ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৮ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার পর কাবুলের পতন হলে সেনা অভিযান চালানো হতে পারে : যুক্তরাষ্ট্র

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ জুন, ২০২১, ১২:৪৪ পিএম

মার্কিন সেনারা আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার পর কাবুলের পতনের মতো বড় কোনো ঘটনা ঘটতে চললে আবার সেনা অভিযান চালানোর বিষয়টি বিবেচনা করছে পেন্টাগন।
এর আগে বাইডেন এবং তার শীর্ষ জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, আফগানিস্তান থেকে একবার সেনা প্রত্যাহার করা হয়ে গেলে, বিমান হামলার সহায়তাও বন্ধ করা হবে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে এমন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে বিমান হামলা চালানো হতে পারে।
কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত এ নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে তারা জানিয়েছেন, কাবুলের পতন, যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্রদের দূতাবাস ও নাগরিকেরা ঝুঁকিতে পড়েছেন এমন চরম সংকটময় মুহূর্তে যুদ্ধবিমান বা সশস্ত্র ড্রোন ব্যবহার করার সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা চলছে।
আগামী মাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানের সব বিমানঘাঁটি ছেড়ে দেবে। এরপর সেখানে যদি কোনো বিমান হামলা পরিচালনার দরকার হয়, তা করা হবে সম্ভবত উপসাগরীয় অঞ্চলের ঘাঁটিগুলো থেকে।
সাম্প্রতিক মাসগুলোতে তালেবান বাহিনী সেদেশের প্রায় প্রতিটি শহরে হানা দিয়েছে এবং সেগুলোর নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার মতো হুমকি সৃষ্টি করে চলেছে।
প্রেসিডেন্ট বাইডেনের আফগানিস্তান নীতির অনকগুলো অমীমাংসিত প্রশ্নের একটি হচ্ছে সেনা প্রত্যাহারের পর যুক্তরাষ্ট্র সেখানে বিমান বাহিনীর সহায়তা বজায় রাখবে কিনা? এসব প্রশ্ন সঙ্গে নিয়েই আগামী সপ্তাহে ব্রাসেলসে নেটো মিত্রদের সঙ্গে বৈঠক করতে যাচ্ছেন বাইডেন।
অন্যান্য অমিমাংসীত প্রশ্নের মধ্যে আছে সেনা প্রত্যাহারের পর যুক্তরাষ্ট্র কীভাবে আল-কায়েদা ও অন্যান্য গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান পরিচালনা করবে এবং আফগানিস্তানের সামরিক বাহিনীকে সহায়তা চালিয়ে যেতে পশ্চিমা ঠিকাদারদের নিরাপত্তা কীভাবে নিশ্চিত করা হবে। তাছাড়া সন্ত্রাসবিরোধী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহের নতুন পথ বের করতে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাও (সিআইএ) বেশ চাপে রয়েছে। সূত্র : সিএনএন

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
মোঃ+দুলাল+মিয়া ১০ জুন, ২০২১, ৩:০০ পিএম says : 0
তুমি যে ভাবে আসিয়াছে সে ভাবে চলে যাও,কি হবে না হবে আফগানিস্তানে বেকতিগত বেপার,বাঁটপার কোথায় কার তোমার দরকার কি ।
Total Reply(0)
Nasir Uddin ১০ জুন, ২০২১, ৩:৩৮ পিএম says : 0
কাবুলের উত্থান-পতনের প্রশ্নে তৃতীয় পক্ষের এত জ্বালাপোড়ার কি হলো?রোহিঙ্গা, ফিলিস্তিনি,সিরিয়ান শরনার্থীদের জন্যতো এত কান্না আর জ্বালা যন্ত্রণা দেখছিনা!
Total Reply(0)
Khalid ১০ জুন, ২০২১, ৩:৩৯ পিএম says : 0
পরাজিত পরাশক্তিতো, কিছু একটা না বললে কি হয়।
Total Reply(0)
Abdullah Hosain ১০ জুন, ২০২১, ৩:৩৯ পিএম says : 0
সেনা অভিযান প্রতিহত করতে, তালেবান মুক্তিযোদ্ধারা সবসময় প্রস্তুত। ইনশাআল্লাহ
Total Reply(0)
Foysal Hasan ১০ জুন, ২০২১, ৩:৩৯ পিএম says : 0
কথা শুনে মনে হচ্ছে দয়া করে আফগানিস্তান ছেরে চলে যাচ্ছে।অথচ বাস্তবতা হল তালেবানের সাথে যুদ্ধে পরাজিত হয়ে আফগানিস্তান ছেরে যেতে বাধ্য হচ্ছে
Total Reply(0)
Fa Rid ১০ জুন, ২০২১, ৩:৪০ পিএম says : 0
মাইন্সের জিনিসের উপর এত নজর লোভ কিসের
Total Reply(0)
যুবরাজ ১০ জুন, ২০২১, ৪:৩৫ পিএম says : 0
গত ২০ বছর সামরিক অভিযান চালিয়ে তালেবান মুক্তিযোদ্ধাদের কি চুলটা ছিড়েছে আমেরিকা তা তো আমরা দেখেছিই। বিশ্ব পরাশক্তি, বিশাল সেনাবাহিনী, উন্নত অস্ত্রশস্ত্র নিয়েও তো যুক্তরাষ্ট্রের তুলনায় সেকেলে অস্ত্র ব্যাবহার করা, মাত্র ৬০ হাজার পাহাড়ি মোল্লাদের বিরুদ্ধে টিকে থাকতে পারলো না। এখন আবার নির্লজ্জের মতো নিজের সম্মান বাঁচাতে এসব কথা হচ্ছে। যাও তোমাদের মুরোদ দেখা আছে। সাম্রাজ্যবাদের কবরস্থান আফগানিস্তানকে বৃটিশরা তিনবার দখল করার চেষ্টা করেছিলো, সোভিয়েত ইউনিয়নও চেষ্টা করেছিলো, তোমরাও করেছো। পেরেছো কি? পারো নি। এখন চুপচাপ ঘরের ছেলে ঘরে ফিরে যাও।
Total Reply(0)
Dadhack ১০ জুন, ২০২১, ৬:৩৫ পিএম says : 0
May Allah destroy and humiliate kafir barbarian america by the hand of Taliban InshaAllah.
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন