ঢাকা বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৭ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ভারতে মুসলিম নির্যাতন বন্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ জুন, ২০২১, ১২:০০ এএম

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা ইউনুছ আহমাদ ও যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান বলেছেন, ভারতের ত্রিপুরার তেলিয়ামুড়া মহকুমার কল্যাণপুর এবং মুঙ্গিয়াকামি এলাকায় উগ্রবাদী সন্ত্রাসীদের হামলায় ৩জন মুসলিম হত্যার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় বলেন, বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলোতে মুসলিমদের উপরে নির্যাতনের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলছে। এমনকি সামান্য কারণেই সহিংসতার শিকার হয়ে প্রাণ হারাচ্ছেন মুসলমানরা। এভাবে সামান্য অজুহাতে মুসলমানদের উপর জুলুম নির্যাতনের স্টিমরোলার কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। প্রশাসনের অবহেলায় পার পেয়ে যাচ্ছে উগ্রবাদী সন্ত্রাসীরা। এবার উগ্রবাদী হিন্দু সন্ত্রাসীরা গরু ‘চুরি’র অভিযোগে ত্রিপুরায় তিন মুসলিমকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করে মুসলমানদের হৃদয়ে প্রতিবাদের আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে। গতকাল এক বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় বলেন, আগরতলায় দিকে একটি ট্রাক দ্রুতগতিতে যাওয়াকে কেন্দ্র করে ট্রাকে গরু আছে এই অজুহাতে উগ্রবাদী সন্ত্রাসীরা ট্রাকে থাকা তিনজনকেই জোর করে ট্রাক থেকে নামিয়ে তাদের ওপর ভয়ঙ্কর অত্যাচার গণপ্রহার করে হত্যা করে। যা চরম অমানবিক। নেতৃদ্বয় ভারতের উগ্রবাদী সন্ত্রাসীদের মুসলিম বিরোধী কর্মকান্ড রুখে দাঁড়ানোর জন্য মুসলিম নেতৃত্বকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান জানান।

এদিকে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা ইউনুছ আহমাদ ও যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান বান্দরবানের বোয়াংছড়িতে মসজিদের ইমাম নওমুসলিম ওমর ফারুককে নৃশংসভাবে গুলি করে হত্যার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় বলেন, নওমুসলিম ওমর ফারুককে সন্ত্রাসী সন্তু লারমার সন্ত্রাসী বাহিনী নির্মমভাবে হত্যা করে শহীদ করেছে। অবিলম্বে নওমুসলিম ওমর ফারুকের খুনিদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বলেন, অন্যথায় চাকমা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে দেশময় তীব্র আন্দোলন গড়ে উঠবে।

এদিকে, প্রবাসী বাংলাদেশীদের পাসপোর্ট নবায়ন ফি’র ক্ষেত্রে বৈষম্য দূর করার দাবি জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ।
গতকাল সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, প্রবাসীরা বহু ত্যাগতিক্ষিকার মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখতে আপ্রাণ চেষ্টা করে থাকেন। অথচ প্রবাসীদের খবর নেয়ার জন্য সৎ দায়িত্বশীল কর্মকর্তার বড়ই অভাব।

বিবৃতিতে তিনি অত্যন্ত আক্ষেপ করে বলেন, বাংলাদেশ দূতাবাস প্রবাসীদের পাসপোর্ট নবায়নের ক্ষেত্রে বৈষম্যমূলক আচরণ করে দুইভাগে বিভক্ত করে রেখেছে। যাদের স্থানীয় আইডি কার্ড বা ভিসার পেশা, ফোরম্যান, ম্যানেজার, কমার্শিয়াল প্রমোটর, ফার্মাসিস্ট, ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার এদের পাসপোর্ট নবায়ন ফি নেয়া হয়। একধরণের এবং অন্যান্যদের থেকে নেয়া হয় আরেক ধরণের।
যেহেতু পাসপোর্টে পেশার কথা উল্লেখ নেই, সকল প্রবাসীর পাসপোর্ট নবায়ন ফিও এক হওয়াই যুক্তিসঙ্গত। এছাড়া অটো প্রফেশনের পেশার ব্যক্তির্গের স্ত্রীগণ পদাধিকার বলে অটোপ্রফেশনের অধিকারী হয়ে যাবে। মানে ম্যানেজারের স্ত্রী ম্যানেজার বলে গণ্য। তাই তাকে পাসপোর্ট নবায়নের জন্য পরিশোধ করতে হয় পাঁচগুন। ওয়ান্ডারফুল প্রফেশনে বাবার প্রফেশন যদি ইঞ্জিনিয়ার হয়, তবে নবজাতক শিশুটিও সেই পদমর্যাদা পায়। অর্থ্যাৎ সেই শিশুর পাসপোর্ট ফিও ওয়ান্ডারফুল প্রফেশন হিসেবে সাধারণের চেয়ে প্রায় পাঁচগুন ফি দিতে হয়।

তিনি বলেন, ফোরম্যান, ম্যানেজার, কমার্শিয়াল প্রমোটর, ফার্মাসিস্ট, ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার এদের স্ত্রী ও সন্তানরা অটো ও ওয়ান্ডারফুলভাবে পদমর্যাদা প্রাপ্তির নজির বিশ্বের কোথাও নেই। অতএব সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি, জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল প্রবাসী বাংলাদেশীর পাসপোর্ট নবায়ন ফি একই ধার্য করে বৈষম্য দূর করতে হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন