শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮, ১৭ সফর ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

দেবিদ্বারে গোমতী নদী থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধার

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৪ জুলাই, ২০২১, ৬:১৬ পিএম

কুমিল্লার দেবিদ্বারে গোমতী নদীর বেড়ীবাঁধ সংলগ্ন ডোবা থেকে ১৫ বছর বয়সী এক মানসিক ভারসাম্যহীন প্রতিবন্ধী জামসেদ আলম নামে এক প্রতিবন্ধীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। উপজেলার সুবিল ইউনিয়নের শিবনগর গ্রামের কনু মেম্বারের বাড়ির পাশে গোমতী নদীর বেড়ীবাঁধ সংলগ্ন ঝোপঝাড় বেষ্টিত একটি ডোবায় এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত জামসেদ দেবিদ্বার পৌর এলাকার ছোট আলমপুর গ্রামের রিক্সা মিস্ত্রী আবুল হাসেমের ছেলে। জামসেদ নিজেও অটোরিক্সা চালক এবং বেসামাল মাদকাসক্ত হওয়ার কারনে সে অসুস্থ্য হয়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে বলে তার পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়। গত তিনদিন পূর্বে অটোরিক্সা এক্সিডেন্টে তার বাম হাত ভেঙ্গে যায়।

বুধবার সকালে স্থানীয় কৃষক আব্দুল আলিম গরুর জন্য ঘাস কাটতে গিয়ে ওই মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। সংবাদ পেয়ে দেবিদ্বার থানার একদল পুলিশ এসে ওই কিশোরের মরদেহ উদ্ধার পূর্বক ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিবনগর গ্রামের এক কৃষক জানান, যে নির্জন জায়গাটিতে তার মরদেহ পাওয়া গেছে, তার পাশের বাড়িটি জামসেদের বড় ভাই সুজনের শ্বশুরবাড়ি। প্রায়ই জামসেদ দলবল নিয়ে ওখানেই মাদক সেবন করত। অতিরিক্ত মাদক সেবন অথবা বন্ধুদের সাথে দ্বন্দ্বের কারনে তার মৃত্যু হতে পারে। নিহতের পিতা- মাতা সন্তান হারিয়ে বাকরুদ্ধ থাকায় কোন কথা বলা যায়নি। তবে তার চাচা আবুল হাসেম বলেন, সে দুষ্ট প্রকৃতির এবং নেশাগ্রস্থ্য ছিল। গত রোববার অটোরিক্সা এক্সিডেন্টে তার বাম হাত ভেঙ্গে যায়। চিকিৎসা করিয়ে বাড়ি আনার পর সে নিখোঁজ ছিল।

দেবিদ্বার থানার এসআই ফারুক আহমেদ জানান, গোমতী নদীর ভেরীবাঁধ সংলগ্ন ডোবা থেকে উদ্ধার হওয়া কিশোরের মরদেহ তার পিতা-মাতা সনাক্ত করেছেন। মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় তাকে ঘরে রাখা যেতনা, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে ইউডি মামলা দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত অব্যাহত আছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন