ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

খরুচে দল চিটাগাং, কিপটে বরিশাল

প্রকাশের সময় : ২ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)’র চতুর্থ আসরের প্লেয়ার ড্রাফট হয়ে গেল পরশু। এখন মাঠে গড়ানোর অপেক্ষায়। গত আসরে প্লেয়ার্স ড্রাফটে দল পাননি অলক কাপালী ও জুবায়ের হোসেন লিখন। তবে চতুর্থ আসরে আর ভুগতে হয়নি তাদের। শুরুতেই দল পেয়েছেন তারা। কাপালী খেলবেন খুলনা টাইটান্সের হয়ে। আর জুবায়ের খেলবেন চিটাগং ভাইকিংসে। তবে এ দুই তারকা এবার দল পেলেও দল পাননি বাংলাদেশ দলের প্রথম টি-টোয়েন্টি স্পেশালিস্ট জুনায়েদ সিদ্দিকী। তার সঙ্গে বাদ পড়েছেন মার্শাল আইয়্যুব ও এনামুল হক জুনিয়রের মতো খেলোয়াড়ও।

এবার প্লেয়ার্স ড্রাফটের মাধ্যমে দল পেয়েছেন মোট ৬৪ জন খেলোয়াড়। ‘এ’ ক্যাটাগরিতে থাকা প্রত্যেক খেলোয়াড়ই দল পেয়েছেন। ‘বি’ ক্যাটাগরি থেকে বাদ পড়েছেন তিনজন, মার্শাল আইয়্যূব, এনামুল হক জুনিয়র ও মাহমুদুল হাসান। তবে সবচেয়ে বেশি বাদ পড়েছে ‘সি’ ক্যাটাগরি থেকে। যার অধিকাংশ কোনো না কোনো সময় জাতীয় দলে খেলেছেন। জুনায়েদ সিদ্দিকী ছাড়াও ‘এ’ ক্যাটাগরি থেকে বাদ পড়েন মেহরাব হোসেন জুনিয়র, রাজিন সালেহ, শাহাদাত হোসেন, রবিউল ইসলাম, তুষার ইমরান, ডলার মাহমুদ, সাজেদুল ইসলাম ও ধীমান ঘোষের মতো খেলোয়াড়রা।
এছাড়াও এই ক্যাটাগরিতে থাকা ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশনে ঝড় তোলা ইমতিয়াজ হোসেন তান্নাও বাদ পড়েছেন। দল পাননি আসিফ আহমেদ রাতুল, মাইশুকুর রহমান, মাহবুবুল করিম, সাদমান ইসলাম, তাসামুল হক ও শরিফুল্লাহর মতো পারফরমাররাও। অনূর্ধ্ব-১৯ তারকা খ্যাত সাইফ হাসান, মেহেদী হাসান রানা, সাঈদ সরকার, জয়রাজ শেখ, সঞ্জিত সাহা ও সালেহ আহমেদ শাওনরাও দল পাননি।
নিলামের মাধ্যমে খেলোয়াড় দলে ভেড়ালেও কেউ কেউ ব্যক্তিগত যোগাযোগের মাধ্যমেও বেশ কিছু খেলোয়াড় দলে টেনেছে। মূল বিষয় হচ্ছে এই খেলোয়াড় দলে ভেড়াতেই সবচেয়ে বেশি খরচ করতে হচ্ছে এক একটি দলকে। বিপিএলের এই আসরে সাতটি দল তাদের খেলোয়াড়দের জন্য ইতিমধ্যে ২২ কোটি ৬০ লাখ ৪০ হাজার টাকা খরচের হিসাব দেখিয়েছে। গেল বছর এই খরচের পরিমাণ ছিল ৩১ কোটি টাকার বেশি। এই খাতে সবচেয়ে বেশি খরচ করেছে চিটাগং ভাইকিংস। দেশি খেলোয়াড় কেনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি খরচের তকমাটাও গায়ে মেখেছে দলটি। সব মিলিয়ে তারা ব্যয় করেছে ৩ কোটি ৭৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে খুলনা টাইটান্স। তারা ব্যয় করেছে ৩ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। তৃতীয় অবস্থানে ঢাকা ডায়নামাইটস। তাদের মোট ব্যয় ৩ কোটি ৩৮ লাখ ৬০ হাজার টাকা। উল্টো দিকে সবচেয়ে কম অর্থ ব্যয় করেছে বরিশাল বুলস। তারা ২ কোটি ৮৬ লাখ টাকায় তাদের দল গুছিয়েছে। দল গোছাতে কার খরচ কত

দল বিদেশি খেলোয়াড় দেশি খেলোয়াড় মোট
ঢাকা ডায়নামাইটস ১৩,২৬০,০০০ ২০,৬০০,০০০ ৩৩,৮৬০,০০০
চিটাগং ভাইকিংস ১৩,২৬০,০০০ ২৪,৫০০,০০০ ৩৭,৭৬০,০০০
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ১০,১৪০,০০০ ১৯,৯০০,০০০ ৩০,০৪০,০০০
রাজশাহী কিংস ১০,৯২০,০০০ ২০,১০০,০০০ ৩১,০২০,০০০
বরিশাল বুলস ৮,৫৮০,০০০ ২০,১০০,০০০ ২৮,৬৮০,০০০
রংপুর রাইডার্স ৮,৫৮০,০০০ ২০,৭০০,০০০ ২৯,২৮০,০০০
খুলনা টাইটান্স ১৫,৬০০,০০০ ১৯,৮০০,০০০ ৩৫,৪০০,০০০
মোট ৮০,৩৪০,০০০ ১৪৫,৭০০,০০০ ২২৬,০৪০,০০০

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন