শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

আবদালা : কিউবার বিস্ময় জাগানো ভ্যাকসিন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ জুন, ২০২১, ১২:০২ এএম

কিউবার স্বাস্থ্য বিভাগের দাবি, দেশে তৈরি ভ্যাকসিন আবদালা যে ৯২.২৮ ভাগ কার্যকর তা ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে প্রমাণিত। কিউবার প্রেসিডেন্টের কথায় তাই ৬০ বছরে দ্বিতীয় মহামারি জয়ের স্বস্তি। প্রথমটি যুক্তরাষ্ট, দ্বিতীয়টি করোনা

সম্প্রতি এক টুইট বার্তায় কিউবার প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ-কানেলে আবদালার প্রশংসা করতে গিয়ে বলেন, দুটি মহামারিতে (করোনাভাইরাস ও যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা) আক্রান্ত হয়েও ফিনলে ইনস্টিটিউট ও জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি কেন্দ্রে আমাদের বিজ্ঞানীরা দুটি কার্যকর ভ্যাকসিন উপহার দিয়েছেন।
৬০ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক অবরোধের শিকার কিউবা। ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জের দেশটি অবরোধের বিরুদ্ধে যেভাবে লড়েছে, করোনার বিরুদ্ধেও যেন লড়ছে সেভাবেই। এক কোটি দশ লাখ মানুষের দেশটি মহামারির শুরুতেই রাশিয়া বা চীন থেকে ভ্যাকসিন আমদানি না করার সিদ্ধান্ত নেয়। জাতিসংঘের কোভ্যাক্স উদ্যোগের সহায়তা না নেয়ারও সিদ্ধান্ত নেয় তারা। পরমুখাপেক্ষী না হয়ে নিজেদের সামর্থ্যে ভ্যাকসিন তৈরি করে দেশবাসীকে করোনা থেকে রক্ষার সেই সিদ্ধান্ত এখন সফল বলে দাবি করছে কিউবা। সে দেশের স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, আবদালা নামের ভ্যাকসিনটি বায়োনটেক-ফাইজার এবং মডার্নার মতোই করোনার বিরুদ্ধে শতকরা ৯২.২৮ ভাগ কার্যকর। তবে এ টিকা তিন ডোজ নিতে হয়।
ভ্যাকসিনের নামে দেশপ্রেম : কিউবার স্বাধীনতা সংগ্রামের বীর সৈনিক, জাতীয় বীর, কবি হোসে মার্তির কাব্যের চরিত্র আবদালা। আবদালাও ছিলেন বীর যোদ্ধা। দেশকে রক্ষা করতে নিজের সীমিত সামর্থে পূর্ণ আস্থা রেখেই যুদ্ধে গিয়েছিলেন। কিউবা মনে করছে, ভ্যাকসিনের নাম আবদালা রাখা পুরোপুরি সার্থক, কারণ, হোসে মার্তির সেই চরিত্রের মতো ভ্যাকসিন আবদালাও করোনা নামের ভয়ঙ্কর শত্রুকে রুখে দিতে সক্ষম।
আসল নায়ক বিজ্ঞানী নিয়েতো : আবদালা লাতিন অ্যামেরিকা অঞ্চলে তৈরি প্রথম করোনা ভ্যাকসিন। সমাজতান্ত্রিক দেশ কিউবা এমন একটি ভ্যাকসিন উদ্ভাবনের মূল কৃতিত্ব দিচ্ছে বিজ্ঞানী গেরার্দো এনরিকে গুইলেন নিয়েতোকে। হাভানার সেন্টার ফর জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি (সিআইজিবি)র বায়োমেডিকেল রিসার্চের পরিচালক নিয়েতোর নেতৃত্বেই এ মুহূর্তে সবচেয়ে কার্যকর ভ্যাকসিনগুলোর সমমানের ভ্যাকসিনটি তৈরি করেছেন কিউবান বিজ্ঞানীরা। এ সাফল্য খুব সাড়ম্বরে উদযাপনও করেছে কিউবা। গত রোববার বাবা দিবসে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেখানো হয় নিয়েতোকে নিয়ে তৈরি বিজ্ঞাপন। সেখানে ৫৮ বছর বয়সি বিজ্ঞানীর সন্তান জানান, তার বাবা পরিবার এবং দেশের মানুষের জন্য কিভাবে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন। কিউবায় জাতীয় বীরের মর্যাদা পাওয়া নিয়েতো জানান, দীর্ঘদিন ধরে সপ্তাহের প্রতিটি দিন ভোর থেকে মাঝরাত পর্যন্ত সহকর্মীদের নিয়ে কাজে ডুবে থেকে এখন তিনি তৃপ্ত, কারণ, আবদালার কার্যকারিতা রীতিমতো বিস্ময়কর। নিয়েতোর ভাষায়, ভ্যাকসিনটা যে ভালো করবে তা আমরা জানতাম, কিন্তু ফলাফল এত ভালো হবে তা আসলেই ভাবিনি।
করোনার বিরুদ্ধে কিউবার যুদ্ধ : গত মে মাসে দেশে তৈরি দুটি ভ্যাকসিন নিয়ে টিকা দেয়ার কর্মসূচি শুরু করা হয়। অন্য ভ্যাকসিনটির নাম সোবেরানা টু। গুইলেন নিয়েতো জানান, এ পর্যন্ত একটি করে ডোজ পেয়েছেন কিউবার ২২ লাখ মানুষ আর ১৭ লাখ মানুষকে দ্বিতীয় ডোজও দেয়া শেষ। এছাড়া নয় লাখ মানুষ ইতিমধ্যে তিনটি ডোজই পেয়ে গেছেন।
আবদালার চাহিদা : আবদালার তিনটি ডোজ। দু সপ্তাহ পর পর নিতে হয় একেকটি ডোজ। আগামী আগস্টের মধ্যে দেশের অন্তত ৭০ ভাগ মানুষকে তিন ডোজ টিকা দেয়ার লক্ষ্য স্থির করেছে কিউবা। দেশের মানুষকে দেয়ার পাশাপাশি এ টিকা রপ্তানির উদ্যোগও চলবে।
আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে একটি বিশেষজ্ঞ প্যানেল আবদালার কার্যকারিতা চূড়ান্তভাবে পরীক্ষা করবে। তাদের অনুমোদন পেলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও)র অনুমোদন চাইবে কিউবা। ডাব্লিউএইচও-র সবুজ সংকেত পেলেই শুরু হবে রপ্তানি। বলিভিয়া, জ্যামাইকা, ভেনিজুয়েলা, আর্জেন্টিনা এবং মেক্সিকো জানিয়েছে তারাও এই টিকা পেতে আগ্রহী। সূত্র : ডয়চে ভেলে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন