বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৪ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

মুরাদনগরে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা, মাদরাসা পরিচালক পলাতক

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২১ জুন, ২০২১, ৮:৩৪ পিএম

গত ৫ দিন যাবত ছুটি চেয়ে না পেয়ে কুমিল্লার মুরাদনগরে পাঁচতলা ভবনের ছাদ থেকে লাফ দিয়ে পড়ে এক মাদরাসা শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করার ঘটনা ঘটেছে। গত রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার বাঙ্গরা মারকাযুস সুন্নাহ মাদরাসায় এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। নিহত ফয়সাল মিয়া (১২) পাশের ব্রা‏হ্মনপাড়া উপজেলার মহালক্ষীপাড়া গ্রামের মৃত আবুল ফজল মাষ্টারের ছেলে। সে ওই মাদরাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র ছিল। এ ঘটনায় কোন মামলা না হলেও ঘটনার পর থেকে মাদরাসা পরিচালক হাফেজ আরিফ হাসান গা ঢাকা দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

জানা যায়, গত ৫ দিন যাবত বাড়ি যাওয়ার জন্য ছুটি চেয়ে আসছিল ফয়সাল। ছুটি না পেয়ে অনেকটা মন খারাপ নিয়ে রবিবার বিকালে অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সাথে মাদ্রাসার ছাদে উঠে সে। মাগরিব নামাজের পূর্বে সকল শিক্ষার্থীরা যখন ছাদ থেকে নামতে যায় তখন দৌড়ে ছাদ থেকে লাফ দিলে ভবনের পাশে থাকা দোকানের টিনের চালা ভেঙ্গে মাটিতে পড়ে যায় ফয়সাল। ঘটনাস্থল থেকে মাদরাসার শিক্ষক ও স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার বেশ কয়েকজন বলেন, মারকাযুস সুন্নাহ মাদরাসাটি ভবনের বাঙ্গরা বাজার থানা সদরের অবস্থিত। খেলাধূলার জন্য ছাত্রদেরকে নিচে নামতে না দিয়ে প্রতিদিন বিকালে তাদেরকে ছাদে নিয়ে যায় শিক্ষকরা। ছাদের চারদিকে অল্প উচ্চতার রেলিং দেয়া থাকলেও তা ছোট ছোট শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার জন্য যথেষ্ট নয় এবং খেলাধুলা করা তো আরো ঝুঁকিপূর্ণ।

এ ব্যপারে মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক হাফেজ আরিফ হাসান বলেন, ফয়সাল আমার আত্মীয় হওয়ায় তার মা এই মাদরাসায় ভর্তি করান। সে যেন পালিয়ে না যায় আমরা তাকে চোখে চোখে রাখতাম। গত কয়েকদিন সে বাড়ি যাওয়ার জন্য ছুটি চেয়েছিল। বিষয়টি তার মাকে বলেছিলাম। তার মা বলেছে ঈদের ছুটিতে তাকে আমার সাথে বাড়ি নিয়ে যেতে। তাই তাকে ছুটি দেইনি।

নিহত শিক্ষার্থী ফয়সালের স্বজনরা বলেন, মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক হাফেজ আরিফ হাসান আত্মীয় হওয়ায় হাফেজ হওয়ার জন্য ফয়সালকে এই মাদরাসায় ভর্তি করাই । কিন্তু হাফেজ হওয়ার আগেই তার এ মর্মান্তিক মৃত্যু হওয়ায় আমরা বাকরুদ্ধ। তবে কারো বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ না থাকায় এ বিষয়ে থানায় কোন অভিযোগ দেইনি।

বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার দৈনিক ইনকিলাবকে বলেন, ‘অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখব।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন