নামাজের মোনাজাত শেষে মুসল্লিদের একাংশ মোদিবিরোধী বিক্ষোভ শুরু করলে মসজিদের উত্তর পাশের ফটক থেকে লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। ব্যাপক সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়।

অন্যদিকে, জুমার নামাজের পর মোদিবিরোধী বিক্ষোভ মিছিল বের করলে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে পুলিশের সাথে মুসল্লিদের সংঘর্ষ ঘটে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন। আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর চারজন মারা যায়।

এদিকে, মোদিবিরোধী বিক্ষোভকারী নিহতের ঘটনায় ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয় সামাজিক মাধ্যমে। সংঘর্ষের পর ফেসবুকে অনেক ধীরগতি চোখে পড়ে। অনেক সময় বন্ধও পাওয়া যায়। এ নিয়ে ক্ষোভ জানাতে দেখা গেছে নেটিজেনদের। মুসল্লি হতাহতের ঘটনায় ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে প্রতিবাদে ফেটে পড়েন অসংখ্য মানুষ।

মোদিবিরোধীদের দমনের বিরুদ্ধে মারজানা আখতার লিখেছেন, ‘‘ক্ষমতার স্বার্থে মোদিকে খুশি করতে নিজ দেশের নাগরিকদের উপর গুলিবর্ষণ? দেখবো এই ক্ষমতা কতদিন থাকে, ক্ষমতা কারো চিরদিন থাকে না, ,,ঐদিন বুঝবেন, সবকিছুর ফল পাবেন। ইনশাআল্লাহ।’’

আজিম মোহাম্মাদ ইউনুস লিখেছেন, ‘‘কতোটা নির্লজ্জ হলে এতো বিরোধিতা থাকা সত্তেও মোদী আসতে পারে? আমি খুশি না, কারণ ওরা বাবরি মসজিদকে ভেঙে রাম মন্দির বানিয়েছেন এবং নিরীহ বাংলাদেশীদের হত্যা করছে তার সাথে আমাদের শাহজালালের পূণ্যভূমিতে সীমান্তে পাশে একটা মসজিদ তৈরিতে বাঁধা দিয়েছে। একজন মুসলিম হিসেবে আমি তাকে ঘৃণা করি।’’

শফিউর রহমান সৌরভ লিখেছেন, ‘‘মসজিদ আল্লাহর ঘর,,সেই আল্লাহর ঘরের দিকে বন্দুক তাক করে গুলি ছুড়তে তাদের হাত একটুও কাপলো না?!
হয়ত তাদের বেশিরভাগ-ই মুসলিম না, কারন আমরা জানি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিয়োগ এ দেশে কিভাবে হয়। কোথায় তাদের সেই তথাকথিত অসাম্প্রদায়িক চেতনা, ইসলাম বিরোধী সেই চেতনা কি কারো ধর্মীয় উপাসনালয়ের ভেতরে হামলার শিক্ষা দেয়? লজ্জিত এবং ভীত আমি, না জানি কোন গজব আল্লাহ দেন যা সবকিছু তছনছ করে দিবে।’’

দাউদ আজিজের মন্তব্য, ‘‘ইয়া আল্লাহ হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে আজকের এই দিনে আমাদের মুসলিম দেশে আমরা মুসলমানরা এই স্বৈরশাসকের হাতে নির্যাতিত আল্লাহ আপনার কাছে পানা চাই। আপনি আমাদের সাহায্য করুন আপনার গায়েবী সাহায্য করুন আমীন।’’

রুবেল আহমেদ লিখেছেন, ‘‘একজন মুসলিম হিসাবে আল্লাহর কাছে কি জবাব দিবেন আমার আঃলীগ করা ভাইয়েরা, পুলিশ ভাইয়েরা তারা কি কবরে যাবেন না। সারাজীবন কি ক্ষমতায় থাকতে পারবেন। তাদের কি মরনের ভয় হয়না। বিচারগুলো মহান রবের নিকট সপে রাখলাম। উনি উত্তম বিচারক।’’

জহিরুল ইসলাম লিখেছেন, ‘‘ইন্নালিল্লাহ স্বাধীনতার ৫০ বছর পরে এসেও মুসলিমদেরকে স্বাধীনতার প্রতিপক্ষ বানিয়ে নির্বিচারে গুলি করে নিহত ও আহত করছো। মসজিদ এবাদত এর স্থান সেখানে তোমরা গুলি করো মনে রেখো তোমাদের তকদীর খারাপ হয়ে গেছে এইজন্যই মসজিদের ভিতরে নিরীহ মানুষদেরকে গুলি করতে পেরেছ তার বিচার একদিন হবে ইনশাআল্লাহ।’’

মো: তালেব উল্লাহ স্বপন লিখেছেন, ‘‘বাংলাদেশে মোদীর আগমনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে "আওয়ামী লীগ ", আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক ভবিষ্যত । আওয়ামী লীগকে খুব সহজে ইসলাম বিরোধী, মুসলিম বিরোধী, দেশ বিরোধী অথবা ইসলাম ও মুসলিমদের ব্যাপারে উদাসীন/অসচেতন/ অজ্ঞ দল হিসেবে উপস্থাপন করা যাবে । যদিও এটা এখন তাদের খুব একটা ক্ষতি করতে পারবে না যেহেতু ওরা ক্ষমতা দখল করে আছে (অবৈধভাবে)। কিন্তু পরবর্তীতে এগুলো ওভারকাম করা তাদের জন্য কঠিন হবে। তাছাড়া মুসলিমরা এখন মুসলিম হিসেবে রাজনৈতিকভাবে বেশি সচেতন হচ্ছে।’’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন