শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৭ কার্তিক ১৪২৮, ১৫ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

৪৪ দেশে ছড়িয়েছে করোনার ভারতীয় ধরন : ডব্লিউএইচও

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ মে, ২০২১, ৬:১৬ পিএম | আপডেট : ৭:২২ পিএম, ১২ মে, ২০২১

বিশ্বের ৪৪টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ভারতে শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক ধরনটি।এমনই তথ্য দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। মঙ্গলবার (১১ মে) সংস্থাটি জানায়, গত বছরের অক্টোবর মাসে ভারতে প্রথম শনাক্ত হওয়া বি.১.৬১৭ নামে ভাইরাসের এই ধরনটি এখন পর্যন্ত বিশ্বের ৪৪টি দেশে খুঁজে পেয়েছেন তাদের বিজ্ঞানীরা।

প্রথম শনাক্ত হওয়ার পর করোনার ভারতীয় ধরনকে ‘ভ্যারিয়েন্ট অফ ইন্টারেস্ট’ হিসাবে তালিকাভুক্ত করেছিল ডব্লিউএইচও। তবে অবস্থার অবনতি হওয়ায় চলতি সপ্তাহে ধরনটিকে ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’ বা ‘উদ্বেগের বিষয়’ বলে বর্ণনা করে সংস্থাটি। এর আগে করোনার ব্রিটেন, ব্রাজিল ও দক্ষিণ আফ্রিকার ধরনগুলোকেও ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’ হিসেবে উল্লেখ করেছিল ডব্লিউএইচও। করোনার ভারতীয় এই নতুন ধরনটি তুলনামূলক বেশি সংক্রামক। শুধু তাই নয়, টিকা গ্রহণ করা ব্যক্তির রোগ প্রতিরোধও ক্ষমতা কিছুটা হলেও ভাঙতে সক্ষম ভাইরাসের নতুন এই ধরনটি। আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন, এমন ব্যক্তিকেও আবার আক্রান্ত করতে সক্ষম ভাইরাসের ডবল মিউটেশান।

করোনার টিকার মাধ্যমে যে অ্যান্টিবডি তৈরি হয় সেই অ্যান্টিবডিও অনেক সময় এই ভাইরাসকে রুখতে ব্যর্থ হয়। ফলে টিকা নেওয়ার পরেও অনেক বেশি মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। তাই বিজ্ঞানীরা ভারতের করোনার এই ধরন নিয়ে বেশি চিন্তিত। এদিকে ভারতে শনাক্ত করোনা এই ধরনটি ছড়িয়ে পড়া দেশগুলোকে সতর্ক করেছে ডব্লিউএইচও। সংস্থাটি বলছে, করোনাভাইরাসের এই ধরনটি ভারতে প্রথম শনাক্ত হলেও এখন সেটা বিশ্বের ৪৪টি দেশে তা পাওয়া গেছে। এর থেকেই বোঝা যাচ্ছে এই ভাইরাস দ্রুত ছড়াচ্ছে। এই মুহূর্তে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, ভাইরাসের এই ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ কমিয়ে আনা। এ জন্য সকল দেশকেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। না হলে এই ভাইরাস আরও অনেক দেশে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

সোমবার ডব্লিউএইচও’র জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী মারিয়া ভ্যান কেরখোভ বলেন, করোনার ভারতীয় ধরনটি দ্রুততার সঙ্গে সংক্রমণ ছড়ানোর বিষয়ে নতুন কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। প্রাথমিক বিশ্লেষণ ও পর্যবেক্ষণের ফলাফলের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, কিছু ক্ষেত্রে এই সংক্রমণ কিছুটা হলেও হ্রাস পেয়েছে। তবে এই ধরনটি পুরো বিশ্বের জন্য চিন্তার কারণ। করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত ভারতে মৃত্যুর মিছিল চলছেই। বুধবার (১২ মে) ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ লাখ ৪৮ হাজার ৪২১ জন। একই সময়ের মধ্যে দেশটিতে মারা গেছেন ৪ হাজার ২০৫ জন। এতে দেশটিতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৫৪ হাজার ১৯৭ জনে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
Mohammed Hussain ১৩ মে, ২০২১, ১২:১৫ এএম says : 0
যখন চীনে প্রথম করোনা ভাইরাস দেখা দিয়েছিল পৃথিবীর প্রায় সব রাষ্ট্রই চীনের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় তারপরও করোনাকে আটকানো যায়নি। পুরো পৃথিবী তে ছিল করোনার দাপট। এখনও আছে। থাকবে। যতক্ষণ না আল্লাহ চাইবেন।
Total Reply(0)
M.A. Monsoor ১৩ মে, ২০২১, ১২:১৬ এএম says : 0
প্রতিবেশী ভারতে নতুন ভ্যারিয়েন্টের প্রলয় চলছে। বাংলাদেশের সাথে দীর্ঘ সীমান্ত। অথচ আমাদের দেশে চলছে লকডাউন নামের এক অদ্ভুত খেলা!আল্লাহ সবাইকে রক্ষা করুন।
Total Reply(0)
Shariful Islam Kamrul ১৩ মে, ২০২১, ১২:১৬ এএম says : 0
ভারতের করোনা পরিস্থিতি দেখে ভীষণ ভীষণ ভয় হচ্ছে_ভারতের সাথে আমাদের সীমান্ত ৩ দিকে!_এদের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করাও সম্ভব নয়
Total Reply(0)
Tafsirul Alam ১৩ মে, ২০২১, ১২:১৬ এএম says : 0
সকলকে দায়িত্বশীল হয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা উচিত। আরো সচেতন হওয়া প্রয়োজন।
Total Reply(0)
Abdullah Al Noman ১৩ মে, ২০২১, ১২:১৭ এএম says : 0
ভ্যারিয়েন্ট ট্যারিয়েন্ট কিছু না।ভারতীয়দের জিবন জাপন সাস্থ্য সমত না।তারা ঠিক মত গোসল ও করে না।তা ছাড়া এই করোনার ভিতরে তারা কূমবো মেলা, নির্বাচন, হলি উৎসব,গোবরের উৎসব,গো-মুত্র খাওয়ার উৎসব।কি না করতেছে!!!
Total Reply(0)
As Mithu ১৩ মে, ২০২১, ১২:১৮ এএম says : 0
ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট আসলে সত্যি অবস্থা অনেক খারাপের দিকে চলে যাবে। যে ফ্যামিলিতে মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়ে শুধু তারা জানে কি ভয়াবহ এই ভাইরাস।ঠাট্টা মশকরা করার কিছু নেই। সবাই সচেতন হলে এই ভাইরাস ঠেকানো সম্বব।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন