ঢাকা, শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ২৪ বৈশাখ ১৪২৮, ২৪ রমজান ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

দক্ষিণাঞ্চলে সবজির দাম কমছে পেয়াজ গোল আলুর বাজার স্থিতিশীল

টিসিবি’র পন্য বিক্রি কার্যক্রম অব্যাহত থাকলেও সিমিত

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৮ এপ্রিল, ২০২১, ৫:৩৩ পিএম

রমজানের শুরুতে করোনার দ্বিতীয় দফার লকডাউনে সরবারহ ঘটতিতে দক্ষিণাঞ্চল যুড়ে সবজির বাজারের হাহাকার কাটতে শুরু করেছে। পেয়াঁজ ও গোল অলুর বাজারও স্থিতিশীল রয়েছে। বেগুন, টমেটো, শশা ও লেবু সহ রোজার মাসের বেশী চাহিদার সবজির দাম শণিবার থেকে কিছুটা নি¤œমুখি প্রবনতা লক্ষ করা গেছে। তবে এখনো দেশের পশ্চিম ও উত্তরাঞ্চল থেকে দকিষণাঞ্চলে পণ্য পরিবহন ব্যবস্থা সম্পূর্ণ স্বাভাবিক হয়নি। পরিবহন ব্যবস্থা স্বভাবিক হলে দাম অরো কমবে বলে পাইকারী আড়ৎদরগন জানিয়েছেন।
বরিশালের সবজির আড়তদারগন আশা করছেন দু-একদিনের মধ্যে সরবারহ আরো বাড়বে। ফলে পরিস্থিতিও আরো অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে আসবে। তবে এখনো বরিশাল সহ সমগ্র দক্ষিণাঞ্চলেই পাইকারী ও খুচরা পর্যায়ে সবজীর দামে বিস্তর ব্যবধান রয়েছে। শণিবার বরিশালের পাইকারী বাজারে প্রতি কেজি টমেটো ২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রী হলেও খুচর পর্যায়ে তা ছিল ৪০-৪৫ টাকা। রমজানের শুরুতে বেগুন ১২০-১৩০ টাকা কেজি দরেও বিক্রী হয়েছে। শণিবার খোলা বাজারে তা ৬৫-৭০ টাকায় নেমে এলেও পাইকারী পর্যায়ে ছিল ৪০-৪৫ টাকা কেজি। শশার কেজিও শণিবারে পাইকারী পর্যায়ে ৪০ টকায় থাকলেও খুচরা বাজারে বিক্রী হয়েছে ৬০-৭০ টাকা কেজি। পটল বিক্রী হচ্ছে পাইকারী ২৫ টাকা কেজি। খুচরা পর্যায়ে ৩৫ টাকা। অন্যান্য সবজির দামও ধীরে ধীরে কমে আসছে।
তবে এবার রমজানে পেয়াঁজ ও গোল আলুর দাম যথেষ্ঠ স্থিতিশীল রয়েছে। গোল আলু খুচরা পর্যায়ে ১৮ টাকা কেজি। পাইকারী ১৫-১৬ টাকা। আর আমদানীকৃত পেয়াঁজ বিক্রী হচ্ছে ২৫-৩০ টাকা কেজি। দেশী পেয়াঁজের কেজী ৩৫ টাকা।
টিসিবি ভ্রাম্যমান ট্রাকের মাধ্যমে খোলা বাজারে চিনি, পেয়াঁজ, সয়াবিন তেল, ছোলাবুট, মুসুর ডাল ও খেজুর বিক্রী কার্যক্রম অব্যাহত রাখলেও বরিশাল মহানগরীতে মাত্র ৮টি ও জেলা সদরগুলোতে ২টি করে ট্রাক থাকায় তা ক্রেতাদের চাহিদার একÑদশমাংশও পুরন করতে পারছে না। এমনকি প্রতিটি জেলার মাত্র দুটি উপজেলাতে টিসিবি’র সিমিত কিছু পণ্য বিক্রী হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন