শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, ০৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

চীন ও রাশিয়ার কৌশলগত চুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ জুন, ২০২১, ১২:০১ এএম

চীন ও রাশিয়ার নেতৃবৃন্দ সোমবার তাদের ২০ বছরের পুরনো কৌশলগত সহযোগিতা চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। একইসঙ্গে তারা ক্রমবর্ধমান ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ও তাদের সম্পর্কের ‘স্থিতিশীল ভূমিকা’য় পরস্পরের প্রশংসা করেন। দু’দেশের মধ্যে অব্যাহত কৌশলগত অংশীদারিত্বের অংশ চুক্তিটির মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়।
চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সিংহুয়া জানায়, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং সোমবার বেইজিংয়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের সঙ্গে ভিডিও বৈঠক করেন। এর আগে দু’দেশ এক যৌথ বিবৃতিতে ‘চীন-রাশিয়া সুপ্রতিবেশীসূলভ বন্ধুত্বপূর্ণ সহযোগিতা চুক্তির’ মেয়াদ বাড়ানোর ঘোষণা করে। চীন ও রাশিয়ার কৌশলগত সহযোগিতা ঘনিষ্ঠ হলে বিশ্বের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা নিশ্চিত হবে বলে করছেন বিশেষজ্ঞরা। বর্তমান বিশ্বে কোভিড-১৯ মহামারি পরিস্থিতি অবনতি এবং বিশ্বব্যাপী প্রতিদ্বন্দ্বিতার প্রেক্ষাপটে, এই চুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধি নতুন যুগে চীন-রুশ সার্বিক কৌশলগত অংশীদারি সম্পর্ক প্রতিফলন করবে এবং তা বিশ্বের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা রক্ষায় ইতিবাচক শক্তি যোগাবে।

২০ বছর আগে এই চুক্তি স্বাক্ষর চীন ও রাশিয়া সম্পর্কের ইতিহাসে এক গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। চীনের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিনের সময় ২০০১ সালে চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়। যা বৃহত্তম প্রতিবেশী দেশ হিসেবে দু’দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সহযোগিতার ভিত্তি স্থাপন করে। তখন পশ্চিমা দেশগুলো অভিযোগ করে বলেছিল যে, চীন ও রাশিয়ার নতুন বন্ধুত্বের সম্পর্ক তৈরি হবে। তবে বাস্তবতা প্রমাণ করেছে যে, ২০ বছর ধরে চীন ও রাশিয়া শত্রুতা না করা, প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করা, কোনো তৃতীয় পক্ষের হয়ে বিরুদ্ধাচরণ না করার নীতি মেনে চলেছে। দু’দেশ পরস্পরের কেন্দ্রীয় স্বার্থে সম্মান জানিয়েছে এবং বিশ্বের বড় দেশের সহাবস্থানের এক নতুন দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে। যা দু’দেশের অভিন্ন স্বার্থ রক্ষার পাশাপাশি বিশ্বের শান্তি ও নিরাপত্তা রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

রাশিয়ার একটি সমৃদ্ধ ও স্থিতিশীল চীন দরকার। অন্যদিকে, চীনের একটি শক্তিশালী ও সফল রাশিয়া প্রয়োজন। বিশ্বকে চীন ও রাশিয়া ইতিবাচক শক্তি যোগাতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এই দুই বিশ্ব শক্তির অভিন্ন টানাপোড়েনের পরিপ্রেক্ষিতে বেশ কয়েক বছর ধরে মস্কো ও বেইজিং নিবিড় সহযেগিতার বন্ধনে আবদ্ধ রয়েছে। এ দু’দেশ অর্থনৈতিক, সামরিক ও জ্বালানি খাতসহ বিভিন্ন বিষয়ে সম্পর্কের উন্নয়ন ঘটিয়েছে।
পুতিন বলেন, এই বন্ধুত্ব চুক্তি সম্পর্ককে অভূতপূর্ব উচ্চতায় নিয়ে গেছে। চুক্তির মেয়াদ ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে আরও পাঁচ বছরের জন্য বাড়ানো হবে। তিনি চুক্তিটির প্রশংসা করে বলেন, বৈশ্বিক বিষয়ে এ চুক্তি চীন ও রাশিয়ার সহযোগিতার ক্ষেত্রে স্থিতিশীল ভূমিকা পালন করছে। ক্রেমলিন থেকে প্রকাশিত ওই বিবৃতিতে শি বলেন, অশান্তি ও পরিবর্তনের মধ্যদিয়ে যাওয়া এ বিশ্বে মানবতা নানা ধরনের ঝুঁকি মোকাবিলা করছে। চীন ও রাশিয়ার সহযোগিতা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে ইতিবাচক শক্তির যোগান দিচ্ছে। তিনি আরও বলেন, চীন রাশিয়ার বন্ধুত্ব নতুন ধরনের আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে একটি উদাহরণ হিসেবে কাজ করছে। সূত্র : সিনহুয়া।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন