বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৪ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তি এক সূত্রে গাঁথা-গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ জুন, ২০২১, ১২:০০ এএম

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, দেশের গণতন্ত্র আর খালেদা জিয়ার মুক্তি এক সূত্রে গাঁথা। বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি পেলেই গণতন্ত্র মুক্তি পাবে। তাই আমাদেরকে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি জন্য দুর্বার আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।
গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে নবীন দলের উদ্যোগে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুকের রোগমুক্তি কামনায় এক দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।
গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, দেশে এক নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। চারদিকে গুম হত্যা ধর্ষণ চলছে। লুটপাট চলছে অবাধে। কেউ কিছু বলার নেই। বললেই গুম। এ অবস্থা চলতে দেয়া যায় না। এই অবৈধ সরকার দেশটাকে এক কারাগার বানিয়ে রেখেছে। আমাদের নেত্রীকে অন্যায়ভাবে বন্দি করে তাকে সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। তার শারীরিক অবস্থা খুব ভাল নয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়া প্রয়োজন। তাই বেগম খালেদা জিয়াকে আগে মুক্ত করতে হবে। আর তাকে মুক্ত করতে হলে দুর্বার আন্দোলন করতে হবে। সেই দুর্বার আন্দোলনের জন্য সবাই প্রস্তুতি নিন।
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, একদিকে পরীমনি আরেক দিকে পুলিশের সোনামনি, এরা মিলে দেশে একটা সার্কাস তৈরি করেছে। বাংলাদেশে এত সমস্যা, চুরি, ডাকাতি, অর্থপাচার, স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতি, জাতীয় সংসদে এসব নিয়ে আলোচনা হয় না। আলোচনা হয় জাদুমনি, সোনামনি, পরীমনিকে নিয়ে। যেসব সমাজের কোনো উপকারে আসে না, জাতির প্রয়োজনে আসে না। তিনি বলেন, কি করে পুলিশের একজন প্রধান একটা বোট ক্লাবের সভাপতি হয়? এ নিয়ে তদন্তেরও দাবি জানান তিনি।
আলাল বলেন, বাংলাদেশকে নিয়ে একটা খেলা চলছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছেন, আমাদের কাছ থেকে এনআইডির দায়িত্ব নিয়ে কেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে দেয়া হল? নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেছেন, এনআইডির দায়িত্ব স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে দিয়ে নির্বাচন কমিশনের কফিনে শেষ পেরেক মারা হয়েছে। তার মানে কি? জীবিত মানুষের তো কফিন হয় না। কফিন তো হয় মৃত মানুষের। নির্বাচন কমিশন যে একটা কফিন, অনেক আগেই মারা গেছে, সেটাই নির্বাচন কমিশন স্বীকার করেছে। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তির সাথে দেশের রোগমুক্তি অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত। এ দুটো আলাদা করে দেখার কোনো উপায় নেই। বেগম খালেদা জিয়ার যেমন রোগমুক্তি দরকার, তেমনি দেশের একটা রোগ আছে, গণতন্ত্রহীনতা, সেই রোগ মুক্তিরও দরকার। সভায় আয়োজক সংগঠনের নেতাকর্মীরা বক্তৃতা করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন