ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮, ১২ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

নমুনা পরিক্ষা হ্রাসের সাথে দক্ষিনাঞ্চলে করোনা সনাক্তের সংখ্যাও কমল নতুন আক্রান্ত ৭০ জন

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৮ মে, ২০২১, ২:০৫ পিএম | আপডেট : ২:৫৩ পিএম, ৮ মে, ২০২১

দক্ষিনাঞ্চলে করোনা সংক্রমনে গত ৪৮ ঘন্টায় কোন মৃত্যু সংবাদ না থাকলেও নতুন সনাক্ত হয়েছেন আরো ৭০ জন। নমুনা পরিক্ষা হ্রাসের কারনেই এসময়ে সনাক্তের সংখ্যা কিছুটা কম মনে হলেও তার সাথে বাস্তবতার অনেক অমিল রয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগন। তবে এখনো দক্ষিনাঞ্চলে করোনা সনাক্ত ও মৃত্যুহার জাতীয় হারের অনেক ওপরে। গত ৪৮ ঘন্টায় বরিশাল শের এ বাংলা মেডিকেল কলেজ ও ভোলা আরটিÑপিসিআর ল্যাব সহ দক্ষিনাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা উপজেলাতে মোট মাত্র ৫১৬ জনের নমুনা পরিক্ষায় ৭০ জনের করোনা পজিটিভ সনাক্ত হয়েছে।
এ নিয়ে দক্ষিনাঞ্চলে ৯৮ হাজার ২৩৭ জনের নমুনা পরিক্ষায় ১৪ হাজার ৭১৯ জনের দেহে করেনা পজিটিভ সনাক্ত হল। মৃত্যু হয়েছে ২৬৯ জনের। স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বশেষ হিসেব মতে দক্ষিনাঞ্চলে সনাক্তের হার ১৫.২৫%। মৃত্যু হার ১.৮১%। এরমধ্যে চলতি মাসের প্রথম ৮দিনে এ অঞ্চলে আক্রান্তের সংখ্যা দাড়াল ২৫৬ জনে। মাা গেছেন ৭ জন। শুক্রবার সকালের পূর্ববর্তি ২৪ ঘন্টায় দক্ষিনাঞ্চলে ৩৮৭ জনের নমুনা পরিক্ষায় ২৫ জনের এবং শণিবার মাত্র ১২৯ জনের পরিক্ষায় ৪৫ জনের দেহে করোনা পজিটিভ সনাক্ত হয়েছে। সে নিরিখে শণিবারে সনাক্তের হার ছিল প্রায় ৪০%-এর কাছে।
তবে এখনো বরিশাল মহানগরী করেনার আতুর ঘর হিসেবে চিঞ্হিত হয়ে অছে। সমগ্র দক্ষিনাঞ্চলে মোট আক্রান্তের অর্ধেকেরও বেশী বরিশাল মহানগরীতে। অথচ গোটা বিভাগের মোট জনসংখ্যার ৬% এ নগরীতে বাস করেন।
শণিবার দুপুরের পূর্ববর্তি ৪৮ ঘন্টায় দক্ষিণাঞ্চলে আক্রান্ত ৭৯ জনের ৪২ জনই বরিশাল জেলায়। যার ৩৫ জনই মহানগরীতে। এমনকি এপর্যন্ত বরিশাল জেলায় মোট আক্রান্ত ৬ হাজার ৭৭৮ জনের মধ্যে মহানগরীতেই আক্রান্ত ৫ হাজারের ওপরে। আর জেলায় মৃত ১১৫ জনের ৬৫ জন মহনগরীতে। এরপরেও বরিশাল মহানগরীতে নুন্যতম স্বাস্থ্য বিধি বাস্তবায়নে নগর ভবন সহ প্রশাসনের কোন পদক্ষেপ লক্ষণীয় নয়।
দক্ষিণাঞ্চলে করোনা সংক্রমনের দ্বিতীয় ঝুকিপূর্ণ এলাকা পটুয়াখালীতে শুক্রবার ৫ জন অক্রান্ত হলেও শণিবারে কোন সংবাদ ছিলনা। জেলাটিতে ইতোমধ্যে ২ হাজার ১৫১ জন আক্রান্তের মধ্যে ৫০ জনের মৃত্যু ঘটেছে। জেলাটিতে সনাক্তের হার দক্ষিণাঞ্চলের দ্বিতীয় সর্বনি¤œ ১১.৯৮% হলেও মৃত্যুহার এ অঞ্চলের সর্বোচ্চ, ২.৩২%। ভোলাতে গত ৪৮ ঘন্টায় নতুন করে ৮ জনের দেহে করেনা পজিটিভ সনাক্তের ফলে মোট সংখ্যাটা দাড়িয়েছে ১ হাজার ৮০৮ জনে। জেলাটিতে ইতোমধ্যে ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ দ্বীপজেলায় ১৩.১৫% সনাক্তের মধ্যে মৃত্যুহার ১.৩৩%।
দক্ষিণাঞ্চলে সর্বাধীক সংক্রমিত ঝালকাঠী জেলায় গত ৪৮ ঘন্টায় নতুন করে কোন সংক্রমন ছিলনা। জেলাটিতে সংক্রমনের হার ১৯.৫৬%। ইতোমধ্যে ১ হাজার ২৮৯ জন আক্রান্তের মধ্যে ২৫ জনের মৃত্যু ঘটেছে। বরগুনার মত ঝালকাঠী জেলাও মৃত্যুহার দক্ষিণাঞ্চলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১.৯৪%। পিরোজপুরেও গত ৪৮ ঘন্টয় ৬জন আক্রান্তের কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। জেলাটিতে ইতোমধ্যে ১ হাজার ১০ জন আক্রান্তের মধ্যে ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ১৮.৩৭% সনাক্তের হারে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংক্রমনের এ জেলায় মৃত্যুহারেও তৃতীয় স্থানে, ১.৯৩%।
সাগরপাড়ের বরগুনাতে গত ৪৮ ঘন্টায় নতুনকরে আক্রান্ত হয়েছেন ৩জন। জেলাটিতে এপর্যন্ত ১ হাজার ২৩৫ জন আক্রান্তের মধ্যে ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। নমুনা পরিক্ষার তুলনায় বরগুনায় সনাক্তের হার দক্ষিণাঞ্চলের সর্বনি¤œ ৯.৯২% হলেও মৃত্যু হারে ঝালকাঠীর সাথে দ্বিতীয় স্থানে ১.৯৪%। স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমিত হিসেবে গত ৪৮ ঘন্টায় দক্ষিনাঞ্চলে আরো ১শ জন সহ সর্বমোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১২ হাজার ৩৫৪ জন। সুস্থতার হার গত সপ্তাহের তুলনায় কিছুটা বেড়ে এখন ৮৩.০২% হলেও তা মার্চের মধ্যভাগের চেয়ে এখনো প্রায় ১৬% পিছিয়ে।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন