বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪ আশ্বিন ১৪২৮, ২১ সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

একদিনে সর্বোচ্চ ২৪৭ মৃত্যু, শনাক্তেও রেকর্ড

দেশে করোনাভাইরাস

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ জুলাই, ২০২১, ১২:০০ এএম

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এটি এক দিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। এর আগে একদিনে এত মৃত্যু দেখেনি বাংলাদেশ। এ নিয়ে করোনায় দেশে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৫২১ জনে। ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ১৯২ জন। এটিও এক দিনে দেশে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড। একই দিনে দেশে করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা আগের সব রেকর্ড ভেঙে দিলো গতকাল।

এর আগে দেশে ১৯ জুলাই ২৩১ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর। গতকালের আগে সেটাই ছিল একদিনে মৃত্যুর সর্বোচ্চ রেকর্ড। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ১৯২ জন। একদিনে এত শনাক্ত এর আগে দেশে হয়নি। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হওয়া ১৫ হাজার ১৯২ জনকে নিয়ে সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হলেন ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৮২৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১১ হাজার ৫২ জন। তাদের নিয়ে করোনা থেকে সুস্থ হলেন ১০ লাখ ৯ হাজার ৯৭৫ জন।

গতকাল সোমবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাবিষয়ক বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ৫৩ হাজার ৩১৬টি, আর নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫০ হাজার ৯৫২টি। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৭৫ লাখ ছয় হাজার ২৩৩টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৫ লাখ ১৬ হাজার ৮৬৪টি এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ লাখ ৮৯ হাজার ৩৬৯টি।

ঈদের ছুটির পর দেশে করোনার নমুনা পরীক্ষাও হয়েছে একদিনে সর্বোচ্চ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫০ হাজার ৯৫২টি। রেকর্ড সংখ্যক নমুনা পরীক্ষায় দেশে একদিনে রেকর্ড সংখ্যক রোগী শনাক্ত হলেন। গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী শনাক্তের হার ২৯ দশমিক ৮২ শতাংশ, আর এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৭২ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যু হার এক দশমিক ৬৫ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৪৭ জনের মধ্যে পুরুষ ১৪১ জন এবং নারী ১০৬ জন। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে পুরুষ মারা গেলেন ১৩ হাজার ৩৪০ জন এবং নারী মারা গেলেন ছয় হাজার ১৮১ জন।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, তাদের মধ্যে ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে আছেন দুই জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ১৭ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৪৫ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৭৩ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৫৯ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩০ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ১৬ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে তিন জন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে রয়েছেন দুই জন। তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন ৭২ জন, চট্টগ্রাম বিবাগের ৬১ জন, রাজশাহী বিভাগের ২১ জন, খুলনা বিভাগের ৪৬ জন, বরিশাল বিভাগের ১২ জন, সিলেট বিভাগের ১৪ জন, রংপুর বিভাগের ১৬ জন আর ময়মনসিংহ বিভাগের আছেন পাঁচ জন। অধিদফতর জানিয়েছে, ২৪৭ জনের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছন ১৬৫ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ৫৫ জন, বাড়িতে মারা গেছেন ২৬ জন এবং হাসপাতালে মৃত অবস্থায় আনা হয়েছে একজনকে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
Fazley Rabby ২৭ জুলাই, ২০২১, ৬:০৪ এএম says : 0
· শুধুমাত্র আল্লাহর রহমতই পারে আমাদের রক্ষা করতে
Total Reply(0)
S.H. Rubel ২৭ জুলাই, ২০২১, ৬:০৪ এএম says : 0
এইটা তো শুধু মাত্র করোনা পজেটিপ রুগি যা হাসপাতালের রিপোট এই ছাড়া গ্রামে করোনা পরিক্ষা ছাড়া জ্বর সর্দি কাশি ব্যাথা নিয়ে আরো অনেক মৃত্যু হচ্ছে !! হে আল্লাহ দয়াময় রহমানুর রহিম ক্ষমাশীল,
Total Reply(0)
Humayoun Ahmed ২৭ জুলাই, ২০২১, ৬:০৪ এএম says : 0
সোনার বাংলায় এই লকডাউন/সাটডাউনে কোন কাজ হবে না এদেশের আইনকে জনগন কচু-পাতার পানির মত মনে করে,, সোনার বাংলায় একমাত্র "কার্পিউ" ছারা অন্য কিছুই হবে মনে হয়না,,,,
Total Reply(0)
Md Abul Basar ২৭ জুলাই, ২০২১, ৬:০৫ এএম says : 0
আসুন সবাই সচেতন হই লকডাউন মেনে চলি, নিজে নিরাপদে থাকি সেই সাথে পরিবারের সবাইকে নিরাপদে রাখি।
Total Reply(0)
Didar Hossain ২৭ জুলাই, ২০২১, ৬:০৫ এএম says : 0
মানুষ স্বেচ্ছায় সচেতন না হলে মৃত্যুর সংখ্যা আরও বাড়বে। এখনও সময় আছে সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।
Total Reply(0)
Jamee Gomes ২৭ জুলাই, ২০২১, ৬:০৫ এএম says : 0
জনগণকে বাধ্যতামূলক ভাবে মাস্ক পড়ানোর কড়া উদ্যোগ সরকারে নেয়া উচিত।অনেক শিক্ষিত লোক মিনিমাম সর্তকতা হিসেবে মাস্ক ব্যবহার করছে না।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন