ঢাকা, রোববার, ২০ জুন ২০২১, ০৬ আষাঢ় ১৪২৮, ০৮ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

আইপিএলের বাকি অংশ ইংল্যান্ডে?

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ মে, ২০২১, ১২:০১ এএম

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) এবারের আসর তখন শুরু হয়েছে মাত্র। লন্ডনের মেয়র জানালেন তার শহরে বিশ্বের সবচেয়ে জমজমাট টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতা আয়োজনের ইচ্ছার কথা। সাদিক খানের চাওয়া পূরণ হয়ে যেতে পারে এবারই! ইংল্যান্ডের তিন কাউন্টি ক্লাব আইপিএলের বাকি অংশ আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) কাছে।
করোনাভাইরাসের থাবায় বন্ধ হয়ে গেছে আইপিএল। চার-ছক্কার আকর্ষণীয় প্রতিযোগিতা কবে শুরু হবে, সেটা নিয়ে চলছে বিস্তর আলোচনা। ফের শুরু হলে ভারতেই হবে নাকি অন্য কোথাও সরিয়ে নেওয়া হবে, সেই আলোচনাও আছে। ভারতীয় গণমাধ্যমে বিকল্প হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের কথা শোনা যাচ্ছে। এই অবস্থায় ইংল্যান্ডের তিন ক্লাব এমসিসি, সারে ও ওয়ারউইকশায়ার আইপিএল আয়োজনের আগ্রহের কথা জানিয়েছে ইসিবির কাছে।
ক্রিকেটবিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর খবর, এমসিসি, সারে ও ওয়ারউইকশায়ার চিঠিতে লিখেছে, তাদের মাঠে আইপিএলের আয়োজনের প্রস্তাব যেন ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডকে (বিসিসিআই) জানায় ইসিবি। ক্লাব তিনটির ঘরের মাঠ যথাক্রমে লর্ডস (লন্ডন), ওভাল (লন্ডন) ও এজবাস্টন (বার্মিংহাম)। বিসিসিআই প্রস্তাব গ্রহণ করলে ল্যাঙ্কাশায়ারের মাঠ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডেও (ম্যানচেস্টার) হতে পারে আইপিএল। যদিও ল্যাঙ্কাশায়ার স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, তার এই প্রস্তাবের ব্যাপারে জানে, তবে চিঠিতে তাদের স্বাক্ষর নেই।
কাউন্টি ক্লাবগুলোর পরিকল্পনা, সেপ্টেম্বরের শেষ অর্ধে দুই সপ্তাহের মধ্যে আইপিএল শেষ করার। যদিও ইংল্যান্ডে আইপিএল আয়োজন করতে বিসিসিআই থেকে কোনও আগ্রহ দেখানো হয়নি। এমনকি প্রাথমিক কথা-বার্তাও হয়নি। ক্রিকইনফোকে ইসিবির এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘সামনের সফর ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে আমরা বিসিসিআইয়ের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছি এবং এটা আমরা চালিযে যাব। কিন্তু এখন পর্যন্ত আমরা তাদের কাছে কোনও ইঙ্গিত পায়নি আইপিএলের বিকল্প ভেন্যুর ব্যাপারে।’
ইংল্যান্ডের তিন ক্লাব আইপিএল আয়োজনের আগ্রহ দেখানোর কারণ হিসেবে কয়েকটি বিষয় উল্লেখ করেছে। তারা মনে করছে, আইপিএল শেষ করা জরুরি, এতে বিশ্বের শীর্ষ ক্রিকেটাররা নিজেদের সেরাটা নিয়ে নামতে পারবেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। তাছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাতে আইপিএল নিয়ে যাওয়ার যে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, সেখানেও আছে তাদের ব্যাখ্যা। ক্লাব তিনটি মনে করছে, ইংল্যান্ডে আইপিএল হলে আরব আমিরাতের উইকেটগুলো তাজা থাকবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য।
করোনা মহামারীতে মৃত্যুর মিছিল ভারতে। এরমধ্যে আইপিএল চালিয়ে নেওয়ায় বিসিসিআইয়ের কঠোর সমালোচনা চলছিল। যদিও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড খেলা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে দৃঢ় অবস্থানে ছিল।
কিন্তু ৩ মে কলকাতা নাইট রাইডার্সের দুই খেলোয়াড় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে তাদের ম্যাচ বাতিল করতে বাধ্য হয় টুর্নামেন্ট কর্তৃপক্ষ। পরপরই আসলে চেন্নাই সুপার কিংসেও করোনার থাবা বসানোর খবর।
এই অবস্থায় আইপিএলের ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কা জন্মে। পরদিন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ঋদ্ধিমান সাহা ও অমিত মিশ্রর কোভিড পজিটিভের খবর এলে আরও নড়েচড়ে বসে আইপিএল কর্তৃপক্ষ। অবশেষে ৪ মে স্থগিত হয়ে যায় ২০২১ সালের আসর।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন