ঢাকা, রোববার, ২০ জুন ২০২১, ০৬ আষাঢ় ১৪২৮, ০৮ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

দিল্লিতে মিলছে না আগুন, লাশ ছিঁড়ছে কুকুর

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১০:২১ এএম | আপডেট : ২:১৭ পিএম, ২৯ এপ্রিল, ২০২১

ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেও আগুন মিলছে না। তাই কেউ কেউ সঙ্গে নিয়ে এসেছেন ফ্রিজ আর বরফ। দীর্ঘ লাইনে লাশের পচন ধরেছে তাই বরপ চাপা দিয়ে রাখা হয়েছে অনেক লাশ। আবার কুকুরে ছিঁড়ছে এসব বেওয়ারিশ লাশ।

ভারতে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে এক কোটি ৮৩ লাখ ৬৮ হাজার ৯৬ জন এবং মারা গেছে দুই লাখ চার হাজার ৮১২ জন।

দেশটিতে গত ২৭ এপ্রিল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে তিন লাখ ৬২ হাজার ৯০২ জন এবং মারা গেছে তিন হাজার ২৮৫ জন। এর আগের দিন ২৬ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হয়েছে তিন লাখ ১৯ হাজার ৪৩৫ জন এবং মারা গেছে দুই হাজার ৭৬৪ জন।

গতকাল বুধবার দিল্লিতে করোনায় মৃতের সংখ্যা সাতশোতে পৌঁছে গেছে। আশঙ্কা, সংখ্যাটা শিগগিরই হাজার ছাড়িয়ে যাবে। শহরের বিভিন্ন শ্মশানের বাইরে রাস্তায় টোকেন নিয়ে মরদেহের দীর্ঘ লাইন। ২০ ঘণ্টা কেটে যাচ্ছে আগুন পেতে। লাশ ছিঁড়ছে কুকুরে।

শ্মশানের দরজায় দরজায় ঘুরে জায়গা না পেয়ে বরফ চাপা দিয়ে ৪৮ ঘণ্টাও বাড়িতে শব রেখে দিচ্ছেন স্বজনরা। কুকুরের দেহ পোঁতার জায়গা ব্যবহার করা হচ্ছে মৃত মানুষকে পোড়ানোর জন্য।

দিল্লিবাসীর প্রশ্ন, এ যদি নরক না হয়, তা হলে নরক ঠিক কী? দিল্লির সুভাষনগর শ্মশানে টিনের চালের নীচে সারি সারি চিতা জ্বলছে। উড়ছে ছাই।

এ দৃশ্য অবশ্য নতুন নয়। কিন্তু সেই ছাই উড়ে পড়ছে পাশের যে চাতালে, সেই চাতাল ধরেই এখন মরদেহের সর্পিল রেখা। এক ঝলক তাকালেই মাচার সঙ্গে দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখা অন্তত ১৫-২০ জনের দেহ চোখে পড়ে।

পাশের উঁচু বাঁধানো জায়গায় ঘি এবং প্রয়োজনীয় সামগ্রী নিয়ে বসে আছেন পরিজনরা। এক দু’ঘণ্টা নয়, ১৬ থেকে ২০ ঘণ্টাও বসে আছেন কেউ কেউ।

যে প্লাস্টিকের ব্যাগে মরদেহ মোড়া রয়েছে, তার উপর নাম, নম্বর লেখা। হাতছাড়া হওয়ার ভয় নেই। তাই একটানা বসে না থেকে পোড়া দেহের গন্ধ এবং ধোঁয়া থেকে বেরিয়ে মাঝেমধ্যে বাইরে ঘুরে আসছেন অনেকে।

শুধু একটি শ্মশানের ছবি নয় এটি। দক্ষিণ দিল্লির বিকাশ নগরে সোমবার রাতে ৩৫ বছর বয়সী এক করোনা রোগীকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল দীনদয়াল হাসপাতালে।

যথারীতি শয্যা না পেয়ে ফিরে এসে বাড়িতেই রাখা হয়। মাঝরাতে শ্বাসকষ্টে মারা যান তিনি। শেষ রাতে নিকটবর্তী রণহৌলা শ্মশানে নিয়ে গিয়ে দেখা যায়, গেট বন্ধ।

অথচ তখনো বাইরে ছয় জনের মরদেহের লাইন। জানা যায়, টোকেন দেওয়া হয়েছে। কখন ডাক আসবে বলা যাচ্ছে না। বাড়ি ফিরে বরফবন্দি করে রাখা হয় মরদেহ।

সুভাষনগরের শ্মশানে করোনায় মৃত বাবার দেহ নিয়ে গিয়েছিলেন ৪০ বছর বয়সী মনমীত সিং। তিনি বলেন, অ্যাম্বুল্যান্স, গাড়ির ভিড় কাটিয়ে শ্মশানে ঢুকতে যাবেন, তার আগেই রাস্তা আটকালেন এক কর্মী। জানিয়ে দিলেন, আর দেহ নেওয়া যাবে না। কারণ দাহ করার জায়গা এবং কাঠ নেই। আর সিএনজি চুল্লিতে একসঙ্গে দুজনের বেশি দেহ দাহ করা যায় না। তাতেও একেকটি দেহের পেছনে কমপক্ষে ৯০ মিনিট সময় লাগবে।

এরই মধ্যে লাইনে ২৪ জনের দেহ রয়েছে। তাই অন্য কোথাও যেতে হবে তাকে। এর পর পশ্চিম বিহার এলাকার একটি শ্মশানে গিয়ে বাবাকে দাহ করেন তিনি।

মনমীত আরো বলেন, সরকার হাসপাতালে অক্সিজেন দিতে পারছে না। অন্তত শ্মশানে জায়গা তো দিক, যাতে পৃথিবী থেকে বিদায়টা ঠিকমতো হয়!

সূত্র: আনন্দবাজার

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (16)
Shihab Ahmed Roman ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:২৭ এএম says : 0
আল্লাহ চাইলে সব পারে
Total Reply(0)
Idris Ali ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:২৮ এএম says : 0
আল্লাহ আপনি আমাদের বাংলাদেশকে মহামারী করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত করুন
Total Reply(0)
Manik Ahmmed ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৩১ এএম says : 1
সবই আল্লাহর গজব
Total Reply(0)
Md Rasel Mir ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৩১ এএম says : 0
অথচ কতই না দাম্ভিকতা ছিল এদের,,,মসজিদ ভেঙে মন্দির, জোর করে জয় শ্রীরাম বলানো,কুরবানির পশু জবাই করতে বাধা আরো কত কি!
Total Reply(1)
Noman ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৫৮ এএম says : 0
আল্লাহর গজব নাজিল হয়েছে
Habil Mia ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৩৯ এএম says : 0
আল্লাহর গজব নাজিল হয়েছে
Total Reply(0)
Mohammad Shaha Alam ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:০৬ এএম says : 0
ভারতে হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান পন্ডিতগন কেন লাশ দাফনের অনুমতি দিচ্ছেন না ?
Total Reply(0)
Zakir Ahmed Afif ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৪৬ এএম says : 0
এতো তারাতারি তো শেষ হবার কথা নয়,,, কত মুসলিম মায়ের বুক কালি করছেন , কত মুসলমান বোনদের ইজ্জতর উপর হামলা করছেন, কত মসজিদ ভাংচুর করছেন, কত মুসলিমদের জোর করে রাম নাম পাঠ করাইছেন,, কি ভাবছিলেন আপনারাই দুনিয়ার রাজা বাদশা, কোথায় আজকে আপনাদের অহংকার আজ রাজত্ব কার, এখনো সময় আছে ভালো পথে ফিরে আসুন, এখনো সময় আছে,
Total Reply(0)
Md Miaraz Hossain ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৪০ এএম says : 0
আল্লাহ মাফ করে দাও৷
Total Reply(0)
Shah Alam Sikder ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৪১ এএম says : 0
আল্লাহ তুমি রহমত করো
Total Reply(0)
Kamrul ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৪৬ এএম says : 0
"কুকুরের দেহ পোতার জায়গায় পোড়ানো হচছে মৃতদের লাশ"। আললাহর উপর ঈমান আনার অনেক উপকরন তাদের চারপাশে বিরজমান, যদি তারা একটু বুঝ রাখে।
Total Reply(0)
Noman ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৫৮ এএম says : 0
আল্লাহর গজব নাজিল হয়েছে
Total Reply(0)
Md Roton Khan Khan ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ৬:১৩ পিএম says : 0
আগুনে পোড়ার দরকার কি ৷খুবই সুন্দর করে মাটি দিলেই তো হয় ৷তাতে লাশটাও দাফন হবে ৷সাথে পরিবেশও ভালো থাকবে ৷ যে ভাবে আগুনে লাশ পুড়ানো হচ্ছে ৷তাতে আরও পরিবেশ ভয়াবহ হবে দিল্লিতে "বায়ু দষন বেড়ে যাবে ৷ঘুড়ে ফিরে সেই আগুনের ধুমা মানুষের মাঝেই ফিরে আসবে ৷ তাতে আরও সংত্রুমন আরও বেড়ে যাবে ৷মানুষে নিশ্বাষ নিতে আরও কষ্ট হবে ৷ তাই এই অবস্থায় মাটি দেওয়াই উওম ৷
Total Reply(0)
Mahmud Sheikh ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ৬:১৩ পিএম says : 0
এটাও দেখতে হচ্ছে, তবুও কিছু মানুষ আল্লাহ্‌র নাফারমানিতে এখনও লিপ্ত। এথেকেও শিক্ষা নেয়না
Total Reply(0)
Habibur Rahman ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ৬:১৩ পিএম says : 0
হে আল্লাহ আপনি মহান, আপনি রহমানের রাহিম, আপনি আমাদের অভিভাবক, আপনি সারা পৃথিবীর মানবজাতিকে রক্ষা করুন আমিন।
Total Reply(0)
শওকত আকবর ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১২:১৩ পিএম says : 0
এগিয়ে যাও মুসলিম যুবকরা।লাশের সৎকার করো।মানবিকতার পরিচয় দাও।
Total Reply(0)
Rouf ৩০ এপ্রিল, ২০২১, ১০:১৮ এএম says : 0
Allah hefajot koron
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন