ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০৪ জৈষ্ঠ্য ১৪২৮, ০৫ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে হেফাজত নেতাদের বৈঠক

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৫৭ পিএম

ফাইল ছবি


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে বৈঠক করছেন হেফাজতে ইসলামের শীর্ষ নেতারা। সোমবার (১৯ এপ্রিল) রাত ১০টার দিকে হেফাজতের অন্তত ১০ জন শীর্ষ নেতা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ধানমন্ডির বাসায় বৈঠকে বসেন। রাত ১১ টার দিকে বৈঠক শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় হেফাজত নেতারা কোন কথা বলতে রাজি হননি।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাত ১০টার দিকে হেফাজতের শীর্ষ নেতারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসায় ঢোকেন। এসময় ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে অংশ নেওয়া হেফাজতের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে ছিলেন দলটির নায়েবে আমীর মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজী, হেফাজতের মহাসচিব নূরুল ইসলাম জিহাদী, মামুনুল হকের ভাই বেফাকের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান (দেওনার পীর), মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াজী প্রমুখ।

এর আগে সোমবার (১৯ এপ্রিল) দুপুরে সরকারের একটি গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে হেফাজতের পাঁচ শীর্ষ নেতা বৈঠক করেন। হেফাজতের পক্ষ থেকে বৈঠকে নেতৃত্ব দেন সংগঠনটির মহাসচিব মাওলানা নূরুল ইসলাম জিহাদী।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে এখন পর্যন্ত রাজধানী ঢাকাতেই হেফাজতের মধ্যম ও শীর্ষ নেতৃবৃন্দের মধ্যে ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সর্বশেষ রবিবার (১৮ এপ্রিল) মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে গ্রেফতার করা হয় হেফাজত নেতা মাওলানা মামুনুল হককে। সোমবার তাকে ৭ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে গোয়েন্দা পুলিশ। এর আগে হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সভাপতি জুনায়েদ আল হাবিবসহ আরও কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
মোঃ+দুলাল+মিয়া ২০ এপ্রিল, ২০২১, ১:১৯ এএম says : 0
হেফাজত একটি ইসলামিক সংগঠন ।তাহারা একজন সরকারি মন্ত্রীর সাথে কি কারনে বসবেন। জনগণ তাদের সাথে ঐক্যবদ্ধ আছে।ঈদের পরে সংগ্রাম গড়ে তুলুন এই সমস্ত ইহুদিবাদের সাথে কি দরকার আছে ছোট হওয়ার।
Total Reply(1)
২০ এপ্রিল, ২০২১, ৮:৪০ এএম says : 0
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ২০ এপ্রিল, ২০২১, ১:৩৮ এএম says : 0
মাননীয় প্রধান মন্ত্রীকে কওমী জননী ঘোষণা করেছিলেন হেফাজতের লক্ষ আলেমদের সামনে ঐতিহাসিক সত্যি। বাংলাদেশের অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজত শক্তিশালী হয়েছে ধন্যবাদ। দেশীয় আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বাংলাদেশে রক্তক্ষয়ী সংঘাতময় পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে কারা চায়?বিভিন্ন কৌশল আমরা দেখছি। ইতিমধ্যে মোদী আগমনের মাধ্যমে মৃত্যুর মধ্যেদিয়ে জটিল পরিস্থিতি সৃষ্টি হলো কেন? ইংল‍্যান্তে ট্রাম্পের আগমনেরতীব্র প্রতিবাদ মুখর পরিস্থিতিতে মানুষের মৃত্যুর সংবাদ হয়নি। গুরুত্বপূর্ণ স্থান ঢাকায় মৃত্যুর সংবাদহয়নি চট্টগ্রামের হেফাজতের মৃত্যুর মধ্যেদিয়ে পরিবেশ খারাপ হলো কেন? ব্রামন বাড়িয়াতে হেফাজতের মৃত্যুর পর নজির বিহীন ধ্বংসযজ্ঞ হলো কেন? রাষ্ট্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার বিভিন্ন মিডিয়ায় ডিজিটাল লাইফ প্রচারণা চিত্র কিছুইতো জাতির সামনে প্রকশ‍্যে নেই ছিলনা কেন?পরবর্তীকালে প্রিন্ট মিডিয়ায় বিরাট শিরোনাম হেফাজতের তান্ডব প্রকাশীত হলো ইত্যাদি ইত্যাদি। এই মুহুর্তে বিশ্ব পরিস্থিতি নাজুক ভাইরাস গজব আজাবের মাঝেই সরকারের কঠোর হওয়া ছাড়া পথ খোলা ছিলনা। মোদী আগমনে আইন শৃংখলা বাহিনী ধৈর্যের মধ্যে থাকতো মৃত্যুর মত ঘটনায় সৃষ্টি হতোনা। আওয়ামী লীগকে পরামর্শ দেওয়া আইন শৃংখলা বাহিনী কে পরামর্শ দেওয়ার ক্ষুদ্রতম যোগ্যতা নেই আমার। এই মুহুর্তে বাংলাদেশের মানুষ শান্তি চায়। সতিনের সন্তান দিয়ে সাপ ধরানোর গভীর খেলা শুরু হয়েছে। মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয় বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল। জাতীয় আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র থাকতে পারে। অর্থনৈতিক শক্তির দুষমনদের বিরুদ্ধে সজাগ থাকতে হবেআমাদের। স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বের অতদ্র প্রহরী ভিশনারী লিডারশিপ বঙ্গবন্ধুর কন‍্যা সাথে শান্তিপূর্ণ পরিবেশের জন‍্য সিদ্ধান্ত নিন। দেশের সব্বোউচ্ছ আইন শৃংখলা বাহিনী গঠন মুলক সিদ্ধান্ত নিন। শান্তির পক্ষে মানুষের সংখ্যা বেশী। হেফাজতের নেতৃত্ব নেতৃবৃন্দ আপনারা কওমী অঙ্গনের আলেমদের বাংলাদেশের মানুষ শ্রদ্ধা সম্মান করেন আলেম হাফেজ হুজুর বলেই। সরকারের নেতৃত্ব কে চ‍্যালেঞ্জ সরকারের গদি নিয়ে টান বিভিন্ন বক্তব্যে জোশে হুশহারা হয়ে সরকারের প্রতিপক্ষ হয়েছেন। আপনি আমি সবাই জানি পকৃত ক্ষমতার কে আল্লাহ। আপনাদের কওমী সমাবেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে ছিল আল্লাহ যদি ক্ষমতাই আনেন আছি"""। পরিস্থিতি এখনো সমাদর করার পরিবেশ আছে। আমার ক্ষুদ্র জ্ঞানে বঙ্গবন্ধুর কন‍্যার মাঝেই শক্তিশালী বাংলাদেশ অর্থনৈতিক পরাশক্তির স্বপ্ন দেখী বলেই হাজারো হাজার মতামতের কলামে দীর্ঘদিন লিখে যাচ্ছি। শান্তির পক্ষে কখনো চরমশক্রর বিরুদ্ধে ক্ষুদ্র বাজে শব্দ ছিলনা। মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় ঐক্যবদ্ধ হয়ে শান্তির জন্যে গঠন মুলক সিদ্ধান্ত নিন। দু পক্ষের উপযুক্ত যোগ্যতা সম্পন্ন ব‍্যাক্তিরা বসুন সমদান আসবে। আমার ক্ষুদ্র মতাদর্শে ভুল হলে আগাম ক্ষমাপ্রার্থী। আল্লাহ্ আমাদের কে যার যার অবস্থান থেকে দেশের পক্ষে শান্তিপূর্ণ পরিবেশের পক্ষে কাজ করার তৌফিক দিক। আমিন
Total Reply(0)
মিনহাজ ২০ এপ্রিল, ২০২১, ১:৫৬ এএম says : 0
হেফাজতে ইসলাম হচ্ছে একটি অরাজনৈতিক সংগঠন তারা শুধু তারা কেন বাংলাদেশের সকল মুসলমান সবাই আমরা হেফাজতে ইসলাম এই আন্দোলন কোন সরকার কে খমতায় বসানো বা নামানুর জন্য নয় এটা ইমানি আন্দোলন কিন্তু সরকার এটাকে নিজের প্রতিপক্ক ভেবে নির্মুল করতে চাইছে আমি সরকার কে বলবো এই বিষয় টা যাতে আর লম্বা নাহয় এবং গ্রেফতার কৃত আলেম উলামা দের কে জেন অতিসত্বর মুক্তি দেওয়া হয়
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন