ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৪ আষাঢ় ১৪২৮, ০৬ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

বিনোদন প্রতিদিন

বিপুল ভোটে হারের পরে যা বললেন রুদ্রনীল

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ মে, ২০২১, ৩:৪৬ পিএম

নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে প্রবল আত্মবিশ্বাসী ছিলেন বিজেপির তারকা প্রার্থী রুদ্রনীল ঘোষ।কিন্তু ভোট গণনা শেষ হতেই ফলাফল বলে দিল ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে পরাজিত হয়েছেন তিনি। আর ভোট গণনা শেষে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন রুদ্রনীল।

রুদ্রনীল এই পোস্টে জয়ী দল তৃণমূল কংগ্রেসকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, "২১শের ভোট যুদ্ধ শেষ। মানুষের রায়ে আশাতীত সাফল্যে প্রথম স্থানে তৃণমূল এবং দ্বিতীয় স্থানে বিজেপি। সিপিএম ও কংগ্রেস শূন্য। জয়ী প্রার্থীদের অভিনন্দন। যারা জয়ী হলেন না, তাদের পরিশ্রমকে কুর্নিশ। সব রাজনৈতিক দলের ভোটার, সমর্থক ও কর্মীদের ভালবাসা জানাই। নির্বাচনে হার জিত থাকেই। ভবানীপুর কেন্দ্র থেকে আমায় হারিয়ে জয়ী হয়েছেন শ্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। ওঁনাকে অভিনন্দন।"

রুদ্রনীলেরই আরও দুই ঘনিষ্ঠ বন্ধু এবার তৃণমূলের হয়ে লড়েছেন এবং জয়ী হয়েছেন। তাদের সম্পর্কেও অভিনেতা বলছেন, "সদ্য রাজনীতিতে পা দিয়েই জয়ী হয়েছেন ঘনিষ্ঠ বন্ধু রাজ চক্রবর্তী ও কাঞ্চন মল্লিক। দুজনকেই শুভেচ্ছা।"

মুহুর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাস হয় এই পোস্ট। সেই পোস্ট ঘিরে ফের ট্রোল হন অভিনেতা। কেউ লেখেন, "এবার তাহলে আপনি কোন দলে যাবেন?" কেউ আবার লেখেন, "এবার আপনার শুধু আইএসফ-এই যোগ দেওয়া বাকি।"

উল্লেখ্য ভোটের আগেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন রুদ্রনীল। দল পরিবর্তনের কারণ হিসেবে তিনি বলেছিলেন, দলে থেকে কাজ করতে পারছেন না তিনি। প্রচারে এবং একাধিক সাক্ষাৎকারে বার বার রুদ্রনীল বলে এসেছেন, তিনি নিশ্চিত তৃণমূলের বর্ষীয়ান প্রার্থী শোভনদেব চট্টোপাধ্য়ায়কে তিনি হারাবেন। কিন্তু শোভনদেবের কাছে ২৮,৫০৭ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ভবানীপুর মমতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কেন্দ্র। কিন্তু ২০২১ এর নির্বাচনে এই কেন্দ্র ছেড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রামে লড়তে যান। এই বিষয়ে রুদ্রনীল বলেছিলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানেন তিনি হেরে যাবেন। তাই তিনি পালিয়ে গিয়েছেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন