সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৩ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

মহানগর

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় প্রাণ গেল তিনজনের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ আগস্ট, ২০২১, ১২:০২ এএম

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন তিনজন। তাদের মধ্যে গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে যাত্রাবাড়ীর শনির আখড়া এলাকায় একটি ফ্যাক্টরিতে মোটরের লাইন ঠিক করার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মাইন উদ্দিন নামের এক ইলেকট্রিশিয়ানের মৃত্যু হয়েছে।

নিহতের মামা আব্দুল গণি জানান, শনির আখড়া বাসার পাশেই একটি ফ্যাক্টরিতে মোটরের লাইন ঠিক করার সময় অসাবধানবশত বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয় মাইন উদ্দিন। পরে অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
তিনি আরও জানান, বর্তমানে শনির আখড়া ৪ নম্বর রোডের বি ব্লকের ১০৫ নম্বর বাসায় পরিবারের সঙ্গে থাকত মাইন উদ্দিন। তিন ভাই, এক বোনের মধ্যে সে ছিল সবার ছোট। তার বাড়ি কুমিল্লা জেলার মেঘনা উপজেলার কান্দারগাঁও গ্রামে। সে ওই এলাকার মৃত আনসার আলীর সন্তান।

এর আগে গতকাল ভোরে খিলক্ষেত বাজার রেলগেট এলাকায় ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহতের বয়স আনুমানিক ৫৫ বছর। খিলক্ষেত থানার এসআই জাহাঙ্গীর খান জানান, খবর পেয়ে খিলক্ষেত বাজার রেলগেট এলাকায় রেললাইনের পাশে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকলে তাকে উদ্ধার করে। পরে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, স্থানীয়রা জানিয়েছেন যে নিহত ব্যক্তি ওই এলাকায় ভবঘুরে হিসেবে ছিলেন। নিহতের ডান হাত কাটা। তার নাম পরিচয় এখনো জানা যায়নি। বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে। তার পরিচয় শনাক্তের জন্য ক্রাইমসিন টিমকে খবর দিয়েছি।
এছাড়া একইদিন সকালে মধ্য বাড্ডার আদর্শনগর এলাকায় একটি নির্মাণাধীন ভবনের দ্বিতীয় তলায় রডের কাজ করার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কবীর খা নামে এক নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। নিহতের চাচাতো ভাই আব্দুল খালেক জানান, মধ্য বাড্ডায় আদর্শ নগর এলাকায় একটি নির্মাণাধীন ভবনের দোতালায় কাজ করার সময় রডে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ভবনের দোতলা থেকে নিচে পড়ে যান। অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে এলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি জানান, নিহত কবীর খা পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ থানার উত্তর কালিকা বানিয়া গ্রামের হযরত আলীর সন্তান। তিনি বাড্ডা আদর্শ নগর এলাকায় থাকতেন। দুই ভাই দুই বোনের মধ্যে সে ছিল সবার ছোট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন