শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২ আশ্বিন ১৪২৮, ০৯ সফর ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

২২ বছর কারাভোগের পরে সাধারণ ক্ষমা

৫ম শ্রেণির ছাত্রী পারুল

বরিশাল ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ২ জুলাই, ২০২১, ১২:০৫ এএম | আপডেট : ১২:৪৮ এএম, ২ জুলাই, ২০২১

পিরোজপুরের মঠবাড়ীয়ার পারুল আক্তার ২২ বছর কারাভোগের পর স্বাধীনতা দিবসের সাধারণ ক্ষমায় কারামুক্তি লাভ করেন। তবে ১১ বছর বয়সের সে পারুলের বয়স এখন ৩৫। মাঝে তার অসহায় পিতা এ দুনিয়া থেকে চলে গেছেন মেয়েকে কারাগারে রেখে। ১৯৯৭ সালে বোনের মেয়ে পুকুরে পরে মৃত্যু বরণ করায় মঠবাড়ীয়া থানা পুলিশ ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী পারুলকে একমাত্র আসামি করে মামলা করে। ১৯৯৮ সালে ঐ মামলায় শিশু পারুলের যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয় পিরোজপুর আদালত। অতি সম্প্রতি তাকে বরিশাল কারাগারে স্থানন্তরের পরে বিষয়টি সমাজ সেবা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা সাজ্জাদ পারভেজের নজরে আসে। সে বিষয়টি জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন হায়দারকে অবহিত করলে তিনি পারুলকে স্বাধীনতা দিবসের সাধারণ ক্ষমায় মুক্তি দেয়ার প্রস্তাব করেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পারুল বেগমের সাজার মেয়াদ কমিয়ে তাকে মুক্তির আদেশ দিলে সম্প্রতি সে কারামুক্ত হয়ে বাড়িতে মায়ের কাছে ফিরে। বরিশাল জেলা প্রশাসক সমাজ সেবা অধিদপ্তরের সহায়তায় পারুলের জীবীকা নির্বাহের জন্য একটি সেলাই মেশিন উপহার দিয়ে বাড়িতে পৌছে দিয়েছে। পাশাপাশি তাকে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের একটি ঘর দেয়ার বিষয়টিও পিরোজপুরের জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।
অর্র্থের অভাবে পারুলের পরিবারের কারাদন্ডাদেশের বিরুদ্ধে আপীল করার স্বামর্থ ছিল না। ১৯৯৭ সালে ৫ম শ্রেণিতে পড়াবস্থায় পারুল একটি ফৌজদারী মামলায় আসামি করা হলেও তখন তার বয়স কত ছিল তা বিবেচনায় নেয়া হয়নি বলেও পারুল এবং তার পরিবারসহ প্রতিবেশীদের অভিযোগ রয়েছে। পুরো বিষয়টি পুনরায় তদন্ত করারও দাবি উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন