ঢাকা, রোববার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ০১ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বিধিনিষেধ বাড়ল এক সপ্তাহ বাস-ট্রেন-লঞ্চ বন্ধ থাকছে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ মে, ২০২১, ১২:০০ এএম

ট্রেন ও লঞ্চ এবং আন্তঃজেলা বাস আগের মতোই বন্ধ রেখেই করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিস্তার নিয়ন্ত্রণে চলমান বিধিনিষেধের মেয়াদ আরও এক সপ্তাহ বাড়িয়েছে সরকার।

গতকাল রোববার বিকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সংক্রমণের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় পূর্বের সকল বিধিনিষেধের মেয়াদ গতকাল রোববার মধ্যরাত থেকে আগামী ২৩ মে মধ্যরাত পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে।

ট্রেন ও লঞ্চ এবং আন্তঃজেলা বাস আগের মতোই বন্ধ থাকছে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে জেলার ভেতরে গণপরিবহন চলাচল করতে পারবে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রোধে কঠোর বিধিনিষেধের দ্বিতীয় ধাপে গত ১৪ এপ্রিল থেকে দেশে জরুরি কাজ ছাড়া ঘরের বাইরে বের হওয়ার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়, যা সর্বাত্মক লকডাউন নামে পরিচিতি পায়। এই বিধিনিষেধের মধ্যে উৎপাদনমুখী শিল্প কারখানাকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ চালানোর অনুমতি দেওয়া হলেও জরুরি সেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠান ছাড়া সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ আছে।

প্রজ্ঞাপনে আরো বলা হয়, সরকারের রাজস্ব আদায়ের সাথে সস্পৃক্ত সকল দপ্তর ও সংস্থাও জরুরি পরিষেবার আওতাভুক্ত থাকবে। শুরুতে লকডাউনে শপিংমলসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশনা থাকলেও জীবন-জীবিকার কথা বিবেচনা করে গত ২৫ এপ্রিল থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান ও শপিংমল খোলার অনুমতি দেওয়া হয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁ কেবল খাদ্য বিক্রি বা সরবরাহ (টেকওয়ে বা অনলাইন) করতে পারবে।

বারবার বলার পর স্বাস্থ্যবিধি মানার প্রবণতা উধাও ছিল ঢাকায় ঈদ কেনাকাটায়। এর আগে গত ৫ মে লকডাউনের বিধিনিষেধের মেয়াদ ১৬ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল। ঈদের পর তা আরও এক সপ্তাহ বাড়নো হলো।

গত শনিবার জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছিলেন, লোকজন ঢাকা ছেড়ে বিভিন্ন গন্তব্যে গেছে তাদের বাড়ি থেকেও ফিরতে অন্তত ১০ দিন লাগবে। সংক্রমণের কী অবস্থা দাঁড়ায় বোঝা যাচ্ছে না। এ জন্য মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

ঈদযাত্রার সঙ্গে যেন ভাইরাস যেন আরও ছড়িয়ে না পড়ে, সেজন্য ১৩ থেকে ১৫ মে ঈদের ছুটিতে সবাইকে কর্মস্থলের এলাকায় থাকতে বলেছিল সরকার। কিন্তু ঈদের কয়েক দিন আগে থেকেই লাখো মানুষ যে যেভাবে পারেন, সেভাবে গ্রামের বাড়ি গেছেন। ঘরমুখো মানুষ ছোট ছোট যানবাহনে গাদাগাদি করে সে সময় বাড়িতে গেছে। ফেরিতেও ছিল উপচেপড়া ভিড়। স্বাস্থ্যবিধির কোনো বালাই ছিল না কোথাও। ভিড়ের চাপে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরিতে প্রাণহানিও ঘটেছে। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে এভাবে ভ্রমণ, বিভিন্ন বিপণিবিতানে মানুষের ভিড়ের কারণে নতুন করে সংক্রমণ বাড়তে পারে বলে সতর্ক করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। ঝুঁকি নিয়ে সেই ঈদযাত্রা ঠেকানো না গেলেও এখন মানুষের ফিরতি যাত্রা বিলম্বিত করা যায় কীভাবে, সেই পথ খোঁজার পরামর্শ দিয়েছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম।

এদিকে ঈদের পর দূরপাল্লার বাস চলার অনুমতির জন্য পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা ঈদের দিন দেশের বাস টার্মিনালগুলোতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কথা ভেবে তাতে সাড়া দেয়নি সরকার।

আগামী এক সপ্তাহ লকডাউন শেষে করোনা পরিস্থিতির ওপর বিবেচনা করে দূরপাল্লার বাস চলার বিষয়ে সরকার চিন্তা-ভাবনা করবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। তিনি বলেন, এখনই দূরপাল্লার বাস চলার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। পূর্বের শর্তে আগামী এক সপ্তাহ লকডাউন চলবে। ঈদে দূরপাল্লার বাস-লঞ্চ-ট্রেন বন্ধ থাকায় মানুষ ব্যক্তিগত গাড়ি, ট্রাক-পিকআপভ্যান এবং ফেরিতে গাদাগাদি করে বাড়ি ফিরেছে। এতে করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি আরো বেড়ে যায়।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
Kamal Hossain ১৭ মে, ২০২১, ১:৫৪ এএম says : 0
জী, লকডাউন বৃদ্ধি মানে - ঈদে যারা ভোগান্তি করে বাড়ি গেছে , আবার তারা ভোগান্তি করে ঢাকায় ফিরুক। মানুষ ভোগান্তি তে মরে মরুক। দূরপাল্লার বাসে যেন না যেতে পারে? এটা কি মানুষের জন্য সরকার না কি থাক বলবো না। মানুষের এত ভিরের মধ্যে বাড়ি ফেরার পরও আল্লাহর রহমতের করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ও আক্রান্তের সংখ্যা কমে যাচ্ছে।
Total Reply(0)
Masud Miah ১৭ মে, ২০২১, ১:৫৪ এএম says : 0
প্রেগন্যান্সি যেমন আংশিক হয়না, লকডাউনও বাংলাদেশের জন্য তেমন! হয় সব বন্ধ করুন, না হয় সব খুলে দিন শুধু শুধু পাবলিকের ভোগান্তি দেন কেন
Total Reply(0)
M Nurul Absar Anis ১৭ মে, ২০২১, ১:৫৫ এএম says : 0
এ লকডাউন যেন অবৈধ সরকারের নির্বাচনের মতো বছরের পর বছর চলতে আছে চলতেই আছে নিরপেক্ষ নির্বাচন নিরপেক্ষ লকডাউন চাই, লকডাউনের নামে পাইজলামি বন্ধ কর, লকডাউন দিলে ১ বার দাও 100% দাও, আধা খোলা আধা বন্ধ দিনের ভোট রাতের এই এইসব কি ধরনের পাইজলামি
Total Reply(0)
Masud Miah ১৭ মে, ২০২১, ১:৫৫ এএম says : 0
লকডাউন বাংলাদেশে কার্যকর হয় না শুধু শুধু পাবলিকের ভোগান্তি উদাহরণ ফেরিঘাট
Total Reply(0)
MD Nur Hasan ১৭ মে, ২০২১, ১:৫৬ এএম says : 0
জনগণকে অর্থনৈতিকভাবে হুমকির মুখে ফেলছেন সরকার। সরকারের লকডাউন মানে অর্থনৈতিক পঙ্গুত্ব রোগ সৃষ্টি করছেন।
Total Reply(0)
Jahangir Alam ১৭ মে, ২০২১, ১:৫৬ এএম says : 0
আসলে দেশে কি হচ্ছ কিংবা কি চলছে।সাধারণ জনগনের বোধগম্য নয়। যদি বন্ধ করতে হয় সব কিছু বন্ধ, খুলতে হলে সব কিছু খোলা দরকার। লকডাউন অমান্য করা মানে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখানো।
Total Reply(0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন