রোববার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮, ১৮ সফর ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

চীন সফরে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ জুলাই, ২০২১, ১২:০০ এএম

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি চীন সফর করেছেন। এক রহস্যময় সড়ক দুর্ঘটনায় নয়জন চীনা শ্রমিক নিহত হওয়ার পর এ সফর অনুষ্ঠিত হয়। শাহ মাহমুদ কুরেশি চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইয়ের আমন্ত্রণে শুক্র ও শনিবার চীন সফর করেন। গত শুক্রবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র অফিস (এফও) ঘোষণা করেছে, কুরেশির সঙ্গে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও ছিলেন।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ‘সফরকালে উভয় পক্ষ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও গভীর করার বিষয়ে আলোচনা করবে, চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের (সিপিসি) এর অধীনে সম্পর্ক উন্নয়নে সহযোগিতা, প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা সহযোগিতা, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন, সন্ত্রাসবাদ বিরোধী বিষয়ে আলোচনা করবে এবং পারস্পরিক স্বার্থ, আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক ইস্যু নিয়ে আলেচনার কথা রয়েছে।
বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এ সফর পাকিস্তান-চীনকে ‘অল-ওয়েদার স্ট্র্যাটেজিক কো-অপারেটিভ পার্টনারশিপ’ আরো জোরদারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে এবং বেইজিংয়ের সাথে বিভিন্ন ইস্যুতে কৌশলগত যোগাযোগ ও সমন্বয় বাড়িয়ে তুলবে।

গত ১৪ জুলাই পাকিস্তানের প্রতিরোধী খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশে একটি রহস্যজনক ঘটনার প্রেক্ষাপটে এ সফর অনুষ্ঠিত হচ্ছে, যেখানে নয়জন চীনা ইঞ্জিনিয়ারসহ ১৩ জন নিহত হয়েছেন। ঘটনাটি খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের ওপার কোহিস্তান জেলার দাসু এলাকায় ঘটেছে, যেখানে একটি চীনা সংস্থা সিন্ধু নদীর তীরে ৪ হাজার ৩২০ মেগাওয়াট বাঁধ তৈরি করছে।

চীন ও স্থানীয় শ্রমিকদের বাঁধ নির্মাণকাজে নিয়ে যাওয়া একটি বাস উপত্যকায় পড়ে গিয়ে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এটি সন্ত্রাসবাদী হামলা বা গাড়ীতে বিস্ফোরিত গ্যাস বিস্ফোরণ ছিল কিনা তা ঘনিষ্ঠ মিত্রদের মধ্যে পার্থক্যজনিত ধারণাও বেইজিংয়ের উদ্বেগকে আরও বাড়িয়ে তুলেছিল।

প্রাথমিকভাবে বলা হয়েছিল যে, বাসটি পড়ে যাওয়ার আগে একটি বিস্ফোরণ ঘটেছিল। পরে, পাকিস্তান আনুষ্ঠানিকভাবে বলেছিল যে, কিছু প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণে বাসটি প্রথমে পড়ে গিয়েছিল এবং পরে গ্যাস বের হওয়ার কারণে বিস্ফোরণ ঘটে। চীনারা এটিকে বিস্ফোরণ বলে অভিহিত করে এবং তদন্তের জন্য বিশেষজ্ঞদের একটি ১৫ সদস্যের দলও পাঠিয়েছে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদ এ সপ্তাহে বলেছেন যে, পাকিস্তান তদন্ত শেষ করেছে এবং চীনারা এতে সন্তুষ্ট। তবে তিনি বাসের ঘটনার প্রকৃতি সম্পর্কে বিস্তারিত জানাননি।

পাকিস্তানের পক্ষে, বেইজিংয়ের উপর ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক নির্ভরতার কারণে চীনের সাথে সম্পর্ক গুরুত্বপূর্ণ। ২০১৫ সালে চালু হওয়া সিপিইসিকে পাকিস্তানের অনেকে গেম-চেঞ্জার হিসাবে বিবেচনা করে। এ বছর দুই দেশ কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ৭০তম বার্ষিকী উদযাপন করছে এবং ১০০টিরও বেশি উদযাপন অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করা হয়েছে যার মধ্যে ইতোমধ্যে ৬০টির বেশি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ‘এসব উদযাপন প্রচলিত বন্ধুত্বের মধ্যে একটি নতুন উদ্দীপনা এবং উষ্ণতা সঞ্চারে প্রচুর অবদান রেখেছে’।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরো বলেছে, সময়ের-পরীক্ষিত পাকিস্তান-চীন সম্পর্ক অতুলনীয় পারস্পরিক বিশ্বাস, বোঝাপড়া ও স্বার্থের ওপর ভিত্তি করে এবং উভয় পক্ষই নিবিড় চীন-পাকিস্তান সম্প্রদায়কে শেয়ার করে নিতে সম্পূর্ণ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরো জানিয়েছে, কুরেশির সর্বশেষ সফর পাকিস্তান ও চীনের মধ্যে উচ্চস্তরের মতবিনিময়ের একটি অংশ। সূত্র : দ্য ইকোনমিক টাইমস।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
Md Shewkit Md Shewkit ২৫ জুলাই, ২০২১, ৫:৪৪ এএম says : 0
আমরা মুসলমান আমরা চাই ভারতকে একটা উচিত শিক্ষা দিতে
Total Reply(0)
Mijanur Rahman ২৫ জুলাই, ২০২১, ৫:৪৫ এএম says : 0
চিন নিজের স্বার্থ ছাড়া কিছুই বোজেনা।
Total Reply(1)
habib ২৫ জুলাই, ২০২১, ১০:২৮ এএম says : 0
And India ?
সাইফ আহমেদ ২৫ জুলাই, ২০২১, ৫:৪৬ এএম says : 0
চীন-পাকিস্তান সম্পর্ক নষ্ট করতে ভারত সবসময় তৎপর রয়েছে। দুদেশকেই সতর্ক খাকতে হবে।
Total Reply(0)
দেওয়ান মাহদী ২৫ জুলাই, ২০২১, ৫:৪৭ এএম says : 0
ভারতকে চাপে ফেলতে এই ধরনের সফর মাঝে মাঝেই করা উচিত।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন