ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৮ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সংক্রমণ বাড়লে স্থানীয়ভাবে লকডাউন : প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ জুন, ২০২১, ১২:০১ এএম

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেশের যে কোনো এলাকায় বাড়লে ঝুঁঁকি না নিয়ে স্থানীয় প্রশাসনকে লকডাউন দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনে মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব সাংবাদিকদের ওই কথা জানান। করোনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কোনো নির্দেশনা আছে কিনা এমন প্রশ্নে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলছেন যে, এখন থেকে বলে দাও স্থানীয় মাঠ প্রশাসনের সবাইকে অথরিটি দিয়ে দেওয়া হলো। ইতোমধ্যে আমরা চিঠিতে বলে দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী আবার স্মরণ করিয়ে দিতে বলেছেন। কোনো রকম রিস্ক না নিতে। যে স্থানে করোনা পরিস্থিতি ভালো নয় মনে করবেন স্থানীয় প্রশাসন সেখানে যেন ব্লক করে দিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করে।

লকডাউন নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত আছে কিনা-এ প্রশ্নে তিনি বলেন, এটা নিয়ে এখনও কোনো আলোচনা নেই। এটা আরও দুই দিন সময় আছে। বিধিনিষেধ কি বৃদ্ধি করা হতে পারে? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, দেখা যাক কী হয়।
লকডাউনে সরকারি সব অফিস কেন খোলা রয়েছে? এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আমরা লোকবল ভাগ করে নিয়েছি। আমাদের অর্ধেকের বেশি আসে না। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, করোনা নিয়ে মোটামুটি আলোচনা হয়ে গেছে। মিটিং ছাড়াও আলাপ হয়। ইতোমধ্যে আমরা স্থায়ীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা এবং জনপ্রতিনিধি যারা আছেন বা আর্মড ফোর্সেস বা ‘ল’ এজেন্সিজ সবাইকে বলে দিয়েছি তারা স্থানীয়ভাবে বসে, যদি দেখেন কোনো এলাকায় সংক্রমণ বেশি হচ্ছে সেই এলাকায় ইমফোর্স করা, ট্রিটমেন্ট বেশি দেওয়া বা লকডাউন যেটা তারা মনে করবে সেভাবে। কারণ পুরো দেশ তো এখন একভাবে স্প্রেড করছে না।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, উত্তরাঞ্চলের দিনাজপুরে করোনা সংক্রমণ একটু বেড়েছে। আবার দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের যশোরে কিছুটা কমেছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রথম দিককার চেয়ে বর্তমানে কমতে শুরু করেছে। প্রধানমন্ত্রীসহ এটা সরকারেরই সিদ্ধান্ত, যদি উনারা মনে করেন কোনো এলাকা ব্লক করে দেবেন সেটা স্থানীয়ভাবে সবাই মিলে আলোচনা করে ব্লক করে দিতে পারবেন। চীন-রাশিয়ার টিকার বিষয়ে এক প্রশ্নে তিনি বলেন, আলোচনা চলছে, দেখা যাক। এটা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে জানাবে।

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ‘গার্ড অব অনার’ দেওয়ার ক্ষেত্রে নারী কর্মকর্তাদের বাদ রাখতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সুপারিশ দেখা হবে। গত রোববার সংসদীয় কমিটির বৈঠকে ‘গার্ড অব অনার’ দেওয়ার ক্ষেত্রে নারী ইউএনওদের বিকল্প খুঁজতে সরকারের কাছে সুপারিশ রাখা হয়েছে।

সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ‘গার্ড অব অনার’ দেওয়ার ক্ষেত্রে দিনের বেলায় আয়োজন করা এবং নারী ইউএনওর বিকল্প ব্যক্তি নির্ধারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।
এ বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আমি খবরে দেখেছি। মিটিংয়ে কী বলেছেন সেটা দেখতে হবে। অনেক সময় কোর্টে কোনো পক্ষ হাইকোর্টের রুলিং দেখিয়ে বলেন, রুলিংয়ে এটা আছে, পড়ে শোনাতে বলার পর দেখা যায় ইম্পিগেশনটা উল্টো। তিনি বলেন, রাষ্ট্র যে আদেশ দেবে সেটা অবশ্যই মেনে চলতে হবে। কল্যাণকর যদি আদেশ দেয় সেটা মেনে চলতে হবে। আমাকে জানতে হবে। ‘গার্ড অব অনার’ নিয়ে কেন বলেছেন জানি না। ধর্মীয় বিধান নিয়ে যদি বলতো তাহলে বলা যেত। লেট আস সি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (9)
Jannat Enam ১৫ জুন, ২০২১, ৪:৩১ এএম says : 1
জাতি অপেক্ষায় আছে আবার কবে লকডাউন দিবে প্রিয় সরকার
Total Reply(0)
Mamunur Rashid ১৫ জুন, ২০২১, ৪:৩২ এএম says : 0
জনগণের চাকরি নেই। বেতন নেই। আপনারা লকডাউন দিয়ে বসে বসে বেতন নিচ্ছেন। কার টাকা থেকে বেতন নিতেছেন। কোথায় থেকে আসে এসব টাকা? চিন্তা করা উচিত।
Total Reply(0)
NH Ahmed ১৫ জুন, ২০২১, ৪:৩২ এএম says : 0
দেশে কি তাহলে লকডাউন নেই?
Total Reply(0)
Monirul Islam ১৫ জুন, ২০২১, ৪:৩২ এএম says : 0
আগে নির্বাচন পরে লকডাউন। কারন ভোটের চেয়ে করোনা দুর্বল।
Total Reply(0)
মোঃনূর ইসলাম লিটন ১৫ জুন, ২০২১, ৪:৩২ এএম says : 0
লক ডাউনে এনজিও গুলোকে বন্ধ রাখুন।
Total Reply(0)
Md Mustakim ১৫ জুন, ২০২১, ৪:৩৩ এএম says : 0
এক বছরের জন্য লকডাউন দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি
Total Reply(0)
Md Mustakim ১৫ জুন, ২০২১, ৪:৩৪ এএম says : 0
মানুষের জীবন রক্ষায় লকডাউন প্রয়োজন হলে অভশ্যই দিতে হবে। তবে সাধারণ মানুষের চিন্তা করতে হবে।
Total Reply(0)
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ১৫ জুন, ২০২১, ১:৩৯ এএম says : 1
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাকে শ্রদ্ধা ও সালাম। অদৃশ্য ভাইরাস অদৃশ্য শক্তির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা যায় না। ভারতীয় ডেল্টা ভ‍্যারিযেন্ট। যুক্তরাজ্যের আলফা ভ‍্যারিযেন্ট। নাইজেরিয়ার ইটা ভ‍্যারিযেন্ট। দক্ষিণ আফ্রিকার বিটা ভ‍্যারিযেন্ট। বিভিন্ন প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ভারতীয় ভ‍্যারিযেন্ট ভয়ংকর দ্রত ছড়িয়ে পড়ে ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি করে। ভারতের কঠিন পরিস্থিতি চুখের সামনে। আমাদের সিমান্তবক্তি গ্রাম শহর গুলো একের পর আক্রান্ত ভয়াবহতা পরিস্থিতি সৃষ্টি হচ্ছে।ভারতীয় ডেল্টা ভ‍্যারিয়েন্ট হতে বাংলাদেশের মানুষকেবাচাতে কঠোর লকডাউন প্রযোজন ছিল।বাংলাদেশের বিজ্ঞানী ভাইরাস বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।কঠোরভাবে নিযন্ত্রনের জন্যে ব‍্যবস্থা না নিলে পরিস্থিতির ভয়ংকর হবে লক্ষন মোটেও ভাল নয়। বাংলাদেশ পকৃত মহামারী ভাইরাসের সত‍্যিকার চ‍্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছে এতোদিন আক্রান্ত মৃত্যু সহনশীলতার মাঝে থাকলেও কঠিন পরিস্থিতি আমাদের অপেক্ষা করছে ভারতীয় ডেল্টা ভ‍্যারিযেন্ট শক্তিশালী। আমাদের কি করনীয় বাংলাদেশের স্বাস্থ্যবিষয়ক জাতীয় পরামর্শকের সিদ্ধান্ত নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের জন্যে একমাত্র ঔষধ লকডাউন। অর্থনৈতিক সামাজিক নিরাপত্তা ও মানুষের জীবন জীবিকার কঠিন অগ্নি পরিক্ষা মাঝেই বিশ্বের মাঝেই বাংলাদেশ তার ব‍্যাতিক্রম নয়। এটি অদৃশ্য শক্তির বিরুদ্ধে আক্রান্ত ও মৃত্যুর হাত হতে রক্ষা পাওয়ার যুদ্ধ।মানুষ স্বাস্থ্যবিধি আদেশ নিষেধ কিছুই মানছেনা।আইনশৃংখলা বাহিনী বিশাল ত‍্যাগ হাজারো আক্রান্ত শতাধিক মৃত্যুর নজির বিহীন মানুষের সেবা নিরাপত্তা কঠিন দায়িত্ব পালন করেছেন। এখন স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্যে মানুষের জীবনের নিরাপত্তা জন্যে এই আইন শৃংখলা বাহিনী কঠোর হওয়া ছাড়া বিকল্প নাই।ভাইরাস এটি বার বার রুপ পরিবর্তনকারী বহুরূপী চিন্তা গবেষণার বাহিরে অদৃশ্য শক্তির দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। বিজ্ঞানের ভাষা বিজ্ঞানের সমাদান একমাত্র টিকা। টিকার মাধ্যমে নিযন্ত্রনের পথ। বর্তমানের টিকা পর পর দুবার নিয়ে আক্রান্ত হচ্ছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থা টিকার পকৃত কারণ পকৃত পরিস্থিতি কেন পর পর দুডোস টিকা নেওয়ার পরও আক্রান্ত মৃত্যু হচ্ছে। আন্তর্জাতিক তদন্তের প্রযোজন। এই শক্তিশালী প্রতিবাদ কেও করছেন কেন?ভারতে ইতিমধ্যে প্রায় সাডেসাতশত মত ডাক্তার নার্সেরমৃত্যু হয়েছে আমাদের পাশ্ববর্তীদের কাজ হতে শিক্ষা নিতে হবে। আমাদের সমূহ যুদ্ধা ডাক্তার নার্স স্বাস্থ্যকর্মিদের মৃত্যুর করুন মর্মস্পর্শি ত‍্যাগের বিনিময়ে বাংলাদেশের মানুষ কৃতজ্ঞতার মাঝেই স্বরণ কবরে। বাংলাদেশের সবকিছুর সাহস শক্তি আপনার ঐক্যবদ্ধ সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত বিশালাকার প্রনোদনা মানবিক সাহায্য মানবিকতার জন‍্যে বাংলাদেশ শক্ত অবস্থানে বাকী আল্লাহর মর্জি। মহান আল্লাহর দরবারে আপনার শারীরিক সুস্বাস্থ্য দীর্ঘায়ু কামনা করছি। আমিন।
Total Reply(0)
মুফতি ওমায়ের ১৫ জুন, ২০২১, ৭:৫৫ এএম says : 0
তামাশার লকডাউন চাইনা, এটি জনগণের সাথে প্রতারণা ছাড়া আর কিছু নয়।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন