ঢাকা সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৫ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

সামুদ্রিক শ্লেষ্মার প্রাদুর্ভাব থেকে মুক্ত করার প্রতিশ্রুতি এরদোগানের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ জুন, ২০২১, ১২:০৬ এএম

মারমারা সাগরের তীর সমুদ্রের নট বা সামুদ্রিক শ্লেষ্মার প্রাদুর্ভাব থেকে মুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেপ এরদোগান। শনিবার এরদোগান এ প্রতিশ্রুতি দেন। রোববার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ তথ্য জানায়। খবরে বলা হয়, এই সামুদ্রিক শ্লেষ্মার কারণে শুধু সামুদ্রিক প্রাণিদের জীবন হুমকির মুখে পড়েছে তা নয়, এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তুরস্কের মৎস্য খাতও। এ সমস্যার জন্য দ‍ষণ এবং আবহাওয়া পরিবর্তনকে দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। এরদোগান বলেন, আশা করছি, আমরা আমাদের সমুদ্র সামুদ্রিক শ্লেষ্মার হাত থেকে বাঁচাতে পারবো। সমুদ্রের নট বা ‘সামুদ্রিক শ্লেষ্মা’ পানি দ‚ষণ এবং গরম আবহাওয়ার কারণে প্রাকৃতিকভাবে তৈরি হয়। সমুদ্রের নট ২০০৭ সালে তুরস্কে প্রথম পাওয়া যায়। তবে গ্রিসের নিকটবর্তী এজিয়ান সাগরেও এর সন্ধান মিলেছে। কৃষ্ণসাগরকে এজিয়ান সাগরের সঙ্গে সংযুক্তকারী মারমারা সাগরের বিশাল অঞ্চল জুড়ে সমুদ্রের নটের এ প্রাদুর্ভাব এবার সর্বোচ্চ বলে ধারণা করা হচ্ছে। যা স্থানীয়দের সর্বনাশের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তুর্কি প্রেসিডেন্ট পরিশোধন না করে ড্রেনের ময়লা সাগরে ফেলা এবং বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধিকে এ প্রাদুর্ভাবের জন্য দায়ী বলে অভিযোগ করেন। তিনি এ বিষয়ে তদন্ত করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহŸান জানান। তিনি বলেন, আমার ভয় হলো, যদি এ সামুদ্রিক শ্লেষ্মা কৃষ্ণসাগরে ছড়িয়ে যায় তবে ঝামেলার অন্ত থাকবে না। আমাদের কোনো দেরি না করেই দ্রæত ব্যবস্থা নিতে হবে। দ‚ষণের ম‚ল কারণ এবং এর উৎস অনুসন্ধান করার জন্য একটি শক্তিশালী টিম ইতোমধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছে। এদিকে সামুদ্রিক শ্লেষ্মার কারণে ক্ষতির মুখে পড়ছে দেশটির মৎস্যজীবীরা। তাদের মাছ ধরতে যেমন অসুবিধা হচ্ছে তেমনই দ‚ষণের কারণে মারা যাচ্ছে মাছ। তুরস্কের সামুদ্রিক গবেষণা বিভাগের অধ্যাপক বায়রাম ওজতুর্ক বলেন, ইস্তাম্বুল থেকে দ‚ষিত পানি শোধন করে যেন সাগরে ফেলা হয় সে বিষয়ে দ্রæত ব্যবস্থা নিতে হবে। অন্যথায় এ সমস্যার সমাধান হবে না। বিবিসি।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন