বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৪ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

এরিকসেন, লুকাকু আর ভিএআর

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ জুন, ২০২১, ১২:০০ এএম

ইউরোতে গতপরশু রাতে ম্যাচ হয়েছে তিনটি। আর ম্যাচ তিনটিকে তিন শব্দে বলতে গেলে তা হবে-এরিকসেন, লুকাকু ও ভিএআর। ডেনমার্ক-ফিনল্যান্ড লড়াই এ আসরে তেমন মাহাত্ত্ব্য রাখে না। কিন্তু ম্যাচে যা ঘটে গেল সব ছাপিয়ে এ ম্যাচটিই হয়ে উঠল আলোচনার বিষয়। ম্যাচের ফল-ডেনমার্ক ০, ফিনল্যান্ড ১। ম্যাচের ফল দেখে বলাই যায় জিতেছে ফিনল্যান্ড। কিন্তু না। আসল জয়টা হয়েছে মানবতার।
ম্যাচের ৪০ মিনিটে মাঠে হঠাৎ মুখ থুবড়ে পড়ে যান ক্রিস্তিয়ান এরিকসেন। মাঠে প্রায় ১৫ মিনিট চিকিৎসার পর ড্যানিশ মিডফিল্ডারকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। উয়েফা তখন ম্যাচ স্থগিত ঘোষণা করে। এরপর অবশ্য ডাক্তারদের প্রাণান্ত চেষ্টার পর জ্ঞান ফেরে ২৯ বছর বয়সী ইন্টার তারকার। পরে তার অনুরোধেই ফের মাঠে গড়ায় ম্যাচ। এরিকসেন নিজেই হাসপাতাল থেকে ফেসটাইমে ভিডিওবার্তায় ডেনমার্ক দলে তার সতীর্থদের আবার মাঠে নামতে অনুরোধ করে বলেছিলেন, ‘এখন আগের চেয়ে ভালো আছি।’ পরে বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১২টায় ৪৩ মিনিট থেকে আবার ম্যাচ শুরু হয়, এরিকসেনের বদলি হিসেবে ডেনমার্ক মাঠে নামায় মাথিয়ান ইয়েনসেনকে।

দারুণ মানসিক দৃঢ়তার পরিচয় দিয়ে ড্যানিশ খেলোয়াড়েরা মাঠে নেমেছেনও। দারুণ সাহসের এই গল্পটা সুন্দর সমাপ্তি পেত ফিনল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচটাতে শেষ পর্যন্ত ডেনমার্ক জিতে গেলে। ম্যাচের ৪০ মিনিটে হঠাৎ মুখ থুবড়ে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে হাসপাতালে যাওয়া এরিকসেনকে তাতে দারুণ উপহার দেওয়া হতো। কিন্তু তা হয়নি, বরং উল্টোদিকে দুর্দান্ত গল্প লিখেছে এবারই প্রথম ইউরোতে সুযোগ পাওয়া ফিনল্যান্ড। কোপেনহেগেনে আজ ডেনমার্ককে ১-০ গোলে হারিয়ে ইউরো অভিষেক রাঙিয়ে দিয়েছে ফিনিশরা। তবে সবকিছ ছাপিয়ে এ জয় যেন মানবতার। ফুটবলের রথী-মহারথী থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্ট ও সমর্থকদের প্রার্থনায় শুধুই ছিল এরিকসেনের সুস্থ্যতা কামনা।

ইউরোতে এর পরের ম্যাচে রাশিয়ার বিপক্ষে জোড়া গোল করলেন রোমেলু লুকাকু। তার পাশাপাশি নিশানা ভেদ করন থমাস মুনিয়ের। তাতে ভøাদিমির পুতিনের দেশকে হারিয়ে আসরে শুভ সূচনা করল আসরের অন্যতম ফেভারিট বেলজিয়াম। রাশিয়া বিশ্বকাপে ৪ গোল করা লুকাকু ওই আসরের পর থেকে যেন আরও খুনে হয়ে উঠেছেন। বিশ্বকাপের পর থেকে এই নিয়ে জাতীয় দলের হয়ে ১৯ ম্যাচে ২২ গোল করলেন তিনি। মেজর টুর্নামেন্টেও (বিশ্বকাপ ও ইউরো) দেশের সর্বোচ্চ গোলদাতা এখন তিনি। ১৬ ম্যাচে ৯ গোল। এর আটটিই গ্রুপ পর্বে।

সেন্ট পিটার্সবার্গের ক্রেস্তোভস্কি স্টেডিয়ামে ‘বি’ গ্রæপের ম্যাচটি রবার্তো মার্তিনেজের শিষ্যদের জয়টি ৩-০ গোলে। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বরে থাকা দলটি ম্যাচে বল দখল ও আক্রমণে একচ্ছত্র প্রাধান্য দেখায়। এ নিয়ে টানা ৩১ ম্যাচে গোল করার নজির স্থাপন করেছে রেড ডেভিলসরা। শেষবার তারা জালে বল পাঠাতে ব্যর্থ হয়েছিল ২০১৮ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে। ওই ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ ছিল বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। ৬৭ শতাংশ সময়ে বল পায়ে রাখা বেলজিয়ানদের নেওয়া নয়টি শটের মধ্যে লক্ষ্যে ছিল চারটি। বিপরীতে, তাদের গোলমুখে করা পাঁচটি শটের কেবল একটি লক্ষ্যে রাখতে পারে রাশিয়া। আগামী বুধবার নিজেদের পরের ম্যাচে রাশিয়া একই মাঠে মোকাবিলা করবে ফিনল্যান্ডকে। পরদিন ডেনমার্ক আতিথেয়তা দিবে বেলজিয়ামকে।

দিনের প্রথম ম্যাচে ওয়েলস-সুইজারল্যান্ড ম্যাচ শেষের দিকেও ১-১ সমতায়। শেষ মুহ‚র্তে ভিএআরে একটি গোল বাতিল হওয়ায় জিততে না পারার হতাশায় পুড়তে হয়েছে সুইসদের। ম্যাচের শুরু থেকেই যেভাবে খেলা এগিয়েছে, তাতে নিজেদের দুর্ভাগা ভাবতেই পারে সুইজারল্যান্ড। শুরু থেকেই খেলা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নিয়েছিল সুইজারল্যান্ড। শাকা, শাকিরি আর কেভিন এমবাবুরা একের পর এক আক্রমণ করেছেন। ওদিকে স্ট্রাইকে সেফেরোভিচের সঙ্গী ব্রিল এমবোলোও সতীর্থকে জায়গা করে দিতে খেলছিলেন দারুণ। কিন্তু কাজের কাজ যাঁর করার কথা, সেই মূল স্ট্রাইকার যে বল গোলমুখেই রাখতে পারছিলেন না।

৪৯ মিনিটে শাকিরির কর্নার থেকে লাফিয়ে উঠে হেড করলেন এমবোলো। যোগ্য দল হিসেবেই এগিয়ে গেল সুইজারল্যান্ড। তবে এরপর ওয়েলসও আক্রমণের গতি বাড়ায়। এরই ফল এসেছে ৭৪ মিনিটে। জো মোরেলের বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া ক্রসে দ্রæত ছুঁতে এসে এক হেড করেন মুর। সেটা একদম বার ঘেঁষে ঢুকে যায় জালে। ১-১ ব্যবধানে শেষ হয় ম্যাচ। ‘এ’ গ্রুপে নিজেদের পরের ম্যাচে আগামী বুধবার তুরস্কের মুখোমুখি হবে ওয়েলস। একই দিন সুইজারল্যান্ডের প্রতিপক্ষ ইতালি।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন