বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বগুড়ায় ক্লিনিকে অপারেশন জটিলতায় ব্যবসায়ীর মৃত্যুতে স্বজনদের ক্ষোভ

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৪ আগস্ট, ২০২১, ৬:৫৭ পিএম | আপডেট : ৭:৫৯ পিএম, ২৪ আগস্ট, ২০২১

মৃত ব্যবসায়ী মিলু।


বগুড়া শহরের কলোনি এলাকার রেইনবো হাসপাতাল নামের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে অপারেশন পরবর্তী জটিলতা ও রক্তক্ষরণে মশিউর রহমান মিলু (৫৫) নামে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার রাতে এই ঘটনায় মৃত মিলুর স্বজনদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে ওই সময় ক্লিনিক ছেড়ে পালিয়ে যায় ক্লিনিকের ডাক্তার ও নার্স সহ কর্মচারীরা।

মশিউর রহমান মিলু সুলতানগঞ্জ পাড়ার মৃত আব্দুস সালামের ছেলে। বগুড়ার শহরের বড়গোলায় ঢেউটিনের ব্যবসা করতেন তিনি।

মিলুর স্বজনরা জানান, সোমবার দুপুরের পর মশিউর রহমান মিলুকে তার পশ্চাদদেশে সৃষ্ট ফোঁড়া অপারেশনের জন্য রেইনবো কমিউনিটি ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয়। সন্ধ্যা ৭ টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. জাফর সাদিক তার অপারেশন করেন।

অপারেশনের করে ডাক্তার চলে যাওয়ার পর রাত ৯টার দিকে মিলুর শারীরিক অবস্থার অবনতি এবং ক্রমাগত রক্তক্ষরণে সে দুর্বল হতে থাকে। এসময় ক্লিনিকে কোনো চিকিৎসক না থাকায় এনিয়ে ক্লিনিকের কর্মচারীদের সাথে তর্ক বিতর্কের এক পর্যায়ে রোগীর স্বজনরা হৈচৈ শুরু করলে স্থানীয়রাও ক্লিনিকে ভিড় জমায়।

অবস্থা বেগতিক মনে করে পালিয়ে যায় ক্লিনিকের চিকিৎসক-নার্স। পরে রাত ১০টার দিকে রুপম নামে ক্লিনিকের একজন কর্মচারী অ্যাম্বুলেন্স ডেকে রোগীকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করে। মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায় রোগী জীবিত নেই।

মুত মিলুর ব্যাপারে জানতে চাইলে ক্লিনিকের কর্মচারীরা বলেন, রোগীর ফাইল খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

রেইনবো কমিউনিটি হসপিটাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গাউছুল আজমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এব্যাপারে কোন কথা বলতে চাননি । কলোনি এলাকার লোকজন জানান, এই ক্লিনিকে নিয়মিত রোগীর স্বজনদের সাথে দুর্ব্যবহার করা হয়। এটির পরিচালকরা ক্লিনিকের পাশাপাশি রেইনবো নামের একটি সঞ্চয় সমিতিও পরিচালনা করে থাকে । একটি অনুমোদনহীন আইপি টেলিভিশন এর স্পন্সর হওয়ায় এই প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা কর্মচারীরা কাউকেই তোয়াক্কা করতে চাননা বলেও ভুক্তভোগীদের অভিযোগ ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন