ঢাকা, বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮, ২৯ রমজান ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রণোদনার প্রথম কিস্তি ছাড়

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম

করোনা মহামারিকালে চিকিৎসকদের জন্য ঘোষিত প্রণোদনার প্রথম ভাগ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ছাড় দেয়া হয়েছে। এজন্য ৯ কোটি ২০ লাখ ৯০ হাজার ৪৩০ টাকা ব্যয়ের সম্মতি দেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের নন কমিউনিকেবল ডিজিজের লাইন ডিরেক্টর প্রফেসর রোবেদ আমীন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
গতকাল বুধবার স্বাস্থ্য বুলেটিনে তিনি এই তথ্য জানান। তিনি বলেন, স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রণোদনার টাকার প্রথম ভাগ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ছাড় দেয়া হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে ১৪টি সরকারি হাসপাতালে কর্মরত কর্মীরা টাকা পাবেন। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য সরকারি হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রণোদনার আওতায় আনা হবে। এ বিষয়ে সবাইকে ধৈর্য ধরার আহ্বান জানান তিনি।
জানা গেছে, করোনা রোগীদের সেবায় নিয়োজিত ছিলেন এমন ১৭৭৩ জন স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন দুই মাসের বিশেষ সম্মানী। প্রাথমিকভাবে দেশের ১৪টি হাসপাতালে কর্মরতদের এ সম্মানী দেয়ার ব্যবস্থা নিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। সম্প্রতি মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। দেশের ১৪টি হাসপাতালের ৮০২ চিকিৎসক, ৪৪৫ নার্স এবং ৫২৬ অন্য স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন। এজন্য ৯ কোটি ২০ লাখ ৯০ হাজার ৪৩০ টাকা ব্যয়ের সম্মতি দেওয়া হয়েছে।
জানা গেছে, চলতি অর্থবছরের (২০২০-২১) বাজেটে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিবালয় অংশে সম্মানী খাতে বরাদ্দ ১০০ কোটি টাকার অব্যয়িত অংশ থেকে ১৪টি প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ৯ কোটি ২০ লাখ ৯০ হাজার ৪৩০ টাকা দিতে সম্মতি দেওয়া হয়েছে। ২৯ মার্চ এ বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের চিফ অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফিন্যান্স অফিসারকে এ অর্থ দিতে বলা হয়েছে।
যেসব প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে সেগুলো হলো- বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি), ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল চট্টগ্রাম, ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল ফেনী, ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল কক্সবাজার, ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল নোয়াখালী, ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ১০০ শয্যাবিশিষ্ট রেলওয়ে কোভিড-১৯ আইসোলেশন হাসপাতাল চট্টগ্রাম, বন্দর স্বাস্থ্য কর্মকর্তার কার্যালয় চট্টগ্রাম, জেনারেল হাসপাতাল রাঙ্গামাটি, সদর হাসপাতাল বান্দরবান, জেলা সদর হাসপাতাল লক্ষ্মীপুর, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টার ফিল্ড হাসপাতাল, লালমনিরহাট ১০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল।
এর মধ্যে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসের (বিআইটিআইডি) ৫৪ চিকিৎসক, ২৭ নার্স এবং ২৬ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ৬২ লাখ এক হাজার ৭৮০ টাকা। ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল চট্টগ্রামের ১৩৩ চিকিৎসক, ১৮২ নার্স এবং ৬৬ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ১ কোটি ৯৯ লাখ ৭৫ হাজার ২০ টাকা। ফেনীর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের ৬৬ চিকিৎসক, ৭১ নার্স, ৭০ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ১ কোটি ১১ লাখ ২৭ হাজার ৯৮০ টাকা। কক্সবাজার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের ৩৯ চিকিৎসক এবং ৪০ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ৪৫ লাখ ৭৬ হাজার ২২০ টাকা।
নোয়াখালী ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের ৪৫ চিকিৎসক, ৪৪ নার্স এবং ৪১ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ৬০ লাখ ২৮ হাজার ৬২০ টাকা। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের ৫১ চিকিৎসক, ৬১ নার্স পাবেন ৫০ লাখ ৮৪ হাজার ৮৪০ টাকা। চট্টগ্রামের ১০০ শয্যাবিশিষ্ট রেলওয়ে কোভিড-১৯ আইসোলেশন হাসপাতালের ১১ চিকিৎসক, ৯ নার্স এবং ১৩ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৮৮০ টাকা। চট্টগ্রাম বন্দর স্বাস্থ্য কর্মকর্তার কার্যালয়ের ১৩ চিকিৎসক, ২ নার্স এবং ১৭ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ১৪ লাখ ৯১ হাজার ৫৪০ টাকা।
রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালে ১৬ চিকিৎসক, ৩২ নার্স এবং ২৪ অন্য স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ৩২ লাখ ৫৮ হাজার ২৩০ টাকা। বান্দরবান সদর হাসপাতালের ১৬ জন চিকিৎসক এবং ৩৮ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ২২ লাখ ১৪ হাজার ৮৮০ টাকা। লক্ষীপুর জেলা সদর হাসপাতালের ১৩ চিকিৎসক, ১৭ নার্স এবং ১৩ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ২১ লাখ ২২ হাজার ২৬০ টাকা।
খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১৫০ চিকিৎসক এবং ৭১ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ১ কোটি ৩১ লাখ ৭৭ হাজার ৩০০ টাকা।
বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টার ফিল্ড হাসপাতালে কাজ করেছেন এমন ১৬৯ চিকিৎসক এবং ১২ স্বাস্থ্যকর্মী পাবেন ৯৪ লাখ ৫৫ হাজার ২৬০ টাকা। লালমনিরহাট ১০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালের ২৬ চিকিৎসক, ৬১ নার্স এবং ৩৪ অন্য কর্মী পাবেন ৬০ লাখ ৬৬ হাজার ৬২০ টাকা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন