ঢাকা, সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৭ আষাঢ় ১৪২৮, ০৯ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সরব আ.লীগের শতাধিক প্রার্থী

ঢাকা-১৪, কুমিল্লা-৫, সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন

ইয়াছিন রানা | প্রকাশের সময় : ৭ মে, ২০২১, ১২:০৩ এএম

করোনা মহামারির কারণে একাদশ জাতীয় সংসদের শূণ্য হওয়া ঢাকা-১৪, কুমিল্লা-৫ ও সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না হলেও আওয়ামী লীগে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মাঠে নেমে পড়েছেন। সরাসরি নির্বাচনে প্রার্থী হবার কথা না বললেও ইফতার পার্টি আয়োজন, সেহরী বিতরণ, ঈদ উপহার দেয়া, ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে পোস্টার-ফেস্টুন করা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণার মাধ্যমে নিজেদের প্রার্থীতার জানান দিচ্ছেন মনোনয়নপ্রত্যাশীলা। এই তিন আসনে প্রায় শতাধিক নেতা নৌকার মনোনয়ন পেতে মাঠে নেমেছেন। এই নেতারা প্রায় প্রতিদিনই বিভিন্ন এলাকায় ইফতার আয়োজন করছেন এবং ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করছেন। আওয়ামী লীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাদের সঙ্গে দেখা করছেন এবং তাদের সমর্থন নিয়ে মাঠ কাজ করছেন।
তিন আসনেই মরহুম এমপির স্ত্রী ও ছেলে-মেয়েসহ স্বজনরাও প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন। তাদের সঙ্গে আছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা। আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ের নেতারা বলছেন, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরে গঠনতন্ত্র অনুয়ারি মনোনয়ন ফরম বিতরণ ও প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ শুরু হবে। তখন মনোনয়ন বোর্ড আগ্রহীদের মধ্যে থেকে ত্যাগী ও যোগ্যদের আওয়ামী লীগের চ‚ড়ান্ত মনোনয়ন দেবে।
গত ৪ এপ্রিল সংসদ সদস্য আসলামুল হকের মৃত্যুর পর ১৩ এপ্রিল ঢাকা-১৪ আসনটি শূন্য ঘোষাণা করেছে সংসদ সচিবালয়। শূন্য ঘোষণার গেজেট নির্বাচন কমিশনে (ইসি) পাঠানো হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির অবনতির মধ্যেই আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মিরপুর, শাহআলী, দারুস সালাম, রুপনগর থানার আংশিক এলাকার ৭, ৮, ৯, ১০, ১১ ও ১২ নং ওয়ার্ড এই আসনের অন্তর্ভূক্ত। নির্বাচনকে সামনে রেখে ইতিমধ্যেই গোটা এলাকায় প্রার্থীদের ঈদ শুভেচ্ছার ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে।
আসলামুল হকের আসনে তার পরিবারের সসদস্যদের মধ্যে তার স্ত্রী মাকসুদা হকের নাম আলোচনায় আছে। ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি ও যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল প্রকাশ্যে ঘোষণা না দিলেও তাদের নাম আলোচনায় রয়েছে। এছাড়া ঢাকা মহানগর উত্তর যুব মহিলা লীগের সভাপতি ও সংরক্ষিত আসনের সাবেক সংসদ সদস্য সাবিনা আক্তার তুহিন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোবাশ্বের চৌধুরী, মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান ও এ বি এম মাজহারুল আনাম উল্লেখ্যযোগ্য।
সাবিনা আক্তার তুহিন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও এই আসনের প্রার্থী ছিলেন। এবারও তিনি আলোচনায় রয়েছেন। জানতে চাইলে সাবিনা আক্তার তুহিন বলেন, আমার জš§ ও বেড়ে উঠা এই এলাকায়। আমি সব সময় এই এলাকার মানুষের পাশে ছিলাম, আছি, থাকবো। তারা সকল বিপদে আপদে আমাকে পাশে পায়। করোনা মহামারির মধ্যে আমি তৃণমুলের মানুষ ও নেতাকর্মীদের পাশে আছি। একবার সংরক্ষিত আসনের এমপি ছিলাম, তখন সাংর্বক্ষণিক জনগণের পাশে ছিলাম, সবার জন্য কাজ করেছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দিলে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে নিজেকে উৎসর্গ করবো।
স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোবাশ্বের চৌধুরী বলেন, আমি চাই দীর্ঘদিন ধরে এই এলাকার মাটি ও মানুষের সাথে যেসকল আওয়ামী লীগের নেতা শ্রম দিয়েছেন তাদের মধ্য থেকে কাউকে মনোনয়ন দেয়া হোক। আমার রাজনীতির শুরু এই এলাকায়, একবার কাউন্সিলর ছিলাম। সব সময় জনগণের পাশে আছি। দল যদি মনোনয়ন দেয় তাহলে জনগণের সেবা করার পরিধি বাড়বে।
মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান বলেন, দল থেকে মনোনয়ন দেয়া হলে সরকারের চলমান উন্নয়ন কাজ এগিয়ে নেব। এই এলাকায় ছাত্র রাজনীতি থেকে শুরু করে মূল দলের রাজনীতি করছি। দলের দুঃসময় রাজপথে ছিলাম, জনগণের জন্য কাজ করেছি। আশা করি দল মূল্যায়ন করবে।
এদিকে ফেসবুকে নিজের ভেরিফায়েড আইডিতে একটি পোস্টার শেয়ার করে প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন চলচ্চিত্র অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল।
এছাড়া মিরপুর, শাহআলী ও দারুস সালাম থানা, রূপনগর থানার আংশিক এবং সাভার উপজেলার কাউন্দিয়া ইউনিয়ন থেকে প্রায় অর্ধশত নেতা আওয়ামী লীগের মনোনয়নের মিছিলে শরীক হচ্ছেন।
কুমিল্লা-৫: গত ১৪ এপ্রিল সাবেক আইনমন্ত্রী ও কুমিল্লা-৫ থেকে পাঁচবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু মারা গেলে আসনটি শূণ্য হয়। এদিকে তার মৃত্যুর শোক না কাটতেই এবং করোনার কারণে ইসির নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু না হলেও মাঠে নেমেছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।
আব্দুল মতিন খসরুর আসনে প্রার্থী হিসেবে তার পরিবারের চারজনের নাম আলোচনায় রয়েছে। তারা হলেন- স্ত্রী সেলিনা সোবহান খসরু, ছেলে মুনেফ ওয়াসিফ, মেয়ে ডা. উম্মে হাবিবা দিলশাদ মুনমুন এবং ভাই অ্যাডভোকেট আবদুল মমিন ফেরদৌস। তবে চ‚ড়ান্ত প্রার্থীতার বিষয়ে পরিবারের মধ্যে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানা গেছে।
এদিকে পরিবারের বাইরে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন স্বপন, বুড়িচং উপজেলার আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল হাশেম, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ সেলিম রেজা সৌরভ, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহ-সম্পাদক এহতেশামুল হাসান ভ‚ইয়া রুমি, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা দিদার মো. নিজামুল ইসলাম, মেজর জেনারেল (অব.) মোস্তাফিজুর রহমান, সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের আইন সম্পাদক ব্যারিস্টার সোহরার খান চৌধুরী। এর বাইরেও বেশ কয়েকজন নেতা আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান।
জানতে চাইলে সাজ্জাদ হোসেন স্বপন বলেন, বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, যারা দীর্ঘদিন ধরে দলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত আছেন, সুসময়-দুঃসময়ে দলের সঙ্গে ছিলেন এমন একজনকে মনোনয়ন দেয়া হোক। আমি দলের মনোনয়ন পেলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখবো। তবে সবচেয়ে বড় কথা নেত্রী যাকে মনোনয়ন দেন তার পক্ষে কাজ করব। দিদার মো. নিজামুল ইসলাম বলেন, নেত্রী (শেখ হাসিনা) যদি আমাকে যোগ্য মনে করেন তাহলে নির্বাচিত হয়ে এলাকার মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। আওয়ামী পরিবারের সন্তান হিসেবে দীর্ঘ দিনের পারিবারিক ঐতিহ্যকে সমুন্নত রেখে সবাইকে সাথে নিয়ে তরুণ্যের শক্তিকে কাজে লাগিয়ে দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করবো।
এহতেশামুল হাসান ভ‚ইয়া রুমি বলেন, দল থেকে যদি মনোনয়ন দেয়া হয় মরহুম আব্দুল মতিন খসরু ভাইয়ের উন্নয়ন অগ্রগতির ধারা বজায় রাখবো।
সিলেট-৩: গত ১১ মার্চ রাজধানীর একটি হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান ২০০৮ সাল থেকে টানা তিনবারে এমপিট মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। ইতোমধ্যে নৌকার সম্ভাব্য প্রার্থীদের পোস্টার-ব্যানারে ছেয়ে গেছে ফেঞ্চুগঞ্জ, দক্ষিণ সুরমা ও বালাগঞ্জ উপজেলা। উপ-নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে উত্তরাধিকারী মনোভাবে প্রার্থীতা নিশ্চিত সহ টাকা পয়সার গরমে দীর্ঘ রাজনীতিক ক্যারিয়াম সমৃদ্ধ মনোনয়ন প্রত্যাশীদের টেক্কা দিতে একাধিক প্রার্থী দৌড়ঝাঁপ দিচ্ছেন মাঠে। এই আসনে নৌকার প্রার্থী হওয়ার প্রত্যাশা করছেন সাবেক এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েছের স্ত্রী ফারজানা সামাদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, ডাকসুর সাবেক সদস্য মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট দেওয়ান গৌস সুলতান, বিএমএর কেন্দ্রীয় মহাসচিব ডা. এহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল, জেলা বারের পিপি এডভোকেট নিজাম উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টার আওয়ামীলীগ শাখার সাবেক সভাপতি স্যার এনাম উল ইসলাম, বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ও যুবলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু। এর বাইরেও অনেকেই ব্যানার ফেস্টুনের মাধ্যমে নিজেদের প্রার্থীতার জানান দিচ্ছেন।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
MD Karim Mullah ৭ মে, ২০২১, ১:৫১ এএম says : 0
সব গুলো কে এমপি ঘোষণা করা হোক
Total Reply(0)
নূরুজ্জামান নূর ৭ মে, ২০২১, ২:০০ এএম says : 0
সবাই চিন্তা করছে নমিশন পাইলেই জয় সুনিশ্চিত।
Total Reply(0)
তানিম আশরাফ ৭ মে, ২০২১, ২:০৩ এএম says : 0
যোগ্য ব্যক্তিদের প্রার্থী করা হোক।
Total Reply(0)
Murad ৭ মে, ২০২১, ৭:০১ এএম says : 0
auto pass
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন