ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০৩ আষাঢ় ১৪২৮, ০৫ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

আইপিএল থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন টিভি দর্শকরাও!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ মে, ২০২১, ১২:০৩ এএম

গতকালও ভারতে করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৪ লাখ ১২ হাজার ২৬২। মৃত্যু ৩ হাজার ৯৮০। যে দেশে এখন পর্যন্ত করোনা রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ১০ লাখ ৭৭ হাজারের মতো, সে দেশের মানুষের কাছে বিনোদন, ক্রিকেট ইত্যাদি খুবই গৌণ বিষয়ে পরিণত হয়েছে। করোনার এ সময় ব্যাপক সমালোচনার মধ্যেই আইপিএল চালিয়ে গিয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। করোনার হানা থেকে বাঁচেনি আইপিএলও। সেখানেও একের পর এক ফ্র্যাঞ্চাইজিতে ক্রিকেটার ও অন্য স্টাফরা করোনায় আক্রান্ত হতে থাকলে গত পরশু স্থগিত করা হয় টুর্নামেন্ট। আইপিএলের জৈব সুরক্ষাবলয়ের দুর্বলতা নিয়ে অনেক কথাই হচ্ছে। বলা হচ্ছে, এতে বড় ধরনের ঘাটতি ছিল বলেই করোনার আক্রমণ দেখা দিয়েছিল আইপিএলে। তবে এখন জানা যাচ্ছে, এবারের আইপিএলের টেলিভিশন দর্শক নিয়েও দুশ্চিন্তায় ছিল বিসিসিআই।
এবারের আইপিএলে টিআরপি বা টেলিভিশন ভিউয়ারশিপে খুব বাজে ধাক্কাই লেগেছে। করোনায় জেরবার একটি দেশের মানুষের মন খুব স্বাভাবিকভাবেই ক্রিকেট বা বিনোদনে থাকবে না, আইপিএল শুরুর পর করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়ে যাওয়ার পর এমনটিই ঘটেছে ভারতে। গত বছরের তুলনায় এবারের আইপিএলের টেলিভিশন দর্শক নাকি কমে গিয়েছিল ১৪ শতাংশ।
ভারতে টেলিভিশন দর্শকদের ওপর গবেষণাকারী প্রতিষ্ঠান ব্রডকাস্ট অডিয়েন্স রিসার্চ কাউন্সিল বা বিএআরসির তথ্য অনুযায়ী আইপিএলের এই স্থগিত মৌসুমে টেলিভিশন দর্শক কমেছে ১৪ শতাংশ। করোনার কারণে ভারতীয়রা যে এবার আইপিএল থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছিলেন, এটা গাণিতিকভাবেই প্রমাণিত। এভাবে চললে, স্বাভাবিকভাবেই বিজ্ঞাপনদাতারা বিজ্ঞাপনের মূল্য নিয়ে নতুন করে ভাবত, যেটি বিসিসিআইকে আর্থিকভাবে বড় ধাক্কা দিয়ে যেত। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের মতে, এসব দিকও আইপিএল স্থগিত করে দিতে বিবেচনায় নিয়েছে বিসিসিআই। এমনিতেই করোনার বাজে সময় আইপিএল চালিয়ে সমালোচনা সইতে হচ্ছিল তাদের। এরপর যদি টেলিভিশন-দর্শকের ক্রমশ কমতির কারণে বিজ্ঞাপনের আয়ে টান পড়ত, সেটা বিসিসিআইয়ের জন্য মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা হয়েই আসত।
প্রথম সপ্তাহটা ঠিকঠাকই চলেছিল। সমস্যাটা বাড়ে ভারতে করোনা বেড়ে যাওয়ায়। বিশেষ করে এপ্রিলের মাঝামাঝি সময় থেকে মৃত্যুর মিছিল বিপন্ন করে ফেলেছে ভারতকে। বিশেষ করে হাসপাতালগুলোতে মানুষের আহাজারি, হাহাকার, শয্যাসংকট, অক্সিজেন সংকট মানুষের চিন্তাকে সেদিকে ঘুরিয়ে দিয়েছে। ঘরে ঘরে করোনা পজিটিভ মানুষেরা তো ছিলেনই। পরিস্থিতি এমনই ছিল যে চরম ক্রিকেটপ্রেমী মানুষও টেলিভিশনের সামনে বসে আইপিএলের চেয়ে বরং কোনো নিউজ চ্যানেলে ঢুঁ মেরে ভারতে করোনার সবশেষ আপডেট জানার চেষ্টা করেছে।
২০২০ সালে করোনার মধ্যেও সংযুক্ত আরব আমিরাতে আইপিএল অনুষ্ঠিত হয়েছিল। কিন্তু সে সময় ভারতে করোনার প্রকোপ এবারের মতো ছিল না। মৃত্যুর হার এত বেশি ছিল না। মানুষকেও বেশি হাসপাতালে আসতে হয়নি। ২০২০ আইপিএলও যখন হয়েছে (সেপ্টেম্বরে), তখন করোনা সংক্রমণের হারও নিম্নমুখী। ওই অবস্থায় টেলিভিশন দর্শক অনেক বেশি ছিল আইপিএলের। এবার গতবারের অভিজ্ঞতা থেকে বিজ্ঞাপনের রেট বাড়ানো হয়েছিল। গত বছর ১০ সেকেন্ডের স্লটের জন্য রেট ছিল ১০ থেকে ১২ লাখ রুপি। এবার সেটি ছিল ১৩-১৪ লাখ।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন