রোববার, ০১ আগস্ট ২০২১, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮, ২১ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

বিনোদন প্রতিদিন

নায়ক থেকে এখন নায়ক-নায়িকার বাবা

বিনোদন রিপোর্ট: | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০২১, ১২:০৮ এএম

একসময় দেশের চলচ্চিত্রে ফোক ধাঁচের সিনেমায় একচ্ছত্র আধিপত্য ছিল চিত্রনায়ক সুব্রতর। ১৯৮৫ সালে মুহম্মদ হাননানের ‘রাই বিনোদিনী’ সিনেমার মধ্যদিয়ে যাত্রা হয়েছিল তার। এরপর ‘মালা বদল’,‘ মাইয়ার নাম ময়না’, ‘সাগর কন্যা’, ‘পুষ্প মালা’,‘ হারানো সুর’, ‘সততা’, ‘তালা চাবি’, ‘পয়সা’, ‘হুমকি’, ‘নাগ জ্যোতি’, ‘চন্ডিদাস রজকিনী’সহ আরো অনেক সিনেমায় নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেন তিনি। কালক্রমে নায়ক থেকে চরিত্রাভিনেতা হয়ে উঠেন। এখন বেশির ভাগ সিনেমায় তাকে বাবা চরিত্রে অভিনয় করতে দেখ যায়। ২০০৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত প্রয়াত পরিচালক এমবি মানিক পরিচালিত ‘দুর্ধর্ষ’ সিনেমায় তিনি প্রথম নায়কের বাবা’র চরিত্রে অভিনয় করেন। বাবার চরিত্রে নির্মাতাদের কাছে তার বেশ চাহিদা রয়েছে। বর্তমানে সুব্রত তপু খানের ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’ সিনেমায় বুবলীর বাবার চরিত্রে অভিনয় করছেন। ইতোমধ্যে শেষ করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত ‘যাও পাখি বল তারে’ ও মেহেদী হাসানের ‘নদীর জলে শাপলা’ ভাসে সিনেমার কাজ। সুব্রত অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা হচ্ছে ‘টুঙ্গি পাড়ার মিয়া ভাই’। নাটকেও তিনি বাবার ভূমিকায় অভিনয় করছেন নিয়মিত। বর্তমানে লাজুকের নির্দেশনায় ‘পরিবার’র ও সাজ্জাদ হোসেন দোদুলের নির্দেশনায় ‘জমিদার বাড়ি’ ধারাবাহিকে অভিনয় করছেন। সুব্রত বলেন, সিনেমাতে এবং নাটকে বাবার চরিত্রেই কাজ করার বেশি প্রস্তাব পাই। অন্যান্য চরিত্রেও কাজ করা হয়ে থাকে। আমি সবসময়ই আমার চরিত্রটি ফুটিয়ে তোলার ক্ষেত্রে এখনো সেই প্রথম দিনের মতোই সিরিয়াস থাকি। তিনি বলেন, অভিনয় জীবনের শুরু থেকেই দর্শকের ভালোবাসা পেয়ে আসছি। এটাই অনেক বড় প্রাপ্তি। ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে তিনি বলেন, ‘ঘোমটা’ সিনেমায় অভিনয়ের মধ্যদিয়ে প্রথম দোয়েল’র প্রেমে পড়ি। তার চোখ দেখে প্রথম প্রেমে পড়ি। তার আন্তরিকতা, সরলতা আমাকে মুগ্ধ করতো। চলার পথে প্রতিটি মুহুর্তে তাকে খুব মিস করি। উল্লেখ্য, সুব্রত ও দোয়েলের মেয়ে চিত্রনায়িকা দীঘি। দোয়েল ২০১১ সালে মারা যান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন