ঢাকা, রোববার, ২০ জুন ২০২১, ০৬ আষাঢ় ১৪২৮, ০৮ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

খুনি সাইফুলকে পালিয়ে যেতে সহযোগীতা করেন থানার ওসি ও এক এসআই

বিশ্বনাথে স্কুল ছাত্র সুমেল হত্যাকান্ড

বিশ্বনাথ (সিলেট) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৬ জুন, ২০২১, ৭:২১ পিএম

সিলেটের ঐতিহ্যবাহী চাউলধনী হাওরের লীজ গ্রহীতা সাইফুলের গুলিতে নির্মমভাবে খুন হয় স্কুল ছাত্র সুমেল ও কৃষক ছরকুম আলী দয়াল। গত ১ মে দুপুরে উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের চৈতনগর গ্রামে এ হত্যাকান্ড ঘটে। এ ঘটনায় লন্ডনি সাইফুল ও তার বাহিনীকে খুনের পর পালিয়ে যেতে সহযোগীতা করেন বিশ্বনাথ থানার সাবেক ওসি শামিম মুসা ও এসআই ফজলুর রহমান। বিষয়টি পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তার দৃষ্টি গোচর হলে পুলিশের এ দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করতে সিলেট গোলাপগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল হক চৌধুরীকে নির্দেশ দেয়া হয়। এরই প্রেক্ষিতে রাশেদুল হক আজ রবিবার দুপুরে হত্যাকান্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পুলিশ সুপার এ দুই হত্যাকান্ডের ঘটনায় ওসি শামিম মুসা ও এসআই ফজলু কি ভুমিকা পালন করে এবং কিভাবে খুনিদের পালিয়ে যেতে সহযোগীতা করে তা এলাকাবাসির কাছ থেকে জানেন এবং বেশ কিছু স্বাক্ষী গ্রহণ করেন। পুলিশ সুপারের আগমনের খবরে ছুটে আসেন এলাকার সর্বস্থরের মানুষ। এসময় এলাকাবাসি পুলিশ সুপারকে বলেন, সাইফুল ও তার বাহীনির সঙ্গে থানা পলিশের গভীর সম্পর্ক থাকায় এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে এবং খুনি সাইফুলকে পালিয়ে যেতে সহযোগীতা করে। তারা আরো বলেন, সুমেল হত্যাকান্ডে আজ প্রায় ১মাস ৬দিন অতিবাহিত। কিন্তু জোড়া খুনের পরও আসামিরা এখনও অধরা থাকায় আমরা এলাকাবাসি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।
পুলিশ সুপার এলাকাবাসির উদ্দেশ্যে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, এই এলাকার শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে পুলিশ সার্বক্ষনিক প্রস্তুত আছে। খুনি সাইফুল ও তার বাহিনীকে গ্রেফতার ও অস্ত্র উদ্ধারে পুলিশের ৩টি টিম ও র‌্যাব মাঠে কাজ করছে। যে কোন সময় আসামিরা গ্রেফতার হতে পারে। তাই এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় কেউ যেন আর কোন বিশৃঙ্খলা না ঘটায় এবং কেউ যেন আইন হাতে তুলে না নেয় সেদিকে সকলের সজাগ সৃষ্টি রাখতে হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, চাউলধনী হাওর কৃষক বাচাঁও আন্দোলনের আহবায়ক আবুল কালাম, ইউনিয়ন আলীগের সভাপতি আরিফ উল্লাহ সিতাব, আনোয়ার হোসেন ধন মিয়া, ইউপি সদস্য সামসুদ্দিন আহমদ, আব্দুল মজিদ, নিতহ সুমেলের চাচা নজির আহমদ, মামলার বাদি ইব্রাহিম আলী সিজিল, আহমদ আলী, মারুফ আহমদসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Saleh Ahmed Nayeem ৮ জুন, ২০২১, ৪:০৯ এএম says : 0
খুনি সাইফুল গ্রেফতার না হওয়ায় এলাকাবাসী নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন অন্যদিকে পুলিশরা যে কত অসহায় তা বুঝতে বাকি নাই।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন