ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৮ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সউদী-পাকিস্তান সম্পর্কে আবারও উষ্ণভাব

বিলম্বে পরিশোধ সুবিধায় তেল পুনঃসরবরাহের ইঙ্গিত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ জুন, ২০২১, ১২:০১ এএম

পাকিস্তান ও সউদী আরবের মধ্যে উষ্ণ সম্পর্ক বিরাজ করছে। গত শনিবার দু’দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের টেলি-আলাপকে উষ্ণ সম্পর্কের সর্বাধিক লক্ষণ বলে মনে করা হচ্ছে। সম্পর্ক উন্নয়নের অংশ হিসেবে বিলম্বিত পেমেন্ট সুবিধায় রিয়াদের পক্ষ থেকে সম্ভাব্য তেল পুনরায় চালু করারও ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে। টেলিফোন আলাপ ছিল উভয় পক্ষের সম্পর্কের সমস্যাগুলো হ্রাস প্রচেষ্টার অংশ। গত মাসে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সউদী আরব সফরের মধ্য দিয়ে এ উদ্যোগের শুরু হয়।
এই সফরে প্রধানমন্ত্রীকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানোর ফলে অতীতে কয়েকটি বিষয়ে মতপার্থক্যের কারণে ভেঙে পড়া সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করতে সহায়ক হয়। এক পর্যায়ে সম্পর্ক এত উত্তেজনাপূর্ণ ছিল যে, নির্ধারিত সময়ের আগেই পাকিস্তানের সউদী আরবকে ৩ বিলিয়ন ডলার ঋণ পরিশোধ করতে হয়েছিল।

সউদী আরব এর আগে হয় ঋণ পুনঃতফসিল করে বা অনুদানে রূপান্তর করে। কিন্তু এই প্রথম পাকিস্তানকে সউদীর ঋণ পরিশোধ করতে হয়েছিল। তবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সফর এবং দুই দেশের মধ্যে অন্যান্য ব্যস্তবতার প্রেক্ষিতে সম্পর্ক আবারও আবারও পুরনো ধারায় ফিরে আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।
বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রী শওকত তারিন শুক্রবার সাংবাদিকদের বলেন যে, পাকিস্তান অর্থ পরিশোধ স্থগিত রেখে তেল সরবরাহ পুনরায় শুরু করতে সউদী আরবের সাথে আলোচনা করছে। আশা করা হচ্ছে, সউদী পররাষ্ট্রমন্ত্রী শিগগিরই ইসলামাবাদ সফর করবেন। গত শনিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশী এবং সউদী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফারহান আল-সউদের মধ্যে আলোচনার পর পররাষ্ট্র দফতরের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা প্রধানমন্ত্রীর সফল সফরের ফলাফল পর্যালোচনা করেছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা দু’দেশের নেতৃত্বের গৃহীত সিদ্ধান্ত কার্যকর ও কার্যকর বাস্তবায়নের লক্ষ্যে একসঙ্গে কাজ করতে সম্মত হয়েছেন। কুরেশি সউদী আরবের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতার জন্য পাকিস্তানের সমর্থনও পুনরায় নিশ্চিত করেছেন।
দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা এবং বহুপাক্ষিক সংস্থায় দুই দেশের সহযোগিতা নিয়েও আলোচনা করেন। তারা পারস্পরিক আগ্রহের বৈশ্বিক এবং আঞ্চলিক বিষয়ে মতবিনিময়ও করেন। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘পাকিস্তান ও সউদ আরবের মধ্যে ঘনিষ্ঠ ও সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের সাথে সঙ্গতি রেখে দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা বিভিন্ন ইস্যুতে নিয়মিত আলোচনা করেন’।

দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মে মাসে দু’বার বৈঠক হয়েছে; প্রথমে সউদী আরবে প্রধানমন্ত্রীর সফরকালে এবং তারপরে নিউইয়র্কে ফিলিস্তিন বিষয়ক জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের বৈঠকের সময়।
এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা পাকিস্তান ও সউদী আরবের মধ্যকার দীর্ঘস্থায়ী ও ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের বিষয়টি পুনরায় নিশ্চিত করেছেন। সউদী পররাষ্ট্রমন্ত্রী কুরেশিকে ২০২১ সালে হজ পরিচালনার চ্যালেঞ্জ এবং জনস্বাস্থ্যের বৃহত্তর স্বার্থে সউদী আরবের গৃহীত নীতিমালা সম্পর্কে অবহিত করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী কুরেশি পরিস্থিতি সম্পর্কে তার বোঝাপড়া জানান এবং দুটি পবিত্র মসজিদের কাস্টডিয়ানের জনস্বার্থে নেয়া সিদ্ধান্তের প্রতি আস্থা প্রকাশ করেন। সূত্র : এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন