মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬ আশ্বিন ১৪২৮, ১৩ সফর ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

মিরপুরে টার্নের খোঁজে টার্নার

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ আগস্ট, ২০২১, ১২:০০ এএম

নিজ দেশে স্পিন বান্ধব উইকেট পাওয়া হয় না অস্ট্রেলিয়ান স্পিনারদের। উপমহাদেশে খেলতে আসা তাই তাদের জন্য স্কিল দেখানোরও বড় সুযোগ। বাংলাদেশে আসার আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে পাঁচটা টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে অস্ট্রেলিয়া। সেন্ট লুসিয়ায় হওয়া ম্যাচগুলোর উইকেটও দেখা গেছে অনেকটা উপমহাদেশীয় ঘরানার। অনভিজ্ঞ ব্যাটিং লাইনআপ নিয়ে সেসব উইকেটে অবশ্য ভাল করেনি অজিরা। সিরিজ হেরেছে ৪-১ ব্যবধানে।

তবে সেই সিরিজ কেবল দুই ম্যাচ খেলেছিলেন অ্যাশটন টার্নার। অফ স্পিনিং অলরাউন্ডারের মূল কাজ অবশ্য ব্যাটিং। খুব একটা বল করার সুযোগও পাননি। তবে পরিস্থিতির দাবি মেটাতে ক্যারিবিয়ায় ওয়ানডে সিরিজের শেষ দুই ম্যাচে বল হাতেও ভূমিকা রাখেন তিনি। দুই ওয়ানডে মিলিয়ে ১৪ ওভার কার্যকর অফ স্পিনে নেন দুটি উইকেট। বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজে অবশ্য তিনিই হতে পারেন অজিদের অন্যতম ভরসা। প্রথমবার বাংলাদেশে এসে এখানকার উইকেট-কন্ডিশনের কথা ভেবেই বেশ রোমাঞ্চিতও টার্নার।

মিরপুরের উইকেটের ধরণ আর বাংলাদেশ স্কোয়াডে বাঁহাতিদের আধিক্য বিবেচনায় এগিয়ে থাকছেন তিনি। গতকাল ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে ২৮ পেরুনো এই অফ স্পিনার জানালেন উইকেটের কথা ভেবেই রোমাঞ্চ জাগছে তার মনে, ‘আমি রোমাঞ্চিত, প্রথমবার বাংলাদেশে এসেছি। ওয়েস্ট ইন্ডিজেও প্রথমবার সফর করে এলাম। এখানে যারা আগে খেলেছে, তাদের সঙ্গে কথা বলে যা বুঝলাম, ওয়েস্ট ইন্ডিজে যেসব উইকেটে খেলেছি, এখানে খুব ভিন্ন কিছু হবে না। অস্ট্রেলিয়া থেকে সফরে এসে, এই শীতকালে (অস্ট্রেলিয়ান মৌসুম) এমন অনেক উইকেটেই খেলতে হবে, যেখানে স্পিন ধরে। স্পিনার হিসেবে আমি রোমাঞ্চিত যে এরকম উইকেট পাব, যেখানে স্পিনারদের সহায়তা থাকে। অস্ট্রেলিয়ায় এটা সবসময় পাওয়া যায় না।’

শুধু বোলিং না ব্যাট হাতেও ভূমিকা রাখতে হবে টার্নারকে। নিচের দিকে নেমে বড় শট খেলার জন্য তিনি পরিচিত। এবার তার কাছে থেকে তেমন কিছু চাইবে তার দল। টার্নার জানালেন ব্যাটসম্যান হিসেবেও প্রচুর স্পিন বল খেলার মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে রাখছেন তিনি, ‘ব্যাটার হিসেবেও আমরা জানি যে, দারুণ কিছু স্পিনারদের মুখোমুখি হতে হবে আমাদের এবং কোনো সংশয় নেই যে তারা অনেক ওভার বোলিং করবে।’

টার্নার যখন সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হলেন, তখনও মিরপুরের উইকেট-কন্ডিশন দেখা হয়নি তার। তিন দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে গতকাল বিকেলেই ছিল অস্ট্রেলিয়ার প্রথম অনুশীলন। সিরিজ শুরুর আগে মাত্র দুটি অনুশীলন সেশন। এতেই তারা প্রস্তুত হয়ে যাবেন বলে মনে করছেন টার্নার, ‘এখনও মাঠে যাইনি। ঢাকায় আসার পর প্রথম তিন দিন আইসোলেশনে ছিলাম। আজকে বিকেলে আমাদের অনুশীলন আছে। দলের কয়েকজন আগের সফরগুলোয় এই মাঠে খেলেছে। কন্ডিশন দেখতে, অনুশীলন করতে এবং মঙ্গলবারের ম্যাচের জন্য নিজেদের যতটা সম্ভব প্রস্তুত করে তুলতে মুখিয়ে আছি।’ বাংলাদেশে অস্ট্রেলিয়ার পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু মঙ্গলবার।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন